ঢাকাসোমবার , ৩০ মে ২০২২
  1. আন্তর্জাতিক
  2. এক্সক্লুসিভ
  3. খেলা
  4. জাতীয়
  5. তথ্যপ্রযুক্তি
  6. নগর-মহানগর
  7. নাসিক-২০২১
  8. বিনোদন
  9. রাজনীতি
  10. লাইফ-স্টাইল
  11. লিড
  12. লিড-২
  13. লোকালয়
  14. শিক্ষা
  15. শিক্ষাঙ্গন
আজকের সর্বশেষ সবখবর

তৈমুর এখনও কর্মীদের ‘কান্ডারী’

আবু বকর সিদ্দিক
মে ৩০, ২০২২ ৫:৩৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

দলের দু:সময়ে রাজপথে থেকে বহু মামলা-হামলার শিকার হয়েছেন তিনি। দলের দুর্দিনে নেতাকর্মীদের আগলে রেখেছেন সব সময়। ১/১১ পরবর্তী সময়ে জেল খেটেছেন, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন এর প্রথম নির্বাচনে দলের প্রার্থী হয়েও ‘বলি’র শিকার হয়েছেন। এমনকি গত সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপির নেতা-কর্মীদের অনুরোধে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী হয়ে বহিস্কারও হয়েছেন। তারপরেও তিনি দলের প্রতি কোনদিন কটুকথা বলেননি। দলীয় কর্মসুচীতে না থাকলেও বিএনপির পক্ষে কথা বলছেন নিরন্তন। সর্বশেষ দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ৪১তম শাহাদত বার্ষিকিতে জেলার বিভিন্ন থানা এলাকায় প্রায় ৫৫টি স্পটে খাবার বিতরণ কর্মসুচী করে আবারো দলের প্রতি নিজের আনুগত্য প্রকাশ করেছেন বিএনপির চেয়ারপারসনের সাবেক উপদেষ্টা ও জেলা বিএনপির বহিস্কৃত নেতা এডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার। সোমবার এসব কর্মসুচীতে তৃনমূল নেতাকর্মীরা তৈমুর আলম খন্দকারকে কাছে পেয়ে আবেগ্লাপুত হয়ে পরেন। অনেকে এসময় কান্নায় ভেঙ্গে পরেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, এড.তৈমুর আলম খন্দকারের উদ্যোগে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৪১ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষ্যে অর্ধশতাধিক স্পটে দোয়া ও রান্না করা খাবার বিতরণ করা হয়েছে।

সোমবার (৩০ মে) সকালে শহরের মাসদাইর মোড় এলাকা থেকে এ কর্মসূচী শুরু হয়। পরে ফতুল্লার ইসদাইর, বিসিক, শহরের গলাচিপা, বন্দর উপজেলার বিভিন্ন এলাকাসহ সিদ্ধিরগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে এসব দোয়া ও রান্না করা খাবার বিতরণ করা হয়। তৈমূর আলম খন্দকার নিজে প্রতিটি স্পটে গিয়ে দোয়ায় অংশ নেন ও রান্না করা খাবার বিতরণ করেন। এসময় নেতাকর্মীরা আবেগাপ্লুত হয়ে বলেন, তৈমুর আলম খন্দকার সব সময় কর্মীদের আগলে রেখেছেন। তিনি বহিস্কার হওয়ার পরেই শনির দশা লেগেছে জেলা বিএনপিতে। খোদ জেলা বিএনপির সদস্য সচিবকে হত্যার চেষ্টা হয়েছে। নেতায় নেতায় বিরোধ চরমে পৌছেছে। অথচ বহিস্কার হওয়ার পরেও নিজেকে দলের সাথে জড়িয়ে রেখে দলের প্রতি আনুগত্যের প্রমাণ রেখেছেন তৈমুর। তিনি জেলা বিএনপির কান্ডারী ছিলেন, এখনও আছেন।

এদিকে এডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার বলেন, আমরা তো মানুষের দল মানুষের জন্য কাজ করি। স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের আদর্শে বিশ্বাসী ছিলাম ,থাকবো। তার লড়াই ছিল দেশ ও দেশের মানুষের জন্য। তার আদর্শকে বুকে ধারণ করে আজ আমরা দেশের এই দুঃশাসন মুক্ত করার স্বপ্ন দেখছি। এই জিয়াউর রহমান মানেই বাংলাদেশ।বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের নেতৃত্বে অবিচল আস্থা ছিল এবং আমৃত্যূ থাকবে। আমি দল থেকে বহিস্কৃত কিন্তু কর্মীদের মন থেকে হইনি, বিএনপির আদর্শ থেকে কেউ আমাকে বহিস্কার করার ক্ষমতা রাখে না।

আরও পড়ুন

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।