যুবলীগ নেতার মাটি বিক্রির অভিযোগ

কৃষিজমিতে অবৈধ ড্রেজার বসিয়ে আড়াইহাজারে যুবলীগ নেতার মাটি বিক্রির অভিযোগনিজস্ব প্রতিবেদক, আড়াইহাজার আড়াইহাজারে একাধিক স্থানে ফসলি জমির মাটি বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই ঘটনায় গ্রামবাসী উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। গত ১৭ নভেম্বর অভিযোগটি দিলেও মঙ্গলবার পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি বলে জানা যায়। সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার গোপালদী পৌরসভার লক্ষিবরদী নয়াপাড়া গ্রামের অধিকাংশ ফসলি জমি ড্রেজারের কবলে পরে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। ড্রেজার দিয়ে মাটি কাটার ফলে বিশাল গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। অপরিকল্পিতভাবে ড্রেজার দিয়ে মাটি খনন করার কারনে চারপাশের মাটি দেবে ভেঙ্গে পড়ছে। মাটি পরিবহনের জন্য মাইলের পর মাইল পাইপ সংযোগ দিয়ে চলছে পুকুর কিংবা অন্য ফসলি জমি ভরাটের কাজ। অবৈধ ড্রেজিংয়ের কারণে ৫০/৬০ ফুট গভীর থেকে মাটি ও বালি উত্তেলনের কারণে আশ-পাশের তিন ফসলের জমিগুলো ডোবায় পরিণত হচ্ছে। তাছাড়া দুই সেচ পাম্পে প্রায় ২/৩ বিঘা জমিতে ইরি ধান চাষ হতো কিন্তু বর্তমানে তা আর সম্ভব হয় নয়। অভিযোগ রয়েছে, জমির মালিক বিএনপি নেতা মোহাম্মদ আফজাল ভূঁইয়ার সাথে মিলে মিশে গোপালদী পৌর যুবলীগের সভাপতি মোহাম্মদ বিল্লাল ড্রেজার দিয়ে ফসলী জমি থেকে মাটি কেটে অন্যত্র বিক্রি করে দিচ্ছে। গ্রামের নিরিহ মানুষ কয়েক দফায় বাঁধা দেওয়ার পরও তারা নিয়মিত ভাবে বালু উত্তোলন করে যাচ্ছে এবং পাশের জমির লোকেদের নানারকম হুমকি প্রদর্শন করছে।গ্রামবাসী জানান, এমন ভাবে চলতে থাকলে এলাকার নির্মানাধীন ঘরবাড়ি ও বিলীন হবার পথে। তাই কর্তৃপর্ক্ষের কাছে জোর দাবি এই গ্রামের কৃষকদের ড্রেজার সরিয়ে তাদের ফসলি জমিতে ফসল চাষের সুযোগ করে দেওয়া। গোপালদী পৌর যুবলীগের সভাপতি বিল্লাল হোসেনের সাথে মুঠাফোনে কল দিলেও তিনি রিসিভ করেনি। আড়াইহাজার উপজেলা নির্বাহী অফিসার রফিকুল ইসলাম বলেন, নিজের কিংবা পরের জমির মাটি বিক্রি করার কোন নিয়ম নেই। আমরা ব্যবস্থা নিব।

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ