লঞ্চ থেকে পড়ে নিখোঁজ তরুন, উদ্ধারকার্যে তিন বাহিনী

লঞ্চ থেকে পড়ে নিখোঁজ তরুন, উদ্ধারকার্যে তিন বাহিনী লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থেকে লঞ্চে করে ৭ বন্ধু মিলে যাচ্ছিলো মতলবের বেলতলী লেংটার মাজারে। এমন সময় হটাৎ ধলেশ্বরী ও মেঘনার মাঝামাঝি স্থানে টয়লেটে গিয়ে পা পিছলে নদীতে পড়ে তলিয়ে যায় হযরত আলী নামের এক তরুণ।সোমবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুরের দিকে এ নিখোঁজ হওয়ার ঘটনা ঘটে। এর আগে তারা সকলে মিলে গাঁজা সেবন করছিলেন বলে জানায় লঞ্চের অন্য যাত্রীরা। নিখোঁজ ওই তরুণ নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থানার গাবতলীর বাসিন্দা। নারায়াণগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা হাফিস নামের একটি লঞ্চ থেকে পড়ে সে নিখোঁজ হয়।তার সন্ধানে গজারিয়া কোস্টগার্ড, ফায়ার সার্ভিস, নৌ-পুলিশ নদীতে উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছে। সন্ধা সাড়ে পাঁচটায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তার সন্ধান পাওয়া যায়নি।লঞ্চে থাকা কয়েকজন যাত্রী জানান, নারায়ণগঞ্জ থেকে ওই তরুণসহ আরও ৬ বন্ধু লঞ্চে ওঠেন। লঞ্চে ওঠে তারা হৈ-হুল্লোড় করতে থাকেন। তাদের সবাইকেই গাঁজা সেবন করতে দেখা যায়। এতে কয়েকজন বাঁধা দিলেও কোনো লাভ হয়নি। তারা লঞ্চের কেরানী সোলেমানের সঙ্গেও বাকবিতণ্ডায় জড়ায়।নিখোঁজ হরযত আলীর বন্ধু জয়নাল উদ্দিন বলেন, আমরা ৭ বন্ধু মিলে মতলবের বেলতলী লেংটার মাজারে যাচ্ছিলাম। হঠাৎ করে মুন্সীগঞ্জের ধলেশ্বরী ও মেঘনার মাঝামাঝি স্থানে হরযত আলী টয়লেটে গিয়ে পা পিছলে নদীতে পড়ে তলিয়ে যায়। আমাদের প্রত্যেকের বাড়ি নারায়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লা থানার গাবতলী এলাকায়।গজারিয়া কোস্টগার্ডে ইনচার্জ মো. শাহাদাৎ হোসেন বলেন, দুপরের দিকে ধলেশ্বরী ও মেঘনার মোহনায় লঞ্চ থেকে এক যুবক নদীতে পড়ে যায়। লঞ্চের কেরানী সোলেমান জানিয়েছেন তারা গাঁজা সেবন করতেছিল। স্থানীয়দের মাধ্যমে জানতে পেয়ে তাৎক্ষণিক আমরা উদ্ধার কাজ শুরু করি। আমাদের সঙ্গে ফায়ার সার্ভিস ও নৌ-পুলিশও উদ্ধার কাজে যোগ দিয়েছে।তিনি বলেন, নিখোঁজ হরযত আলীর সঙ্গে থাকা ৬ বন্ধুকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কোস্টগার্ড হেফাজতে রাখা হয়েছে। তাদের পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ