সংঘর্ষের আশঙ্কায় এলাকাবাসী

রূপগঞ্জে ২৫ মটরসাইকেলসহ গাড়ি ভাংচুর

- Advertisement -

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে একটি প্রতিষ্ঠানের কাজের আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মাঝে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এসময় এক পক্ষ আরেক পক্ষের ২৫টি মটরসাইকেলসহ দুটি প্রাইভেট ভাংচুর করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষের মাঝে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন সময় উভয় পক্ষের মাঝে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী। ঘটনাটি ঘটেছে রোববার (২ জানুয়ারী) দুপুরে উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়নের জিন্দা এলাকায়।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, জিন্দা, টেকদাসেরদিয়া, কালনি, বড় আমদিয়া মৌজা এলাকায় মেরিন সিটি নামের একটি আবাসন প্রকল্প গড়ে তোলা হয়েছে। ওই প্রতিষ্ঠানের বালু ভরাট, রাস্তা নির্মাণসহ উন্নয়ন কাজ পায় দাউদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর মাষ্টারসহ তার লোকজন। ওই উন্নয়ন কাজের দাবি করেন জিন্দা এলাকার সাবেক মেম্বার বিল্লাল হোসেন ও তার লোকজনও। আর এ কাজের আধিপত্য নিয়ে বেশ কয়েক দিন ধরেই দুই পক্ষের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।

রোববার সকালে প্রতিষ্ঠানে বালু ভরাটসহ উন্নয়ন কাজ করতে গেলে নুরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর মাষ্টারের লোকজনের উপর ক্ষিপ্ত হয় বিল্লাল হোসেনসহ তার লোকজন। খবর পেয়ে রূপগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে উভয় পক্ষকে শান্ত করে মিমাংশার চেষ্টা চালায়। এক পর্যায়ে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে থানা পুলিশের উপস্থিতিতেই বিল্লাল হোসেনসহ তার লোকজন ধারালো ও দেশীয় অস্ত্রেশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে নুরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর মাষ্টারের লোকজনের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এসময় হামলাকারীরা ২৫টি মটরসাইকেল ও দুটি প্রাইভেটকার ভাংচুর করে। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষের মাঝে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন সময় আবারো সংঘর্ষের আশঙ্কার করছেন এলাকাবাসী।

এ বিষয়ে দাউদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর মাষ্টার বলেন, আমরা নিয়মানুযায়ী ওই প্রতিষ্ঠান থেকে উন্নয়ন কাজ পেয়ে কাজ করতে গেলে সন্ত্রাসীরা বাঁধা দেন এবং হামলার ঘটনা ঘটায়। যা খুবই ন্যাক্কারজনক ঘটনা।

অপর দিকে, সাবেক মেম্বার বিল্লাল হোসেন বলেন, বিগত সময় গুলোতে আমরা কাজ করেছি। এখন জোরপুর্বক কাজ করতে যাচ্ছে তারা।

মেরিন সিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক জহির বলেন, আমরা এখন সম্পূর্ণ উন্নয়ন কাজ বন্ধ রেখেছি। উভয় পক্ষের সমাধান হওয়া না পর্যন্ত কোন কাজ করাবোনা।

রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএফএম সায়েদ বলেন, পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক রয়েছে। কোন পক্ষ ঝামেলার চেষ্টা করলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরোও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ

You cannot copy content of this page