মহাসড়কে চলছে চাঁদাবাজির মহোৎসব

রূপগঞ্জের ঢাকা সিলেট মহাসড়কের উপর কাঁরাবাজার বাসিয়ে চাঁদাবাজির মহোৎসব চলছে বলে অভিযোগ উঠছে।ঢাকা সিলেট মহাসড়কে বসানো কাঁচাবাজারের চাঁদাবাজিতে ব্যবসায়ীরা অতিষ্ট। ব্যবসায়ীদের অভিযোগ চাঁদাবাজরা সরকারী দলের নাম ভাঙ্গিয়ে প্রতিনিয়ত হকারদের কাছ থেকে তুলে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা। এই সকল চাঁদা ভাগ বাটোয়ারা হচ্ছে বিভিন্ন মহলে। ফুটপাত নিয়ে প্রশাসন নিরব ভূমিকা থাকায় জনমনে ক্ষভোবের সৃষ্টি হয়েছে। এ নিয়ে চলছে জনমনে নানা আলোচনা ও সমালোচনা।সরেজমিনে দেখা যায়, ঢাকা সিলেট মহাসড়কের ভুলতা গোলাকান্দাইল এলাকার মহাসড়কের বেশিরভাগ অংশ দখল করে নিয়েছে হকাররা। কয়েক হাজার ফুটপাত ব্যবসায়ী মহাসড়ক দখল নিয়ে ফুটপাত বসিয়েছে। মহাসড়ক পরিস্কারের দায়িত্ব হাইওয়ের পুলিশের, আবার কেউ বলছে ফাঁড়ি পুলিশের। কাদের ছত্রছায়ায় মহাসড়কটি দখল করে ফুটপাত বসিয়েছে, কেউ স্বীকার করতে রাজি হয়নি।তবে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে জানা যায় ছাত্রলীগ, যুবলীগ ফুটপাত বসিয়ে তাদের কাছ থেকে সকাল বিকাল চাঁদা তুলে নিচ্ছে।জানা যায় ভুলতার রাবেত আল হাসান এলাকা থেকে সাওঘাট বেবি ষ্ট্যান্ড পর্যন্ত প্রায় এক কিঃ মিঃ মহাসড়ক দখল করে বিভিন্ন ব্যবসায়ী কাঁচামাল ও ফলফ্রুটের পরসা বসিয়েছে। ফলে প্রতিনিয়তই সৃষ্টি হচ্ছে মহাসড়কে দীর্ঘ যানজটের। পথচারীরা জীবনের ঝুকি নিয়ে রাস্তা পারাপার করতে গিয়ে দুর্ঘটনার শিকারও হচ্ছে প্রতিনিয়ত।এতে ভোগান্তির স্বীকার পথচারী ও যানবাহনের যাত্রীসাধারন। যানজটে আটকে পড়া ভৌরব এলাকার আব্দুল করিম নামে পঞ্চাশোর্ধ এক যাত্রী বলেন, এক সময়ে এই রোডের ভোগান্তির নাম ছিলো ভুলতা গাউছিয়া এলাকা। জনগণের দূর্ভোগের কথা চিন্তা করে সরকার ভোগান্তি এড়াতে এখানে ছয় লেনের রাস্তা ও ফ্লাইওভার করেন। এখানে ফ্লাইওভার ও ছয় লেনের রাস্তা করলেও যাত্রীদের কোন লাভ হয়নি। শুধুমাত্র এখানকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির কারণে আমরা এখনোও ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছি। খবর নিয়ে জানা যায় আব্দুল হক সুপার মার্কেট, তাঁতবাজার ও গাউছিয়া কাঁচা বাজার মার্কেটে হাজারখানেক কাঁচামাল ব্যবসায়ীর দোকান আছে। বাজারের দোকানে এখন কেউ দোকান্দারী করে না। একটাই কারণ ক্রেতারা বাহিরে মহাসড়কের উপর সব পেয়ে যায়, তাই ভিতরে যায় না। ব্যবসায়ীরা বলেন, আমরা মার্কেট থেকে লাখ লাখ টাকা দিয়ে দোকান কিনছি, লোকজন নাই শুধু ফুটপাত ব্যবসায়ীদের কারনে, সবাই মহাসড়কে দোকান বসিয়ে ব্যবসা করে, কাষ্টমাররা সব ওখানে। মার্কেটের ব্যবসায়ীরা ফুটপাতে বসে। ফুটপাতে না কি ভালো ব্যবসা।সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায় ভুলতা রাবেত আল হাসান মার্কেট থেকে শুরু করে সাওঘাট পর্যন্ত মহাসড়ক দখল করে ভ্যান গাড়িতে হকাররা কাঁচা বাজারের পরসা বসিয়েছে। এদিকে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে অভিযোগ উঠেছে তারা না কি টাকা দিয়ে ফুটপাতে ব্যবসা করে। তবে কারা টাকা নেয় সে ব্যাপারে মুখ খুলতে নারাজ।ভুলতা ফাড়ির পুলিশ ফুটপাত পরিস্কার করার নামে অভিযান করলেও ফুটপাত কখনই পরিষ্কার করতে পারেনি। বরঞ্চ মহাসড়কে ব্যবসায়ীর সংখ্যা দিন দিন বেড়ে চলছে। এ ব্যাপারে ভুলতা ফাঁড়ির ইনচার্জ মোঃ মাহবুবুর রহমান বলেন আমরা ফুটপাত দখলমুক্ত করার চেষ্টা করে যাচ্ছি। তবে শতভাগ করা সম্ভব হয়নি।এলাকাবাসীর অভিযোগ হাইওয়ের পুলিশ মহাসড়কের দায়িত্ব নেয়ার পর থেকেই যানজটের মাত্রা আগের তুলনায় অনেক বেড়েছে। এখানে হাইওয়ে পুলিশের কাউকে খুঁজে পাওয়া যায় না। এখানে ট্রাফিক পুলিশের একান্ত দরকার।বিজ্ঞমহল বলেন ফুটপাতের কারণে মহাসড়কের পাশে সৃটি হচ্ছে ময়লার ভাগাড়। ময়লার ভাগাড়ে স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে এলাকাবাসী। তারা আরো বলেন ফুটপাত তুলে দিলেই এলাকার সকল সমস্যার সমাধান হবে। ফুটপাত তুলে নিতে কতৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করেন।

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ