ঢাকাশুক্রবার , ৩ জুন ২০২২
  1. আন্তর্জাতিক
  2. এক্সক্লুসিভ
  3. খেলা
  4. জাতীয়
  5. তথ্যপ্রযুক্তি
  6. নগর-মহানগর
  7. নাসিক-২০২১
  8. বিনোদন
  9. রাজনীতি
  10. লাইফ-স্টাইল
  11. লিড
  12. লিড-২
  13. লোকালয়
  14. শিক্ষা
  15. শিক্ষাঙ্গন
আজকের সর্বশেষ সবখবর

দ্বিধাবিভক্ত কোনো দল শক্তিশালী হতে পারে না : মুগি উদ্দিন

আবু বকর সিদ্দিক
জুন ৩, ২০২২ ৭:১৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ভেদাভেদ ভুলে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে সাবেক সংসদ সদস্য মুহাম্মদ গিয়াসউদ্দিন বলেছেন, ‘অনেকেই বলে, আমি অমুক ভাই, তমুক ভাইয়ের লোক। আমি বলি কোনো ভাইয়ের লোক নয়; হতে হবে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের আদর্শের সৈনিক এবং দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের কর্মী।’

শুক্রবার (৩ জুন) সকালে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ৮নং ওয়ার্ড বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের উদ্যোগে পাঠানটুলী আইলপাড়া ও গোদনাইল তাঁতখানা এলাকায় শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৪১ তম শাহাদাৎবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা, দোয়া ও খাবার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বক্ত্যবে তিনি এসব কথা বলেন।গিয়াসউদ্দিন বলেন,

‘আমাদের মধ্যে মান অভিমাণ, মতানৈক্য থাকতে পারে। কিন্তু দিন শেষে আমরা সবাই কিন্তু বিএনপির কর্মী। আমাদের ভুলে গেলে চলবে না, একতাই বল, একতাই শক্তি। সুতরাং সামনে আমাদের প্রিয় নেতা তারেক রহমান যে আন্দোলনের ডাক দিবেন, তা সফল করতে হলে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। দ্বিধাবিভক্ত কোনো সংগঠন শক্তিশালী হতে পারে না। তাই দলের এই দুঃসমেয় আমরা বিভক্তি চাই না, দল ও দেশের স্বার্থে ঐক্য চাই।’সাবেক এই সংসদ সদস্য বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জের এমন কোনো পাড়া মহল্লা নেই যেখানে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকী পালন হয়নি। ব্যাপকভাবে হচ্ছে। আমাদের নেতাকর্মীরা স্বতঃস্ফুর্তভাবে ঘর ছেড়ে নেমে এসেছে। এসব দেখে আওয়ামী লীগ নেতাদের গায়ে জ্বালা ধরে যাচ্ছে। তারা এখন চাইবে আমাদের মধ্যে বিভেদ তৈরি করতে। এ ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে।

’তিনি বলেন, ‘বিগত ২০০১ সালের নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জের পাঁচটি আসনেই বিএনপি জয়ী হয়েছিল। আসছে নির্বাচনে যদি জনগণের ভোটের অধিকার নিশ্চিত করতে পারি, তাহলে আবারও আমরা পাঁচটি আসনে জয়ী হবো। সে জন্য দরকার ঐক্য। ঐক্যের বিকল্প নেই।’গিয়াসউদ্দিন বলেন, ‘আমাদের দলে যোগ্যতা সম্পূর্ণ নেতা অনেক আছে। প্রতিটি আসনেই একাধিক যোগ্য ব্যক্তি রয়েছেন। দলও জানে। দল যাকে সর্বোচ্চ যোগ্য মনে করবে, তাকেই মনোনয়ন দিবে। সেভাবেই দল কাজ করছে। আল্লাহর হুকুমে দল যাকে মনোনয়ন দিবে, তিনিই হবেন আমাদের প্রার্থী। তার পক্ষে ঐক্যবদ্ধভাবে আমরা মাঠে নামবো। এখন কথা হচ্ছে, আল্লাহ কার ভাগ্যে দলীয় মনোনয়ন লিখে রেখেছেন, সেটি তিনিই জানেন। তাই এই মনোনয়ন প্রত্যাশী হয়ে দলের মধ্যে বিভেদ, বিভাজন সৃষ্টি করা আমাদের জন্য ভালো হবে না। এতে দলের ক্ষতি হবে। আমরা চাই না দল ক্ষতিগ্রস্থ হোক।’তিনি আরও বলেন, ‘যেভাবে আমাদের নেতাকর্মী মাঠে নামছে তা দেখে আওয়ামী লীগ ভীত। তারা কৌশলের আশ্রয় নিয়ে আমাদের দুই একজনকে দিয়ে দলের বিভেদ সৃষ্টির চেষ্টা করবে। এজন্য তারা নানা ধরণের টোপ ফেলবে, ফাঁদ তৈরি করবে। কেউ হয়তো ফাঁদে পা দিবে। তাদের ভাষায় কথা বলবে। দলের বৃহত্তর স্বার্থে সরকারি দলের পাতা ফাঁদে পড়া যাবে না। সর্বোচ্চ সতর্ক থেকে, নিজেদের মধ্যে ঐক্য তৈরির চেষ্টা করতে হবে। ভুলে গেলে চলবে না, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান বলেছিলেন, ব্যক্তির চেয়ে দল বড়, দলের চেয়ে দেশ বড়। তার এই আদর্শ আমাদের মধ্যে লালন করতে হবে। তাহলেই আমরা ঐক্যবদ্ধ হতে পারবো।

’গিয়াসউদ্দিন বলেন, ‘২০০১ সালের নির্বাচনে মানুষ ভোটাধিকারের মাধ্যমে বিএনপির প্রার্থীদের নির্বাচিত করেছিল। কিন্তু আমরা কী দেখলাম, ২০১৪ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ একতরফা নির্বাচন করলো। তখন তাদের বলা হতো খয়রাতি এমপি। এরপরের নির্বাচনে তারা দিনের ভোট আগের রাতেই শেষ করে প্রতারণা করেছে মানুষের সাথে। মানুষের মৌলিক অধিকারের একটি ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েছে। তারা প্রতারক। তারা গণতন্ত্র হত্যাকারি। এই দেশের মানুষ তাদেরকে ভোট চোর হিসেবেই জানে। এই ভোট চোরদের রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় মানুষ আর দেখতে চায় না।

’তিনি বলেন, ‘ভোট ডাকাতি, প্রতারণা করে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত আওয়ামী লীগ বিগত ১৪ বছরে ব্যাপক দুর্নীতি করেছে। তারা নিজেদের ভাগ্যের উন্নয়ন ঘটিয়েছে। হাজার হাজার কোটি টাকা পাচার করেছে। সিন্ডেকেট করে দ্রব্যমূল্য বাড়িয়েছে। গ্যাস, বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দাম বাড়িয়ে লুটপাটের রাজত্ব কায়েম করছে। সাধরণ মানুষের কাছে তারা এখন লুটেরা সরকার। বাংলার মানুষ তাদেরকে আর চায় না। এটা তারাও জানে। জানে বলে আবারও ভোট ডাকাতের দল আরও একটি প্রহসনের নির্বাচন করার পাঁয়তারা করছে। আমাদের নেতা তারেক রহমান স্পষ্ট করে বলে দিয়েছেন, এই সরকারের অধিনে আর কোনো নির্বাচন হতে দেওয়া যাবে না। আমরা মানুষের ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে চাই। আমাদের প্রস্তুত থাকতে হবে।

’এসব অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর জাসাসের সদস্য সচিব জাহাঙ্গীর হোসেন স্বাধীন, নারায়ণগঞ্জ কৃষকদলের সহ-সভাপতি নুরুল ইসলাম নুরা, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হালিম জুলেয়, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মাজেদুল ইসলাম, সাবেক সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ডিএইচ বাবুল, নারায়ণগঞ্জ মহানগর শ্রমিকদলের আহ্বায়ক এসএম আসলাম, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা শ্রমিকদলের সভাপতি আকবর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মোশারফ হোসেন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর জাসাসের সহ-সভাপতি শেখ আউয়াল, যুগ্ম-সম্পাদক আব্দুল হাই, মোহাম্মদ রফিক, সদস্য আক্তার হোসেন, মহানগর শ্রমিকদলের যুগ্ম-আহ্বায়ক সামছুদ্দিন, জেলা কৃষকদলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল হোসেন, ৮নং ওর্য়াড শ্রমিকদলের সাধারণ সম্পাদক সেলিম মাহমুদ, নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রদলের সহ-সভাপতি আশিকুর রহমান অনি, জেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি নাদিম পারভেজ অন্তুু, ৮নং ওর্য়াড জাসাসের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম, ৮নং ওর্য়াড শ্রমিকদলের অর্থ-সম্পাদক শাহিন প্রধান, জাকির হোসেন, দুলাল হোসেন, ইউছুফ মিয়া, আমিজউদ্দিন, সুমন, আক্তার হোসেন, শেখ মোহাম্মদ অপু ও মহানগর ছাত্রদলের যুগ্ম-সম্পাদক রাব্বি প্রধান, যুবদল নেতা হাবিবুর রহমান হাবিব, জাহাঙ্গীর হোসেন, শাহ-আলম, আব্দুল আজিজ শিপন, মোহাম্মদ রাশেদ, মিয়াচাঁন, তোফাজ্জাল হোসেন, সজল, আরিফ, শিপন, আলমগীর হোসেন ও পাভেল প্রমুখ।

আরও পড়ুন

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।