সোনারগাঁয়ে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযুক্ত গ্রেপ্তার হয়নি

- Advertisement -

সোনারগাঁয়ে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযুক্ত লম্পট ইয়াসিন (৩৮) কে ১৭ দিনেও গ্রেপ্তার করেনি পুলিশ। উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের পেঁচাইন এলাকায় লম্পট ইয়াসিন দুই সন্তানের জননীকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ ঘটনায় সোনারগাঁও থানায় ভুক্তভোগীর মা রিনা বেগম বাদি হয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগসূত্রে জানা যায়, সোনারগাঁও উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের পেঁচাইন এলাকার কামিজ উদ্দিনের ছেলে লম্পট ইয়াসিনের বাড়ির পাশেই ধর্ষণের শিকার ওই নারীর স্বামীর বাড়ি। স্বামীর সাথে ওই নারীর বনিবনা না হওয়ায় তার স্বামী গোপনে লম্পট ইয়াসিনের স্ত্রীর কাছে সম্পত্তি বিক্রয় করে দুই কন্যা সন্তানসহ ওই নারীকে রেখে চলে যায়। এই সুযোগে লম্পট ইয়াসিন বিভিন্ন সময় বাসায় প্রবেশ করে নানা কু-প্রস্তাব দিয়ে ওই অসহায় নারীকে উত্যক্ত করতো। ওই অসহায় নারী তার মা রিনা বেগমের কাছে উক্ত বিষয়টি জানালে রিনা বেগম লম্পট ইয়াসিনকে বাঁধা-নিষেধ করলে লম্পট ইয়াসিন ক্ষিপ্ত হয়ে ওই নারীর অপূরণীয় ক্ষতি করবে বলে হুমকি দেয়।

এর জের ধরে ৬ এপ্রিল রাত সাড়ে ৯টার দিকে ঘরে প্রবেশ করে ওই নারীকে একা পেয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করে। ওই নারীর ডাক-চিৎকারে তার দাদি শ্বাশুড়ি সোবিয়া বেগম এগিয়ে আসলে লম্পট ইয়াসিন ওই নারীকে বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি দেখিয়ে দ্রুত চলে যায়। আশপাশের লোকজনের সহযোগিতায় ওই নারী উদ্ধার হয়ে সোনারগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা গ্রহণ করেন। পরে ওই অসহায় নারীর মা রিনা বেগম সোনারগাঁও থানায় ধর্ষণের চেষ্টার একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

ভুক্তভোগী ওই অসহায় নারী জানান, ধষণের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়ার পরও তালতলা পুলিশ ফাঁড়ির এসআই মোশারফ কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছেন না। উল্টো ইয়াসিনের সাথে মিলে যাওয়ার জন্য বার বার প্রস্তাব দিচ্ছেন।

আরও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ

You cannot copy content of this page