ধর্ষণ করতে গিয়ে পুরুষাঙ্গ হারালেন যুবক

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলা দৌলরদী গ্রামে শাহ আলম নামের এক যুবকের পুরুষাঙ্গ কেটে দিলেন গৃহবধূ ও তার স্বজনরা। ধর্ষণ থেকে বাচঁতে এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে দাবি করেছেন ওই গৃহবধু ও তার স্বজনরা। ২১ জানুয়ারী শুক্রবার রাতে ওই গৃহবধুর ঘরে এ ঘটনা ঘটে। আহত রক্তাক্ত যুবককে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহত যুবক শাহ আলম উপজেলার সনমান্দী ইউনিয়নের দৌলরদী গ্রামের মোস্তফা মিয়ার ছেলে। এঘটনায় গৃহবধূ মেহেরুন বেগম বাদি হয়ে শনিবার সোনারগাঁ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। তবে পুরুষাঙ্গ হারানো যুবক এ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন পূর্ব শত্রুতার জের ধরে কৌশলে ডেকে নিয়ে তাকে এ ঘটনা ঘটিয়েছেন।

লিখিত অভিযোগে গৃহবধূ উল্লেখ করেন, উপজেলার সনমান্দী ইউনিয়নের দৌলরদী গ্রামের মোতালিব মিয়ার স্ত্রী। তার স্বামী ব্যবসার কাজে বাড়ির বাইরে থাকেন। এ সুযোগে তাদের প্রতিবেশী শাহ আলম তাকে দীর্ঘ দিন ধরে কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছে। বিষয়টি নিয়ে শাহআলমকে বারবার সতর্ক করেন ওই নারী।

গত শনিবার রাতে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিয়ে ঘর থেকে বের হলে গৃহবধুর ঘরে প্রবেশ করে। এক পর্যায়ে শাহ আলম গৃহবধূ মেহেরুন বগমের ঘরে তাকে ঝাপটে ধরলে তার  মেয়ে, মেয়ের জামাতা একত্রিত হয়ে তাকে বেধে তার পুরুষাঙ্গ ব্লেড দিয়ে কেটে ফেলেন। আহত শাহ আলমকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আহত শাহ আলম জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে একা পেয়ে কৌশলে মেহেরুন বেগম ও তার লোকজন তাকে বেঁধে তার গোপনাঙ্গ কেটে দেন।সোনারগাঁ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এসএম শফিকুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় অভিযোগ গ্রহন করা হয়েছে। বিষয়টির তদন্ত চলছে।

আরও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ