আইভী আর রাব্বির ফটোকপি বক্তব্য!

প্রধানমন্ত্রীকে বিষেদাগার কারীরা আইভীর পক্ষে

আবারো জনবিচ্ছিন্ন বামপন্থী ও প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে বিষেদাগারকারীদের সাথে নিয়ে মাঠে নেমেছেন নৌকার প্রার্থী আইভী। ২০১৬ তে নৌকার মনোনয়ন পেয়ে নমিনেশন জমা দিতে গিয়েছিলেন বামপন্থী রফিউর রাব্বিকে নিয়ে। সেই ঘটনায় ‘ হৃদয়ে রক্তক্ষরণ’ হয়েছিল মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনের, যা তিনি নিজেই বলেছিলেন। যে রাব্বি প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে বারবার বিষেদাগার করেন, বর্তমান সরকারকে পাকিস্তান আমলের আইয়ুব-ইয়াহিয়ার সাথে তুলনা করেন, সেই রাব্বির আর আইভীর ফটোকপি বক্তব্য শুনলো নারায়ণগঞ্জবাসী। এখন বুঝতে সমস্যা নেই যে, আইভী আবারো নেমেছেন তার বামপন্থী বন্ধুদের নিয়ে এবং নির্বাচন শেষে তিনি আবারো সরকার বিরোধী বামদের নিয়েই থাকবেন।

জানা গেছে, বন্দরে গিয়ে আইভী বলেছেন, তৈমূর আলম খন্দকার গডফাদার শামীম ওসমান এবং সেলিম ওসমানের প্রার্থী। সে বিএনপিরও প্রার্থী নন, জনতারও প্রার্থীও নন। শামীম ওসমান তাকে প্রার্থী করেছে। উনি বিএনপির প্রার্থী হলে ধানের শীষেই নির্বাচন করতো। উনি গডফাদারের প্রার্থী। তিনি দন্তবিহীন গডফাদার, নতুন করে আবার উত্থান হতে শুরু করেছে। ২০১৬ সালে শামীম ওসমান ধানের শীষের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করেছে, নৌকার বিরুদ্ধে ধানের শীষে সীল মেরেছে। উনি ১৯৯৬ সালে নাজমা রহমানের নৌকা কেড়ে নিয়েছে তার ভাইয়ের পক্ষে লাঙলের হয়ে ব্যালট বাক্স লুট করেছে। উনি কেমন আওয়ামীলীগ করে, কিসের আওয়ামীলীগ করে। উনি সুবিধাবাদী। আইভী বলেন, আবার মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে গডফাদাররা, মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে অপশক্তি, আনাগোনা শুরু হয়েছে সন্ত্রাসীদের। যেভাবে আমরা আগে এসব অপশক্তিকে দমন করেছি সেভাবে আমরা আবারও এই দন্তবিহীন বাঘকে, হাতীকে দমন করতে চাই। সন্ত্রাসীদের দমন করতে চাই। আমার পাশে আসুন ।

আর এদিন সন্ধায় রফিউর রাব্বি বলেছেন, ত্বকীর ঘাতকেরা সরকারের পৃষ্ট পোষকতায় ঘুরে বেড়াচ্ছে। যে ওসমান পরিবার ত্বকীকে হত্যা করেছে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ। তারা এখানে হত্যা খুনের রাজনীতিটা করে, তাদের চাঁদাবাজী, দখল দ্বারিত্ব, মাদক ব্যবসা এসবকে টিকিয়ে রাখার প্রয়োজনে। তারা কোন দল করে না প্রকিৃত পক্ষে, এটা আওয়ামী লীগ বলি, জাতীয় পার্টি বলি অথবা বিএনপি বলি, তাদের কোন নীতি নাই, তাদের কোন আদর্শ নাই। আমরা শামীম ওসমানকে দেখেছি, নৌকার প্রতীককে সে বারে বারে ফেল করিয়েছে। কেন্দ্র দখল করেছে, নাজমা রহমানকে ফেল করিয়েছে, আকরাম সাহেব নৌকা প্রতীকে ইলেকশন করেছে, তাকে ফেল করানোর জন্য যা যা করা দরকার, এই শামীম ওসমান ও তার বাহিনীরা করিয়েছে। তার বাহিনীর একজন যে কিনা আওয়ামী লীগের জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক, নৌকা পুড়িয়েছে। সুতরাং এদের পক্ষে সব সম্ভব। এরা দলবাজী করার জন্য আ্ওয়ামী লীগের শ্লোগান দেয়, জাতীয় পর্টির শ্লোগান দেয়।

নগরবাসী আইভী আর রফিউর রাব্বির এমন ফটোকপি বক্তব্য শুনে মন্তব্য করেছেন, আইভী আর সরকার বিরোধী বামরা এক সূত্রে গাধা ছিল, থাকবে।

আরোও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ