হাইকমান্ডের নির্দেশে সম্মেলনে আসছে না’গঞ্জ আ.লীগ

সারাদেশে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক কার্যক্রমকে গতিশীল করার লক্ষ্যে তৃণমূলের মেয়াদ উত্তীর্ণ সকল সাংগঠনিক শাখার কাউন্সিল সম্পন্ন করার নির্দেশনা প্রদান করেছেন দলটির সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই সাথে যে সকল শাখার কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। কিন্তু পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠিত হয়নি সেখানে দলীয় গঠনতন্ত্র অনুযায়ী অবিলম্বে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের নির্দেশনা প্রদান করেছেন। গত ৬ এপ্রিল আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী এক মাসের মধ্যে কাউন্সিল সম্পন্ন হওয়া শাখাসমূহের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের নির্দেশনা প্রদান করেছেন। বিভাগীয় দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদকদের এই নির্দেশ নেওয়া হয়েছে। সেই চিঠি জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বরাবর দেওয়া হচ্ছে। চিঠির অনুলিপি থানা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছেও যাবে। এখন অপেক্ষা শুধু নারায়ণগঞ্জে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলনের।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই বলেন, এখনো আমরা কোন অনুলিপি পাইনি, পেলে পরবর্তী কার্যক্রম শুরু করবো। এর আগে তো অওয়ামী লীগের অঙ্গসংগঠনের কমিটি গুলোর তৈরি করতে হবে। আর অনুলিপি পাওয়ার পর বলতে পারবো যে কবে কি হবে। এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন বলেন, সম্মেলনের বিষয়ে এখনো কোন অনুলিপি পাইনি, তবে পত্রিকায় দেখেছি। আমাদের প্রস্তুতি ভালো চলছে। অনুলিপি হাতে পেলে যত তারাতারি সম্ভব আমরা সম্মেলন করবো।

এর আগে, ২০১৬ সালের অক্টোবরে আব্দুল হাইকে সভাপতি, ভিপি বাদলকে সাধারণ সম্পাদক ও এনসিসি মেয়র আইভী কে সিনিয়র সহ সভাপতি করে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন করা হয়। এর পরের বছর ২০১৭ সালে ৭৪ সদস্যের জেলা কমিটি অনুমোদন দেয়া হয়।এ দিকে ২০১৩ সালে আনোয়ার হোসেনকে সভাপতি ও খোকন সাহাকে সাধারণ সম্পাদক করে মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন করা হয়। এর দুই বছর পর ২০১৫ সালে ৭১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়।

আরও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ