গরীবের পেটে লাথি মারবো না:তৈমূর

একটা নিরাপদ নগরী গড়তে হবে। শাবল পড়ে মানুষ মারা যাবে, রেলগেইট ভেঙে যানজটে মানুষ মারা যাবে, সড়কের অব্যবস্থাপনার কারণে মানুষ মারা যাবে, যানজট হবে, শব্দ দূষণ হবে, এসব থাকবে না। জলাবদ্ধতা শেষ করে দেয়া হবে। নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে সামনে রেখে বুধবার সকালে সিদ্ধিরগঞ্জের ১ নং ওয়ার্ডের সিদ্ধিরগঞ্জ পুল এলাকায় গণসংযোগকালে সাংবাদিকের এসব কথা বলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার।

তার ভাষ্য ‘আমি নাগরিক সেবা ও নাগরিকদের সকল প্রকার সুযোগ সুবিধা দেয়ার প্রতিশ্রæতি দিয়েই এই নির্বাচনে নেমেছি। নির্বাচিত হলে আমার প্রথম কাজ হবে অযাচিত ভাবে যে হোল্ডিং ট্যাক্স, ট্রেড লাইসেন্স ফি বৃদ্ধি করা হয়েছে এবং পানির যে নতুন ট্যাক্স ধার্য্য করা হয়েছে এবং জন্ম নিবন্ধনসহ বিভিন্ন যে জটিলতা এসব সহ জনদুর্ভোগ কমানো।’

তৈমূর আলম আরও বলেন, হোল্ডিং ট্যাক্স, পানির ট্যাক্স কমানো হবে। প্রয়োজনে পানির ট্যাক্স নেওয়া হবে না, ট্রেড লাইসেন্সও পূর্বের জায়গায় নিয়ে যাওয়া হবে। জনগনের হয়রানির পরিবর্তে তাদের সেবা বৃদ্ধি করা হবে। খেটে খাওয়া মানুষের পেটে লাথি দেয়া যাবে না। তাদের আগে পুনর্বাসন করতে হবে, তারপর উচ্ছেদ করতে হবে। পুনর্বাসন ছাড়া কাউকে উচ্ছেদ করা যাবে না।

এর আগে সকাল সাড়ে ১০ টায় সিদ্ধিরগঞ্জ পৌছালে সেখানে তাকে দেখে জনতার ঢল নামে। দীর্ঘদিনের ঘরোয়া বিবাদে লিপ্ত থাকা সকল বলয়ের বিএনপি নেতারা একাট্টা হয়ে তার পক্ষে মাঠে নামেন।

তিনি আরো বলেন, আমার পা খুব শক্ত। আমি নিজের পায়েই গত পঞ্চাশ বছর যাবৎ বিভিন্ন অবস্থার মধ্যে হেঁটে চলছি। আমি শংকিত নই। কারণ জনগন আমার পাশে আছে। আমি কোন ব্যাক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ আনতে চাই না। নির্বাচন কমিশন নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করছে না। বিএনপির এত বড় র‌্যালি করেছে, নির্বাচন কমিশনের অনুরোধে যাইনি। অথচ আমার অভিযোগ দেয়ার পরেও তারা আওয়ামী লীগের সমাবেশ বন্ধ করেনি। সেখানে প্রতীক সহ সমাবেশ হয়েছে। আমি শংকিত যে তারা আমাদের সাথে দ্বিমুখী আচরণ করছে।

তৈমূর আলম বলেন, নির্বাচন কমিশনের কোন ক্ষমতা নেই। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যদি ইচ্ছা করে, তাহলে এ নির্বাচন সুষ্ঠু হবে। বাংলাদেশের একমাত্র পাওয়ার পয়েন্ট প্রধানমন্ত্রী। নারায়ণগঞ্জের নির্বাচন সুষ্ঠু হবে কী হবেনা, এটা নির্ভর করে প্রধানমন্ত্রীর ইচ্ছার উপর। সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে তৈমূর আলম বলেন, সে অবশ্যই আমাকে চাচা বলবে, আমি তাকে ভাতিজী বলি এতে কোন সন্দেহ নেই। তবে, জনগণ যাকে ভোট দেবে, সেই নির্বাচিত হবে। এ সময় তার সাথে সিদ্ধিরগঞ্জের হাজারও নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ