মহাসড়কে দাবড়িয়ে বেড়াচ্ছে নিষিদ্ধ যানবাহন

- Advertisement -

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সিদ্বিরগঞ্জের সাইনবোর্ড থেকে মেঘনা টোলপ্লাজা পর্যন্ত মহাসড়কে নিয়ন্ত্রণ নেই বলে অভিযোগ উঠেছে কাঁচপুর হাইওয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে। এ রুটে অবাধে দাবড়িয়ে বেড়াচ্ছে সিএনজি, ব্যাটারি চালিত ইজিবাইক ও রোডপারমিট বিহীন বিভিন্ন যানবাহন৷ দিন দিন এই নিষিদ্ধ যানবাহনের সংখ্যা বেড়েই চলছে মহাসড়কে। ঘটছে অহরহ দুর্ঘটনা।

অভিযোগ রয়েছে, ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জের সহস্রাধিক সিএনজি হাইওয়ে পুলিশের কতিপয় সদস্যকে মাসোয়ারা দিয়ে দিব্যি দাবড়িয়ে বেড়াচ্ছে মহাসড়কে। এছাড়া মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে সড়কের উপর বাস, মিনিবাস, পায়রা পরিবহন, সুগন্ধা, অভিনন্দন, মনজিল, কোমল, নীলাচল, নাভানা, শিমরাইল পরিবহন, বন্ধু, দূরন্ত, নাফ, সিএনজিসহ বিভিন্ন পরিবহনের ষ্ট্যান্ড, মহাসড়কের দুপাশে গাড়ির ষ্ট্যান্ড, মহাসড়কজুড়ে বিভিন দোকানপাট, হাটবাজার ও দূরপাল্লাগামী বাসের কাউন্টারের গাড়ির ষ্ট্যান্ড, হাইওয়ে পুলিশের লোকবল সংকটসহ নানা কারণে এবার পূর্বাঞ্চলীয় ১৮ জেলার মানুষ ঈদে  বাড়ি ফিরতে যানজটের পড়ে ভোগান্তিতে পড়ার আশংকা করছেন যাত্রী সাধারন৷

থ্রী হুইল যানবাহন, রোড পারমিটবিহীন যানবাহন, সিএনজি, ইজিবাইক, বৈধকাগজপত্রবিহীন যানবাহন মহাসড়কে হাইওয়ে পুলিশ চলাচল বন্ধ করতে না পারার কারণে এবং মহাসড়কের প্রতিটি পয়েন্টে সড়কজুড়ে দোকানপাট উচ্ছেদ না করার কারণে এবারের ঈদঘরমুখো মানুষ বিড়ম্বনার শিকার হওয়ার  আশংকা বেশী করছেন বলে পূর্বাঞ্চলীয় জেলা সমূহে যাদের বাড়িঘর তাদের সাথে একান্ত আলাপকাল তারা এসব কথা জানিয়েছেন।

ঈদ-উল ফিতর উপলক্ষে এবছর ঘরমুখী মানুষের চাপ বৃদ্ধি পাবে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে। ফলে এ সড়কে যানজটের আশংকা থেকেই যাচ্ছে। এ সড়কের বিভিন্ন স্থানে যদিও পুলিশী তৎপরতা থাকবে তবুও যানজটের আশংকা করছেন পরিবহন শ্রমিকরা। দেশে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ায় এবারের ঈদে ঘরমুখী মানুষের সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে। ঈদে বড় ছুটি এবং জনজীবন স্বাভাবিক হওয়ার কারণে প্রিয়জনদের সঙ্গে আনন্দ ভাগাভাগি করতে মানুষ ছুটে যাবে গ্রামে। গত দু’বছর করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বাইরে থাকার পরও কঠোর বিধি নিষেধের মধ্যে কোটির ওপর মানুষ ঢাকা ছেড়েছেন। এবছর এর সংখ্যা কয়েকগুন বাড়তে পারে।  ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের শিমরাইল থেকে মেঘনা ঘাট পর্যন্ত সড়কে কোন প্রকার সংস্কার বা উন্নয়ন কাজ নেই। তবে সিগন্যাল রয়েছে। সরেজমিনে সিদ্ধিরগঞ্জের সাইনবোর্ড, সানারপাড়, শিমরাইলমোড় , কাঁচপুর ও  মেঘনা টোল প্লাজা পর্যন্ত দেখা যায়, এ সড়কের প্রায় ১৬ কিলোমিটার পর্যন্ত কোন সড়ক ও জনপথ বিভাগের কোন সংস্কার বা উন্নয়ন কাজ নেই। এ ১৬ কিলোমিটার সড়কে কোন ভাঙ্গাচোরা নেই। তবে এ সড়কে ছোট বড় মিলিয়ে ১২ টি সিগন্যাল রয়েছে। এর মধ্যে সাইনবোর্ড, শিমরাইল কাটা, মদনপুর চৌরাস্তাা, মোগরাপাড়া চৌরাস্তাা ও মেঘনা টোল প্লাজায় বড় ৫ টি সিগন্যাল রয়েছে। এসব সিগন্যালে পড়ে দীর্ঘক্ষণ এখনই মানুষ গাড়িতে বসে থাকতে হয়। এছাড়াও মেঘনা ও গোমতী সেতুতে টোল আদায়ে বিলম্বই যানজটের বড় কারণ হতে পারে। ঈদে ঘরমুখো মানুষের গাড়ির চাপ বৃদ্ধি পেলে দৃশ্যপট আরো পরিবর্তন হতে পারে বলে জানিয়েছেন পরিবহন শ্রমিক ও যাত্রীরা।

 লক্ষীপুর ও নোয়াখালীর বাসিন্দা আবুল হোসেন, ও জয়নাল আবেদীন বলেন, শিমরাইল মোড়ে, কাঁচপুর, মদনপুর চৌরাস্তা ও মোগরাপাড়া চৌরাস্তায় লোকাল বাসের স্ট্যান্ড রয়েছে। এখানে জট সৃষ্টি করে যাত্রী উঠা নামা করার করানে যানজট লেগে থাকে। এ গুলো নিয়ন্ত্রনের বাইরে।

এসআলম পরিবহনের চালক মো. আবুল হোসেন বলেন, যদিও রাস্তা বড় করা হইছে কিন্তু  মহাসড়কে তিন চাকার বাহন সিএনজি, অটোরিক্সাসহ ছোট ছোট বাহন ও রোডপারমিট বিহীন যানবাহন নিয়ন্ত্রণের বাইরে গিয়ে এগুলো মহাসড়কে দাবড়িয়ে বেড়াচ্ছে।

 শিমরাইল হাইওয়ে পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এ,কে, এম শরফুদ্দিন বলেন, আশাকরি ঈদঘরমুখো যাত্রীরা যানজটের শিকার হবেনা আমরা মহাসড়কে সতর্ক অবস্থানে রয়েছি।

কাঁচপুর হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ নবীর হোসেন বলেন, মহাসড়কের কাঁচপুর থেকে মেঘনা টোল প্লাজা পর্যন্ত যানজটের তেমন আশংকা নেই। যানজট নিরসনে মহাসড়কের সিগন্যাল ও লোকাল বাস স্ট্যান্ড, তিন চাকার গাড়ি নিয়ন্ত্রণ ও চলাচলে অনুপযোগী গাড়ি চলাচলে বিধি নিষেধ ও বিকল হওয়া গাড়ি দ্রুত সরিয়ে নেওয়া, অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন ও গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে নজরদারিসহ বেশ কয়েকটি পরিকল্পনা হাতে নেওয়া হয়েছে।ৎ ঈদুল ফিতরের পরে মহাসড়কে সিএনজি ও ইজিবাইকের বিরুদ্ধে জোরালো অভিযান চালানো হবে বলে ওসি জানিয়েছেন।

মহাসড়কে রোডপারমিট বিহীন বিভিন্ন্ যানবাহন ও সিএনজি, ব্যাটারী চালিত থ্রীহুইলার অবাধে চলাচলের বিষয়ে পুলিশ গাজীপুর রিজিয়নের পুলিশ সুপার আলী আহম্মদ বলেন, মামলা হচ্ছে প্রতিদিনই, ঈদে মহাসড়কে কোন যানজট সৃষ্টি না হয় সে ব্যাপার হাইওয়ে পুলিশ কাজ করছে এবং ঈদেও প্রোগ্রাম কাঁচপুর হাইওয়ে থানা ও ক্যাম্প সমূহে দেওয়া হয়েছে।

আরোও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ

You cannot copy content of this page