বন্দরে মাদকের বিরূদ্ধে প্রতিবাদ করায়,মাদক ব্যবসায়ীর হামলায় ২ ছাত্রলীগ নেতা আহত

- Advertisement -

গতকাল রাতে বন্দরের দক্ষিণ লক্ষণখোলা এলাকায় মাদক কেনাবেচার সময় প্রতিবাদ করায় মাদক ব্যবসায়ীদের অতর্কিত হামলায় ২জন ছাত্রলীগ কর্মীর গুরুতর আহত হওয়ার ঘটনা ঘটে। জানা যায়, গতকাল রাতে তারাবি নামাজ শেষে দক্ষিণ লক্ষণখোলা এলাকার শাক-সবজি ও ডিম বিক্রেতা মোঃ আল আমিনের দোকান ও বাড়ির সামনে স্থানীয় কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী ও বহু মামলার আসামী জসিম ওরফে জসু এবং তার ভাই লিটন সহ স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ী কালাম, শিউল ওরফে ডেভিড, ও মোহনের নেতৃত্বে মাদকের একটি বড় সিন্ডিকেট প্রকাশ্যে মাদক কেনাবেচা করার সময় আল আমিন উক্ত মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করলে মাদক ব্যবসায়ীদের সেই সংঘবদ্ধ চক্র তাকে হামলার উদ্দেশ্যে ঘিরে ধরে। এমন সময় তারাবি নামাজ আদায় করে বাড়ি ফেরার সময় ছাত্রলীগ কর্মী আলামিন খান সুজন, শাকিল সহ কয়েকজন ঘটনাস্থলের সামনে পরলে তারা শাক-সবজি ও ডিম ব্যবসায়ী মোঃ আল আমিনকে বাঁচাতে এগিয়ে আসে এবং মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করে।

এসময় মাদক ব্যবসায়ীরা সংখ্যায় বেশি থাকায় ধারালো রামদা, লোহার রড সহ দেশীয় অস্ত্র দিয়ে ছাত্রলীগ কর্মীদের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এতে ছাত্রলীগ কর্মী আলামিন খান সুজন ও শাকিল গুরুতরভাবে আহত হয়। পরে তাৎক্ষণিক খবর পেয়ে নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক অনাবিল দাশ নির্ঝর ঘটনাস্থলে দ্রুত ছুটে আসছে এমন খবর পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা সুযোগ বুঝে সকলে পালিয়ে যায়। পরে আহত ছাত্রলীগ কর্মীদের বন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে শাক-সবজি ব্যবসায়ী আল আমিন বাদী হয়ে বন্দর থানায় এই বিষয়ে অভিযোগ দায়ের করে।

গণমাধ্যমের কাছে এই বিষয়ে এলাকাবাসী বলেন, দীর্ঘদিন ধরে আমাদের এলাকায় এই মাদক ব্যবসায়ীদের জ্বালায় আমরা অতিষ্ঠ। এরা কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তিদের গোপন শেল্টারে দিনে রাতে প্রকাশ্যে মাদক কেনাবেচা করে তরুণ সমাজকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে। তাই নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক অনাবিল দাশ নির্ঝর ও তার ছাত্রলীগের সহকর্মীরা দীর্ঘদিন ধরেই এলাকায় মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করে আসছে। যার জন্য মাদক ব্যবসায়ীরা ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের উপর আগে থেকেই ক্ষেপে ছিলো।

তাই গতকাল রাতে মাদক কেনাবেচার সময় বাধা দিয়ে প্রতিবাদ করার সময়ে মাদক ব্যবসায়ীরা সংখ্যায় বেশি হওয়ায় সুযোগ বুঝে ছাত্রলীগ কর্মীদের উপর এই অতর্কিত হামলা চালায়। আমরা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই। কারণ ছাত্রলীগ নেতা নির্ঝর সহ তার ছাত্রলীগের সহকর্মীদের এলাকায় ব্যাপক সুনাম রয়েছে। তারা সাংসদ শামীম ওসমান সাহেবের পুত্র জনাব অয়ন ওসমানের পক্ষ থেকে সবসময় এলাকায় অনেক ভালো কাজ করে। তাই তাদের সাথে এমন জঘন্য ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই এবং প্রশাসনের কাছে এই অসভ্য মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য জোর দাবি জানাই।

আরও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ

You cannot copy content of this page