সংসদে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম

শামীম ওসমান আমাদের অনুপ্রাণিত করে

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেছেন, সংসদ সদস্য শামীম ওসমানের এলাকা বাংরাদেশের একটি গুরুত্বপূর্ণ এলাকা। উনি ওই এলাকা থেকে বার বার নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি হিসেবে জাতীয় সংসদে প্রতিনিধিত্ব করেন জাতীয় সংসদে। শামীম ওসমান সর্বদা মানুষের কথা বলেন, মানুষের উন্নয়নের কথা ভাবেন। এগুলো আমাদের উৎসাহিত এবং অনুপ্রাণিত করে। সংসদের স্পিকার শিরীন শারমীন চৌধুরীর সভাপতিত্বে একাদশ জাতীয় সংসদের ১৮তম ও ২০২২ সালের বাজেট অধিবেশনে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমানের প্রসংশা করে স্থানীয় সরকার বিভাগের পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী তাজুল ইসলাম (এমপি) সংসদে এসব কথা বলেন।

এসময় সংসদ সদস্য শামীম ওসমান জাতীয় সংসদে ঢাক-নারায়ণগঞ্জ-ডেমরা (ডএিনডি) সেচ প্রকল্পের নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জ অঞ্চলের ত্রিশলাখ মানুষের বর্ষায় কষ্ট ও দুর্দশার কথা উল্লেখ করে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের অর্থ মুনুফার বিনিময়ে ব্যাংকে লগ্নি না করে জনস্বার্থে কাজে লাগানো হচ্ছেনা কেন জানতে চেয়ে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর মাধ্যমে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলামের দৃষ্টি আকর্ষন করেন।

তিনি বলেন জেলা পরিষদকে সরকার শত শত কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়, কিন্তু এই টাকার একটি বৃহত অংশ জনস্বার্থে ব্যবহারের পরিবর্তে মুনুফার জন্য ব্যাংকে রাখা হচ্ছে। আমার নির্বাচনী এলাকা আর অন্যসব এলাকা সমান না, এটি একটি ইনড্রাষ্টিয়াল বেল্ট। এবং আমার মনে হয় বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম ইনড্রাষ্টিয়াল এলাকা। মন্ত্রীর কাছে আমার অনুরোধ থাকবে, যেই টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন সেই টাকার যেন উপযুক্ত ব্যবহার নিশ্চিত হয় সেই দিকে গুরুত্ব দেওয়া প্রয়োজন। বর্ষাকালে এই অঞ্চরের মানুষের কষ্ট লাঘবে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী কোন ব্যবস্থা নিবেন কিনা তা জানতে চাই। এর আগে গত একনেকের সভায় ওই অঞ্চলের মানুষের কষ্ট লাঘবে প্রধারমন্ত্রীর নেতৃত্বে দেরশত কোটি টাকার বরাদ্দ পাওয়ায় স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম ও প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি নারায়ণগঞ্জ বাসীর পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এই আওয়মী লীগ নেতা।

সংসদ সদস্য শামীম ওসামানের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেন, সংসদ সদস্য শামীম ওসমানের এলাকার ড্রেনেজ ব্যবস্থার জন্য আমরা যে প্রকল্প পাশ করে দিয়েছি। এছাড়াও জেলা পরিষদের ফান্ডের ব্যপারে উনি যে কথটি বলেছেন, জেলা পরিষদ স্থানীয় সরকার ব্যবস্থার একটি উচ্চ কাঠামোর প্রতিষ্ঠান। সম্প্রতি এই প্রতিষ্ঠানের জন্য পাশ হওয়া আইনটি এই প্রতিষ্ঠানের অতীতের যে কোন সময়ের চেয়ে আরোও বেশি কার্যকর হওয়ার সুযোগ সৃষ্টি করেছে বলে আমি মনে করি। এই প্রতিষ্ঠানের উপরের থেকে নিচের দিকের সকলের সাথে সমন্বয়ের কিছু ঘাটতি ছিল, যা ইতোমধ্যে পূরণ করা সম্ভব হয়েছে। আমি আশা করি এই নতুন আইনের মধ্যমে নতুন আঙ্গিকে যে জেলা পরিষদ গঠন হয়েছে, তারা আরোও বেশি কাজ করার সুযোগ পাবে এবং আরোও বেশি সচ্ছতার সৃষ্টি হবে। তবে অৎান্তে কিছু ত্রুটি বিচ্যুতি থাকতে পারে। এই বিষয়ে অবগত করাতে আমি সংসদ সদস্য শামীম ওসমানকে ধন্যবাদ জানাই। সকলের সমন্বয়ে কাজ করলে আগামীতে জেলা পরিষদ অনেক বেশি সক্ষম প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরীত হবে। এসময় জাতীয় সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সহ অন্যন্য সংসদ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ