নাগরিকদের প্রশ্ন

‘৩ হাজারের ট্যাক্স কেন ২০ হাজার?’

- Advertisement -

‘একটা সিটি করপোরেশনে কি পরিমাণ ট্যাক্স বাড়তে পারে? মানুষের সহ্যের তো একটা সীমা আছে। আগে যে মানুষটা ৩ থেকে ৪ হাজার টাকা দিতো। সেই মানুষটাই এখন ১৮ থেকে ২০ হাজার টাকা ট্যাক্স দিতে হচ্ছে।’

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১৪ নং ওয়ার্ডে ভোট চাইতে গেলে বৃহস্পতিবার (৩০ ডিসেম্বর) কাটা কাপড় মার্কেটে স্থানীয় নাগরিকরা কাউন্সিলর প্রার্থী শফিউদ্দিন প্রধানের কাছে এমন অভিযোগ করেন।

এরই মধ্যে সেই ভিডিও স্যোশাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে। ভিডিওটিতে ভোটারদের বলতে দেখা যায়, ঢাকা-চট্টগ্রামেও আমাদের থেকে কম ট্যাক্স দেয়। আপনাদের কাছে আমার দাবি, মেয়র যেই হোক, ট্যাক্স কমানোর ইস্যুতে আপনি সোচ্চার থাকবেন।

সেখানে ১৪ নং ওয়ার্ডের এক নাগরিক বলেন, এখন অনেক ভবনের ফ্লাট খালি, ভাড়াটিয়া নেই। কাউন্সিলর সাহেবের কাছে আমাদের আবেদন, আল্লাহ যাকেই মেয়র করুন না কেন, আমাদের যেন হোল্ডিং ট্যাক্স কমিয়ে দেওয়া হয়। একই সাথে ডিপ টিউবলের ফি মওকুফ করা হয়। সেটা যেন আমাদের উপর চাপ না হয়। জনগণের পক্ষ থেকে এই দু’টা জিনিসের বিশেষ আবেদন আপনার কাছে। এ সময় হোসিয়ারী ব্যবসায়ীরা ওই নাগরিকের দাবির সাথে সমর্থন দেন।

কাউন্সিলর শফিউদ্দিন প্রধান বলেন, পৌরসভার এক রকম ট্যাক্স, সিটি করপোরেশনের আলাদা ট্যাক্স। সিটি করপোরেশন হওয়াতে মানুষের জীবন মানের পরিবর্তন এসেছে। পৌরসভার সময় থেকেই আমি আপনাদের ডিপ মোটর বা পাম্পের আন্দোলনের সাথে জড়িত ছিলাম। তখন আমরা বলেছি, মাটির নিচ থেকে পানি তুলবো, কেন ওয়াসাকে টাকা দিবো। আমাকে আগে ওয়াসার সুপেয় পানি দিবেন, আমি খেতে পারবো। কিন্তু তারপরেও পানি না ব্যবহার করলে কেন ট্যাক্স নিবেন?

এখন ওয়াসার দায়িত্ব সিটি করপোরেশনের, তাই সেই দায়িত্ব আমাদেরই। তাই টাকা উঠানোর দায়িত্বও আমাদের, তারপরেও আপনাদের দাবির প্রেক্ষিতে আমরা সকল কাউন্সিলর মিলে মেয়রকে বলে ছিলাম, আগে সুপেয় পানি দেই। তারপরে পাম্প বসানোর উপর ট্যাক্স ধার্য্য কইরেন। সেটাই মেয়র মেনে নিয়ে আপাতত মওকুফ করেছেন। তারপরেও আমি বলছি, মেয়র যেই হোক, মাননীয় মেয়রের সাথে এ ব্যাপার গুলো নিয়ে কথা বলবো, এগুলো দেখবো ইনশাআল্লাহ। যাই হোক, আপনাদের উপর স্টিম রোলার চলতে দিবো না।

আরোও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ

You cannot copy content of this page