বন্দরে উন্নয়ণ বঞ্চিত কলাবাগ

বন্দর ইউনিয়ন দক্ষিন কলাবাগস্থ খালপাড় এলাকাটি দীর্ঘদিন ধরে উন্নয়ণ বঞ্চিত হওয়ায় জনসাধারনের একমাত্র চলাচল পথটি মরনফাঁদে পরিনত হয়েছে। বিভিন্ন স্থানে খানা খন্দকে পরিপূর্ণ হয়ে এখন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে উঠেছে। এরমধ্যে এই রাস্তাটির উপর দিয়ে স্থানীয় ভূমিদস্যুদের মোটা ড্রেজার পাইপ ও ভেকু যাওয়ার কারনে রাস্তাটি আরো ভেঙ্গে পড়েছে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা একাধিকবার ওই এলাকার জনগনকে রাস্তা নির্মাণ করার মিথ্যে প্রতিশ্রুতি দিলেও নির্বাচন চলে যাওয়ার পর আর কোন খবরই রাখেন না বলে অভিযোগ রয়েছে। ফলে এলাকাবাসী বাশ দিয়ে সাকু বানিয়ে ওই রাস্তা দিয়ে চলাচল করছে।

তথ্যমতে,বন্দর ইউনিয়ন দক্ষিন কলাবাগস্থ খালপাড় এলাকাটি অনেক দিন ধরে অবহেলিত। বর্তমানে ওই এলাকাটির রাস্তাটি মরন ফাঁদে পরিনত হয়েছে। এই রাস্তাটির উপর দিয়ে ভেকু ও ড্রেজার পাইপ নেয়ার কারনে রাস্তায় বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গর্ত তৈরী হয়ে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। স্থানীয় ভূমিদস্যুরা মাটি কেটে সড়কের উপর দিয়ে মোটা ড্রেজার পাইপ নেয়ার কারনে ওই পথ এখন মাটি সড়ে খালে পতিত হয়েরেছ। দক্ষিন খালপাড় এলাকার ৫’শ পরিবার ভঙ্গুর রাস্তাটি দিয়ে চলাচলে চরম দূর্ভোগ পোহাচ্ছে। এতে করে এই এলাকায় বসবাসরত শিশু শিক্ষার্থী ও চাকুরীজীবীরা এই সড়ক দিয়ে যাতায়াত করতে গিয়ে দূর্ঘটনাসহ নানা অনাকাঙ্খিত ঘটনায় পতিত হচ্ছে। ফলে এলাকাবাসী বাশ দিয়ে সাকু বানিয়ে ওই রাস্তা দিয়ে চলাচল করছে। এলাকাবাসী একাধিকবার স্থানীয় জনপ্রতিনিধির স্বরনাপন্ন হলেও তেমন কোন সাড়া মিলেনি। তাই তারা স্থানীয় আসনের এমপি মহোদয়ের সুদৃষ্টি কামনা করছেন।

এ ব্যাপারে দক্ষিন কলাবাগ এলাকার সমাজ সেবক হাজী নুর হোসেন মিয়া বলেন,দীর্ঘদিন ধরে এই এলাকার মানুষ চলাচলে চরম দূর্ভোগ পোহাচ্ছে। নির্বাচন এলেই চেয়ারম্যান-মেম্বাররা এই এলাকার জনগনকে স্বপ্ন দেখায় নির্বাচন শেষ হলে ভুলে যায়। এই গ্রামের মানুষগুলো কেমন আছে,কিভাবে চলছে কেউ কোন খবর রাখেনা। জনপ্রতিনিধিরা রাস্তাটির টেন্ডার হয়ে গেছে এসব বলে বছর গেলেও পরে কোন খবর নেয়না। এই গ্রামের মানুষতে তারা মানুষ মনে করেনা। এ ব্যাপারে বন্দর ইউপি চেয়ারম্যান এহমান উদ্দিনের সাথে আলাপ করার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ তরেন নাই।

এ ব্যাপারে ইমন মেম্বার বলেন, দক্ষিন কলাবাগ এলাকার রাস্তাটি সংস্কারের জন্য এহসান চেয়ারম্যানকে একাধিকবার জনগনের পক্ষে সুপারিশ করেছি। তিনি আগামী ১৫ দিনের মধ্যে সংস্কার কাজ শুরু হবে বলে জানিয়েছেন। তাই আমি আমার ওয়ার্ডবাসীকে একটু ধৈর্য্য ধারন করার জন্য অনুরোধ করেছি।

আরও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ