ঢাকাশনিবার , ২৬ নভেম্বর ২০২২
  1. আন্তর্জাতিক
  2. এক্সক্লুসিভ
  3. খেলা
  4. জাতীয়
  5. তথ্যপ্রযুক্তি
  6. নগর-মহানগর
  7. নাসিক-২০২১
  8. বিনোদন
  9. রাজনীতি
  10. লাইফ-স্টাইল
  11. লিড
  12. লিড-২
  13. লোকালয়
  14. শিক্ষা
  15. শিক্ষাঙ্গন

রূপগঞ্জে যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ

আবু বকর সিদ্দিক
নভেম্বর ২৬, ২০২২ ৫:০৬ অপরাহ্ণ
Link Copied!

রূপগঞ্জে যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ রূপগঞ্জ উপজেলার ইছাপুর বাড়িয়ারটেক এলাকায় এক সাংবাদিকের জমি দখলের পায়তারা করছে রূপগঞ্জ সদর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড সদস্য ও ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা আলমগীর হোসেন। আদালতের নির্দেশনা অমান্য করে সাংবাদিক রাশেদুল ইসলামের দখলীয় জমিতে সাইনবোর্ড স্থাপন করে ভূমিদস্যু আলমগীর ও তার বাহিনী। রূপগঞ্জের দক্ষিণবাগ এলাকার বাসিন্দা ও দৈনিক মানবকণ্ঠ পত্রিকার পূর্বাচল প্রতিনিধি রাশেদুল ইসলাম জানান, ইছাপুর বাড়িয়ারটেক এলাকায় আমাদের দখলীয় ৯ শতাংশ জমিতে হঠাৎ করে সাইনবোর্ড দেয় আলমগীর ও তার অনুসারীরা। তার ঘনিষ্ট সহযোগি বাড়িয়ারটেক এলাকার কাদির মোল্লার ছেলে ভূমিদস্যু রিয়াদ, ছনি এলাকার জালাল উদ্দিনের ছেলে নাদিম, দারাজ উদ্দিনের ছেলে মোক্তার, আব্দুল বাতেনের ছেলে রুবেল, হাসিব উদ্দিনের ছেলে টিপুর, ছাত্তার খন্দকারের ছেলে জামাল, জালাল উদ্দিনের ছেলে কাউসার। এই বাহিনী প্রধান আলমগীর হোসেন রূপগঞ্জ ইউনিয়ন যুবলীগের নাম ভাঙিয়ে জমি দখল, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজি, বিরোধপূর্ণ জমির অংশ কেনাবেচা করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। আলমগীরের অত্যাচারে রূপগঞ্জ সদর ইউনিয়নের মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে ওঠেছে। তিনি আরও জানান, জোরপূর্বক জমি দখলের চেষ্টা করলে আলমগীর বাহিনীর বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ আদালতে মামলা দায়ের করা হয়। পরে আদালত ওই জমির দখল ও শাস্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য রূপগঞ্জ থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জকে নির্দেশনা দেন। তারপরও যুবলীগ নেতা ভূমিদস্যু আলমগীর ও তার সহযোগিরা ওই জমিতে বালুভরাট এবং সাইনবোর্ড দেয়ার চেষ্টা করছেন। অভিযুক্ত আলমগীর হোসেন জানান, আমি ওই জমি জোরপূর্বক নয় দখলের চেষ্টা করছি না। রিয়াদ মোল্লাদের কাছ থেকে বায়না করে জমির মালিকনা দাবি করছি। তাছাড়া দলের নাম ব্যবহার করে জমি দখলে যাইনি।রূপগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হুমায়ুন করিব মোল্লা জানান, বাড়িয়ারটেক এলাকায় ৯ শতাংশ জমি দখলের জন্য রূপগঞ্জ সদর ইউপি সদস্য আলমগীর হোসেন একটি সাইনবোর্ড দেন। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছার আগেই সাইনবোর্ড সড়িয়ে নেয়। তবে বিষয়টি সমাধানের জন্য একাধিকবার শালিস বৈঠক হলেও আলমগীর ও তার লোকজন বৈঠকের রায় মানছেন না। জোরপূর্বক জমি দখলের চেষ্টায় তারা মগ্ন। রূপগঞ্জে যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ রূপগঞ্জ উপজেলার ইছাপুর বাড়িয়ারটেক এলাকায় এক সাংবাদিকের জমি দখলের পায়তারা করছে রূপগঞ্জ সদর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড সদস্য ও ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা আলমগীর হোসেন। আদালতের নির্দেশনা অমান্য করে সাংবাদিক রাশেদুল ইসলামের দখলীয় জমিতে সাইনবোর্ড স্থাপন করে ভূমিদস্যু আলমগীর ও তার বাহিনী। রূপগঞ্জের দক্ষিণবাগ এলাকার বাসিন্দা ও দৈনিক মানবকণ্ঠ পত্রিকার পূর্বাচল প্রতিনিধি রাশেদুল ইসলাম জানান, ইছাপুর বাড়িয়ারটেক এলাকায় আমাদের দখলীয় ৯ শতাংশ জমিতে হঠাৎ করে সাইনবোর্ড দেয় আলমগীর ও তার অনুসারীরা। তার ঘনিষ্ট সহযোগি বাড়িয়ারটেক এলাকার কাদির মোল্লার ছেলে ভূমিদস্যু রিয়াদ, ছনি এলাকার জালাল উদ্দিনের ছেলে নাদিম, দারাজ উদ্দিনের ছেলে মোক্তার, আব্দুল বাতেনের ছেলে রুবেল, হাসিব উদ্দিনের ছেলে টিপুর, ছাত্তার খন্দকারের ছেলে জামাল, জালাল উদ্দিনের ছেলে কাউসার। এই বাহিনী প্রধান আলমগীর হোসেন রূপগঞ্জ ইউনিয়ন যুবলীগের নাম ভাঙিয়ে জমি দখল, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজি, বিরোধপূর্ণ জমির অংশ কেনাবেচা করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। আলমগীরের অত্যাচারে রূপগঞ্জ সদর ইউনিয়নের মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে ওঠেছে। তিনি আরও জানান, জোরপূর্বক জমি দখলের চেষ্টা করলে আলমগীর বাহিনীর বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ আদালতে মামলা দায়ের করা হয়। পরে আদালত ওই জমির দখল ও শাস্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য রূপগঞ্জ থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জকে নির্দেশনা দেন। তারপরও যুবলীগ নেতা ভূমিদস্যু আলমগীর ও তার সহযোগিরা ওই জমিতে বালুভরাট এবং সাইনবোর্ড দেয়ার চেষ্টা করছেন। অভিযুক্ত আলমগীর হোসেন জানান, আমি ওই জমি জোরপূর্বক নয় দখলের চেষ্টা করছি না। রিয়াদ মোল্লাদের কাছ থেকে বায়না করে জমির মালিকনা দাবি করছি। তাছাড়া দলের নাম ব্যবহার করে জমি দখলে যাইনি।রূপগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হুমায়ুন করিব মোল্লা জানান, বাড়িয়ারটেক এলাকায় ৯ শতাংশ জমি দখলের জন্য রূপগঞ্জ সদর ইউপি সদস্য আলমগীর হোসেন একটি সাইনবোর্ড দেন। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছার আগেই সাইনবোর্ড সড়িয়ে নেয়। তবে বিষয়টি সমাধানের জন্য একাধিকবার শালিস বৈঠক হলেও আলমগীর ও তার লোকজন বৈঠকের রায় মানছেন না। জোরপূর্বক জমি দখলের চেষ্টায় তারা মগ্ন।

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।