বৈঠকে তারেকের কাছে নালিশ

কমিটিতে নেই ত্যাগীরা, স্থান পেয়েছে শিল্পপতির লোকেরা

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির ইউনিট কমিটি নিয়ে এবার সরাসরি দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের কাছে নালিশ জানিয়েছেন সিনিয়র নেতারা। বিএনপি থেকে পদত্যাগকারী নেতা শাহ আলমের ইশারাতেই ফতুল্লা থানা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটিতে ত্যাগী ও নির্যাতিত নেতাকর্মীদের বাদ দিয়ে বিতর্কিতদের স্থান করে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে জেলা বিএনপির সদস্য সচিব মামুন মাহমুদের বিরুদ্ধে।

শনিবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) রাতে দলের নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে তারেক রহমানের সাথে নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতৃবৃন্দের এই ভার্চুয়াল সভা অনুষ্ঠিত হয়।জানা যায়, ২০০৮ সালের নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসন থেকে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্ব›দ্বীতা করেছিলেন শাহ আলম। সর্বশেষ ২০১৮ সালের নির্বাচনেও তিনি এই আসন থেকে প্রতিদ্বন্দিতা করতে চেয়েছিলেন। তবে সেসময় দল মনোনয়ন না দেয়ায় নির্বাচনের পর দল থেকে পদত্যাগ করেন এই শিল্পপতি নেতা। দীর্ঘদিন যাবৎ বিএনপির রাজনীতির বাঁইরে থাকলেও ফতুল্লা বিএনপিতে রয়েছে তার পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ। জেলা বিএনপির সদস্য সচিব মামুন মাহমুদকে ম্যানেজ করার মাধ্যমেই শাহ আলম ফতুল্লা থানা বিএনপিতে তার প্রভাব বজায় রেখেছেন। এর আগে ফতুল্লা থানা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন দলটির সিনিয়র নেতৃবৃন্দ।

এসময় তারা মামুন মাহমুদকে শামীম ওসমানের লোক বলে আখ্যায়িত করেন। তারা আরও বলেন, মামুন মাহমুদ টাকার বিনিময়ে কমিটিতে বিতর্কিতদের স্থান দিয়েছে। যারা দীর্ঘদিন যাবৎ বিএনপির রাজনীতি করে আসছিলেন তাদের কমিটিতে স্থান দেয়া হয়নি। কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে দলের কোন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মতামত নেয়া হয়নি। এদিকে শুক্রবার আহ্বায়ক কমিটি প্রসঙ্গে ফতুল্লা থানা বিএনপির সদস্য সচিব শহিদুল ইসলাম টিটু বলেছেন, অনেক যোগ্যরা বাদ পড়েছে। কেন্দ্রীয় নেতাদের তদবিরের কারণে অনেককে পদ দিতে হয়। তদবিরের কারণে কমিটিগুলোতে অযোগ্যরা স্থান পায়। আগামী দিনেও যে আমরা সুষ্ঠু কমিটি করতে পারবো তদবিরের বাইরে গিয়ে সেই নিশ্চয়তা দিতে পারছিনা।

জানা যায়, শনিবার দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের সাথে ভার্চ্যুয়াল বৈঠকে ফতুল্লা থানা বিএনপির সদস্য সচিব শহিদুল ইসলাম টিটু তার বক্তব্যে বলেন, ফতুল্লা থানা বিএনপির কমিটিতে সকলেই একজন শিল্পপতির দেয়া তালিকায় পদে এসেছেন। এখানে যোগ্য অনেকেই বাদ পড়েছেন। তিনি একা আলাদা নিজের মত করে এসেছেন। এভাবে কিভাবে তিনি থানা বিএনপির প্রতিটি ইউনিট কমিটি স্বচ্ছতার সাথে করতে পারবেন তা নিয়ে দেখা দিয়েছেন প্রশ্ন। পরে জেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত আহবায়ক রবিকে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ফতুল্লা থানা বিএনপির নিজের তদারকিরে রেখে করার নির্দেশ দেন।এসময় রবি বলেন, ফতুল্লা থানা বিএনপির আহবায়ক জাহিদ হাসান রোজেল ও সদস্য সচিব টিটু দুজনেই তার হাতে গড়া। এ থানায় ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড কমিটিগুলো তিনি প্রয়োজনে নিজে সশরীরে উপস্থিত থেকে করে দেবেন। যদি কোন সমস্যা দেখেন তাহলে কমিটিতে হস্তক্ষেপ করবেন এবং ব্যবস্থা নেবেন।

আরও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ