দেওভোগে শুভ্রত’র পর সিদ্ধিরগঞ্জে রাসেল হত্যা

দেওভোগে শুভ্রত হত্যার পর ফের চাঞ্চল্যকর ঘটনা ঘটলো সিদ্ধিরগঞ্জে পাঠানটুলী এলাকায়। মোবাইল চুরিকে কেন্দ্র করে এক কিশোরকে দিনভর আটকে রেখে, নির্যাতন করে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে সোহাগ ও রফিক নামে দুই যুবকের বিরুদ্ধে। শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) পাঠানটুলী পুরান আইলপাড়ার এই ঘটনা ঘটে। পরে বিকেল সাড়ে ৫টায় উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে পরিবারের লোকজন সন্ধ্যায় পুলিশের বিশেষ সেবা ৯৯৯ এ ফোন করে পুলিশকে অবহিত করেন। তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন সিদ্ধিরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মশিউর রহমান। নিহত কিশোরের নাম মো. রাসেল মিয়া (১৭)। সে পাঠানটুলী পুরান আইল পাড়া এলাকার মো. নাসিরের ছেলে। দিকে, অভিযুক্ত সোহাগ ও রফিক একই এলাকার কাদের ও মৃত আলী আকবর মাদবরের ছেলে। তাদের বয়স ৩০ থেকে ৩২ হবে। জানাগেছে, নিহত রাসেল মিয়া পাইপ ফিটারের কাজ করত। সে শুক্রবার রাতে বাড়ি ফেরেনি। ভোররাত সাড়ে ৪টার দিকে রাসেলকে মোবাইল চুরির অভিযোগে সোহাগ ও রফিক মারধর করে তাদের হেফাজতে নিয়ে যায়। বিকেল সাড়ে ৫ টার দিকে পাঠানটুলি ঈদগাঁ সংলগ্ন স্থানে রাসেল এর ছোট ভাই রাকিব ভাইকে দেখে দৌড়ে কাছে গেলে রাসেল বমি করা অবস্থায় মাটিতে শুয়ে পড়ে। এবং বলে তাকে সোহাগ ও রফিক প্রচুর মারধর করেছে। রাকিব দ্রুত পরিবারের লোকজন নিয়ে রাসেলকে নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্মরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে তারা সন্ধ্যায় পুলিশের বিশেষ সেবা ৯৯৯ এ ফোন করে ঘটনাটি জানায়। নিহত রাসেলের পরিবারের অভিযোগ পূর্ব শত্রুতাকে কেন্দ্র করে রাসেলকে পরিকল্পিতভাবে চুরির অপবাদ দিয়ে নির্মমভাবে অত্যাচার করে এ হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে। এ সময় তারা অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। সিদ্ধিরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মশিউর রহমান বলেন, আমরা লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় তদন্ত সাপেক্ষ আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ