না’গঞ্জে চার হাজার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন

নারায়ণগঞ্জে অবৈধ গ্যাস সংযোগ অপসারণ করতে অভিযান চালিয়েছে তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড কর্তৃপক্ষ। রবিবার (১২ জুন) দিনব্যাপী নারায়নগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ ও বন্দর এলাকায় এই অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে জেলায় মোট চার হাজার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন ও দেড় লক্ষ টাকা জড়িমানা আদায় করা হয় বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

এসময় অভিযানে সিদ্ধিরগঞ্জের হাজেরা মার্কেট এলাকায় জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যািজস্ট্রেট সাব্বির আহমেদের নেতৃত্বে দুইটি কয়েল কারখানা ও তিনটি স্টিল ওয়ার্কশপে পাঁচটি অবৈধ বাণিজ্যিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ। অপরদিকে বন্দর উপজেলায় পুলিশ প্রশাসনের সহায়তায় লাঙ্গলবন্দ বাসস্ট্যান্ড, চিড়াইপাড়া ও বারপাড়া এলাকায় চার হাজার অবৈধ আবাসিক সংযোগ ও একটি বেকারী করাখানার অবৈধ বাণিজ্যিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন্ন করা হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করেছেন।

তথ্য অনুসন্ধানে জানা যায়, সিদ্ধিরগঞ্জের হাজেরা মার্কেট এলাকায় মিজমিজি মাদ্রাসা সড়কে জনৈক হারুনুর রশিদের মালিকানাধীন সিনথিয়া কেমিক্যাল ওয়ার্কস ও এখলাস উদ্দিনের মালিকানাধীন শারমিন কেমিক্যাল ওয়ার্কস’র দুইটি কয়েল কারখানা ও বেনামি তিনটি স্টিল ওয়ার্কশপের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। এসময় শারমীন কেমিক্যাল ওয়ার্কসকে পঞ্চাশ হাজার টাকা ও সিনথিয়া কেমিক্যাল ওয়ার্কসকে এক লক্ষ টাকা জড়িমানা করা হয়। তবে স্টিল ওয়ার্কশপের লোকজন তিতাসের উপস্থিতি টের পেয়ে কারখানা থেকে সটকে পড়েন। তাই ওই তিন প্রতিষ্ঠান কে জড়িমানা করা যায়নি।

তবে সিদ্ধিরগঞ্জের হাজেরা মার্কেট এলাকার স্থানী দের কয়েকজন পরিচয় প্রকাশ না করার শর্তে জানায়, বিগত দুই বছরে তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ এই দুই কয়েল কারখানায় অন্তত পাঁচবার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেন। দিনে অভিযান চালিয়ে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হলে রাতেই আবার গ্যাস চোর সিন্ডিকেটের লোকজন সংযোগ দিয়ে যায়। এর সবই জানেন তিতাস কর্তৃপক্ষ, কিন্তু এর স্থায়ী কোন বিহিদ হয়না।

তিতাস গ্যাসের নারায়ণগঞ্জ অঞ্চলের ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী শাকিল আহমেদ বলেন, অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করতে তিতাস নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করছে। আজ সিদ্ধিরগঞ্জে পাঁচটি অবৈধ বাণিজ্যিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে এবং এই অভিযান আমাদের রুটিন ওয়ার্ক। এর আগেও তাদের কয়েকবার সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। এখানে অভিযানে এলে আমরা কর্তৃপক্ষের কাউকে সরেজমিনে পাইনি। তাই তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া যায়নি। তবে দুইটি কয়েল কালখানাকে দেড় লক্ষ টাকা জড়িমানা করা হয়েছে। অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করতে অভিযান চলমান থাকবে। এসময় অবৈধ সংযোগে ব্যবহৃত বিপুল পরিমাণ গ্যাস পাইপ, রাইজার ও শিল্পে ব্যবহৃত বার্ণার জব্দ করা হয়েছে বলে জানায় তিতাসের এই কর্মকর্তা।

এদিকে বন্দরের অভিযান সম্পর্কে তিতাসের সোনারগাঁ আঞ্চলিক বিপনন বিভাগের উপ-মহাব্যবস্থাপক মো: সুরুজ আলম টেলিফোনে জানান, ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের দুই পাশে উচ্চ চাপসম্পন্ন শিল্প সংযোগ থেকে অবৈধভাবে বিভিন্ন কারখানা ও বাসা বাড়িতে গ্যাস ব্যবহার করা হচ্ছে। অভিযান চালিয়ে চিড়াইপাড়া এলাকায় ঢাকা সিয়াম বেকারিসহ চার কিলোমিটার এলাকার চার হাজার অবৈধ আবাসিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। অবৈধ সংযোগ প্রদানকারিদের চিহ্নিত করে মামলা দায়েরসহ আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানান তিতাসের ওই কর্মকর্তা।

আরও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ