তৈমূরে বাড়ছে ‘টেনশন’

- Advertisement -

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন আগামী ১৬ জানুয়ারি। এছাড়া দেশে আপাতত বড় কোন নির্বাচন নেই। তাই সবার দৃষ্টি নারায়ণগঞ্জের দিকে। আওয়ামীলীগের দলীয় মেয়র প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর সঙ্গে লড়ছেন বিএনপি ঘরোনার স্বতন্ত্র প্রার্থী তৈমূর আলম খন্দকার। ফলে আইভীর মার্কা নৌকা হলেও তৈমূরের মার্কা হাতি।

তবে তারা দুইজন ছাড়াও আরও ৫ মেয়র প্রার্থী মাঠে রয়েছেন। কিন্তু মূল আলোচনায় ডা. আইভী ও তৈমূর আলম। হেভিওয়েট এই দুই প্রার্থী রুটিন করে ছুটছেন নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ডে। নানা প্রুতিশ্রæতি আর আশার বাণী দুইজনের মুখে। এখন পর্যন্ত তাদের শান্তিপূর্ণ প্রচারণায় কোন ধরনের অঘটন না ঘটলেও তাদের পাল্টপাল্টি বক্তব্য উত্তাপ ছড়াচ্ছে ভোটের মাঠে।

তৈমূর আলম নাগরিক সমস্যা তুলে ধরে বক্তব্য দিচ্ছেন। জবাবে আইভী বলেছেন এগুলা তাঁর মিথ্যাচার। কিন্তু বাস্তব চিত্র নগরবাসীর খাতায়। কে সত্য বলছেন কে মিথ্যা বলছেন তার ফলাফল ১৬ জানুয়ারি প্রকাশ পাবে।

এদিকে দিন যত যাচ্ছে তৈমূরকে নিয়ে ‘টেনশন’ বাড়ছে আওয়ামী শিবিরে। ১৩ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র কেনার পর থেকে নানাভাবে আইভী সমর্থিত আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিনত হয় তৈমূর আলম। তৈমূর কি শেষ পর্যন্ত মাঠে থাকবে?

আর থাকলেও বিএনপি তাকে বহিস্কার করবে এবং বিএনপির নেতাকর্মীরা তার সঙ্গে মাঠে নামবে না। তৈমূর প্রচরণায় যা বলছে তা তার নিজের কথা নয়, কারও শিখিয়ে দেয়া কথা বলছে। বিএনপির কোন নেতা কোন এলাকায় তৈমূরের প্রচারণায় নেমেছে বা নামেনি। এমন নানা আলোচনা আওয়ামীলীগের টেবিলে। তাছাড়া নারায়ণগঞ্জে নৌকার প্রচারণা করতে আসা আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের বক্তব্যেও উঠে আসছে তৈমূরের নাম। তারা বিএনপিকে যতটা না বলছে তার চেয়ে বেশি তৈমূরকে নিয়ে আলোচনা করছে। প্রচারণার বাইরে তারা তৈমূর আলমের গতিবিধিও নজরদারী করছেন। চুল-চেরা বিশ্লেষন করছেন ভোটের লড়াই কেমন হবে।

ওদিকে মঙ্গলবার (৪ জানুয়ারি) সকালে সিদ্ধিরগঞ্জে ১নং ওয়ার্ডে নির্বাচনী প্রচারণায় গিয়ে নৌকার প্রার্থী আইভী গণমাধ্যমকে বলেছেন, প্রতিপক্ষ তৈমূর আলম শক্তিশালী প্রার্থী। এবং তৈমূর আলম যা বলছেন তা কারও শিখিয়ে দেয়া বক্তব্য দিচ্ছেন। এরআগে সোমবার বিকালে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের অফিসে আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পদ ও জেলা বিএনপির আহবায়কের পদ থেকে তৈমূর আলমকে প্রত্যাহার করে নেয়ার প্রসঙ্গ টেনে বলেন, ‘সাপকে বিশ্বাস করা যায় কিন্তু বিএনপিকে বিশ্বাস করা যায় না।
তিনি আরও বলেছিলেন, তৈমূর আলমকে মাঠে নামতে দেয়া হবে না। আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, মানুষের কাছে নৌকার প্রচারণাটা আরও জোরদার করেন। এতেই বুঝা যায় তাদের মনে দু:চিন্তার দাগ ফেলতে পেরেছেন তৈমূর আলম।

তৈমূর আলম নিজেও মঙ্গলবার প্রচারণায় গিয়ে বলেছেন, জনগন যেভাবে দলমত নির্বিশেষে নেমেছেন, জনগন হাতির পক্ষে রায় দেবে আমার পক্ষে রায় দেবে। সকলে আমাকে স্বাচ্ছন্দ্যে ভোট দিতে পারবে কারণ এখন আমি দলীয় কোন প্রার্থী না। যারা ধানের শীষে ভোট দিত, তারা কেন নৌকায় ভোট দিবে? তারা আমাকেই ভোট দিবে। নাগরিকদের চাহিদার কারণেই তো আমার এই প্রার্থীতা। নাগরিকরা আমার জন্য নেমেছে বিএনপি নেমেছে, সকল দল আমার জন্য নামছে।

অন্যদিকে জেলা বিএনপি আহবায়ক ও চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পদ থেকে তৈমূরকে সরিয়ে নেয়া হলেও এর কোন প্রভাব পড়েনি বিএনপির নেতাকর্মীদের মধ্যে। মঙ্গলবারও তৈমূরের প্রচারণায় মহনগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামালসহ জেলা ও সিদ্ধিরগঞ্জ থানা বিএনপির বেশ কয়েকজন সামনের সারির নেতাকে দেখা গেছে।

এছাড়াও বিএনপির তৃণমূলের নেতাকর্মীরা অনেকটা ঝাপিয়ে পড়েছে তৈমূরের পক্ষে। তারা বলেন, দল যা ভালো মনে করেছে সেটা করেছে। কিন্তু আমরা মনে করি এটা দলের কৌশল হতে পারে। তাছাড়া তৈমূর আলম বিএনপির লোক, তিনি বিএনপিতেই থাকবেন। আমাদের দায়িত্ব তাকে ভোট দেয়া। নাসিক নির্বাচনে ধানের শীর্ষ প্রতীক আর হাতি আমরা একই মনে করি। কারণ আমরা তো আর নৌকার ভোট দিবো না।

তারা আরও বলেন, দিন দিন আমাদের প্রার্থীর পক্ষে জনপ্রিয়তা বাড়ছে। মানুষ পরিবর্তন চায়। নতুন নগর পিতা দেখতে চায়। কারণ এখানে আইভী জনপ্রিয় হলেও তার প্রতীক জনপ্রিয় না। এক প্রশ্নের জবাবে তারা বলেন, বিএনপির কিছু সমর্থক আইভীকে পছন্দ করতে পরে এটা স্বাভাবিক, তাই বলে নৌকায় ভোট দিবে এতোটা বোকা তারা না।

মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল বলেন, তৈমূর আলম খন্দকার বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে আছেন চার দশক ধরে। দল তাকে দুটি পদ থেকে সরিয়ে নিয়েছে এটা দলের সিদ্ধান্ত। কিন্তু একজন নাগরিক হিসেবে আমরা তৈমূর আলমের সঙ্গে আছি। তার পক্ষে কাজ করছি।
তিনি আরও বলেন, প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থীর শিবিরে অনেক বেশী আলোচনা হচ্ছে তৈমূর আলমকে নিয়ে। তারা নিজেদের প্রচার-প্রচারণা নিয়ে যতটা না ভাবছে তার চেয়ে বেশি ভাবছে তৈমূর আলমকে নিয়ে। ফলে মাঠের চিত্র আর তাদের ভাবনায় তৈমূর আলম ভোটের লড়াইয়ে অনেকটা এগিয়ে আছেন।

আরও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ

You cannot copy content of this page