পরকীয়ার টানে ঘরছাড়া স্ত্রী, অভিমানে স্বামীর আত্মহত্যার চেষ্টা

পরকীয়ার টানে সন্তানসহ স্ত্রী পালিয়ে যাওয়ায় নিজ শরীরে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টায় এক যুবককে আটক করেছে আড়াইহাজার থানা পুলিশ। নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার থানা সড়ক এলাকায় আনন্দ ভুঁইয়া (২৭) নামে এক যুবক নিজের শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালিয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন আড়াইহাজার থানার পুলিশ পরিদর্শক আজিজুল হক হাওলাদার।শনিবার (১৮ জুন) বিকেলে আড়াইহাজার থানার সামনে সড়কে এই ঘটনা ঘটে। বিষয়টি আড়াইহাজার থানার ওসি আজিজুলের দৃষ্টিগোচর হলে তিনি দৌড়ে যেয়ে ওই যুবককে প্রাণে বাঁচান। পরে তাকে থানা হেফাজতে নেওয়া হয়।

আড়াইহাজার থানা সূত্রে জানা যায়, আটক আনন্দ ভুঁইয়া আড়াইহাজার উপজেলার পাঁচরুখি গ্রামের আরাউদ্দিন ভুঁইয়রি ছেলে। বছর দুয়েক আগে একই উপজেলার বগাদী গ্রামের সোহেল মিয়ার মেয়ে হালিমার (২২) সাথে তার বিয়ে হয়। পরে তাদের ঘরে একটি সন্তান আসে। পরকিয়ার টানে প্রেমিকের সঙ্গে তার স্ত্রী পালিয়ে যাওয়ায় অভিমানে সে আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানায় পুলিশকে।

আত্মহত্যার চেষ্টাকারী আনন্দ ভূইয়ার বরাতে থানা পুলিশ আরোও জানায়, আনন্দ ও হালিমার দাম্পত্য জীবন সুখকর ছিলেন না। হালিমা পরকীয়ায় আসক্ত ছিলেন দাবি আনন্দের। এই নিয়ে তাদের মধ্যে প্রায়ই বাকবিতন্ডা হতো। শনিবার (১৮ জুন) সকালে আনন্দ বাহির থেকে বাসায় ফিরে দেখেন তার স্ত্রী ও সন্তান ঘরে নেই। পরে তার সন্দেহ হলে তিনি তার স্ত্রীর ফোনে কল দিলে তার ফোন অপরিচিত এক যুবক ধরে বলেন, হালিমা ঘর-সংসার ছেড়ে চলে এসেছেন। এবং তাকে আর ফোন দিতেও বারণ করেন ফোনে সংযুক্ত থাকা ওই যুবক। পরে তিনি এসব মেনে নিতে না পেরে আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নিয়ে থানার গেইটের সামনে এসে নিজের পুরো শরীরে কেরসীন ঢেলে আগুন দিতে গেলে থানার পুলিশ পরিদর্শক আজিজুল হক হাওলাদার তাকে জাপটে ধরে প্রাণে বাঁচান।

আড়াইহাজার থানার পুলিশ পরিদর্শক আজিজুল হক হাওলাদার বলেন, থানার সামনে এক যুবক নিজের শরীরে কেরসীন ঢেলে আগুন দিবে দেখে দৌড়ে যেয়ে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসি। জিজ্ঞাসাবাদে জানতে পারি ওই যুবকের নাম আনন্দ ভুইয়া। তার স্ত্রী পরকীয়া প্রেমের টানে ঘর ছেড়ে সন্তানসহ অন্যত্র পালিয়ে গেছে। এই নিয়ে অভিমনে আনন্দ নিজের গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার উদ্যোগ নিয়েছিল। বিষয়টি দেখে দৌড়ে যেয়ে তাকে আটক করায় তিনি আর তার শরীরে আগুন দিতে পারেনি। তার অভিভাবক, স্ত্রী ও শ^শুরকে তলব করা হয়েছে বিষয়টি সমাধানের জন্য। ভবিষ্যতে আর এমন ঘটনা ঘটাবেন না বলে মুচলেকা নিয়ে পরিবারের কাছে তাকে বুঝিয়ে দেওয়া হবেবলে জানান আড়াইহাজর থানার এই পুলিশ কর্মকর্তা।

আরও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ