ফতুল্লায় চলন্ত সিএনজিতে শ্লীলতাহানি

ফতুল্লায় চলন্ত সিএনজিতে গৃহবধূকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে ঢাকা- নারায়নগঞ্জ পুরাতন মহাসড়কে। এ ঘটনায় শ্লীতাহানির শিকার ওই গৃহবধূ বাদী হয়ে মঙ্গলবার (৭ জুন) ফতুল্লা মডেল থানায় দায়ের করেছে।

মামলায় উল্লেখ্য করা হয় যে, ২০০৯ সালে পারিবারিক সম্মতিক্রমে ঝালকাঠি জেলার নলছিটি থানার সূর্যপাশা থানার আব্দুর রশিদ খানের পুত্র আরিফ হোসেন খানে (৩৪)’র সাথে বিয়ে হয়। তাদের দাম্পত্য জীবনে অহনা আক্তার সেতু (১২), ও নাতাশা খান (৩) নামক দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে। বাদী তাদের গ্রামের বাড়ীতে বসবাস করতো এবং স্বামী ঢাকার যাত্রাবাড়ী থানায় মাতুয়াইল এলাকায় বসবাস করে গাড়ী চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে আসছিলো। মাঝে মাঝে স্বামী গ্রামের বাড়ীতে পরিবারের সদস্যদের নিকট গিয়ে কয়েক দিন অতিবাহিত করে চলে আসতো। গত দুই বছর পূর্বে বাদীর স্বামী ফতুল্লা মডেল থানার উত্তর চাষাড়ার সেকান্দার মোল্লার মেয়ে মনি আক্তার(২৪)কে বিয়ে করে সংসার করে আসছে। বিষয়টি নিয়ে বাদীর সাথে তার স্বামীর মন মালিন্যের পাশাপাশি রাগ-অভিমান চলে আসছে। এমতাবস্থায় বাদী তার সতীন মনি আক্তারের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে স্বামীকে তালাক প্রদান করার পরামর্শ এবং অনুরোধ করেন।

২৭মে সকাল ৯টার দিকে অভিযুক্ত মনি আক্তার বাদীকে মোবাইল ফোনে জানায় যে, বিয়ের কাবিন নামার টাকা প্রদান করলে সে বাদীর স্বামীকে তালাক দিবে। একই দিন বেলা ১১টার দিকে বাদী তার ছোট মেয়েকে সাথে করে গ্রামের বাড়ী থেকে রওনা দিয়ে অভিযুক্ত মনি আক্তারের কথা মতো সন্ধ্যা ৭টার দিকে সাইনবোর্ড এলাকায় এসে পৌছায়। তখন মনি আক্তার সেখান থেকে চাষাড়া যাওয়ার জন্য একটি সিএনজি ভাড়া করে। সিএনজিতে চড়তে গেলে অভিযুক্ত মনি আক্তারের সাথে আসা পাগলার মজনু আহম্মেদের পুত্র মিশাইল আহম্মেদ (৩০) সেই ভাড়া করা সিএনজিতে উঠে।

চাষাড়া আসার পথে সতীন মনি আক্তারের সহযোগিতায় সিএনজির ভিতরে থাকা মিশাইল আহম্মেদ বাদীর শরীরের স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেয় এবং সিএনজি নিয়ে বিভিন্ন যায়গায় ঘুরাইতে থাকে। এক পর্যায়ে বাদী কু-প্রস্তাব দেয়। সিএনজি মহাসড়ক থেকে ঢাকা- নারায়নগঞ্জ পুরাতন সড়কের পাগলা-আলীগঞ্জ এলাকায় গেলে বাদী কৌশলে সিএনজি থেকে ডাক-চিৎকার করলে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে অভিযুক্ত মিশাইল ও সতীন মনি আক্তার সিএনজি যোগে দ্রুত পালিয়ে যায়।

এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ফতুল্লা মডেল থানার উপ-পরিদর্শক শাহাদাৎ হোসেন জানায়, মামলা হয়েছে। মামলাটি গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে।অভিযুক্তদের গ্রেফতারে একাধিক স্থানে অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। তাদেরকে গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে তিনি জানান।

আরও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ