১১ মাসে ৪৩ কোটি টাকা

আড়াইহাজারে রাজস্ব আদায় 

আড়াইহাজারে ১১ মাসে ৪৩ কোটি টাকা রাজস্ব আদায় চলতি বছর আড়াইহাজার উপজেলা সাবরেজিস্ট্রি অফিসের রাজস্ব আদায় বেড়েছে। এগারো মাসে রাজস্ব হয়েছে ৪৩ কোটি ৩৯ লাখ ৫৩ হাজার ৪৪৫ টাকা। যা গত বছরের তুলনায় এ বছর রাজস্ব বেড়েছে ৮ কোটি ৯৭ লাখ ৭৫ হাজার ৩১২ টাকা। গত বছর রাজস্ব আদায় হয়েছিল ৩৪ কোটি ৪১ লাখ ৭৮ হাজার ১৩৩ টাকা। বিপুল পরিমাণ রাজস্ব আদায় বৃদ্ধিতে সংশ্লিষ্ট সকলেই স্বস্তি প্রকাশ করেছে।আড়াইহাজার উপজেলার দলিল লেখক সমিতির সভাপতি আমান উল্লাহ আমান জানান, সাব রেজিস্ট্রি অফিসে রাজস্ব আদায় বেড়েছে স্থায়ী অফিসার থাকার কারণে। ২০১৬ সাল থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত আড়াইহাজার উপজেলা সাবরেজিস্ট্রি অফিসে দায়িত্ব পালন করে গেছেন কয়েকজন খন্ডকালীন সাব রেজিস্ট্রার। খন্ডকালীন অফিসার দায়িত্ব পালন করলে অফিসের কাজে গতিশীলতা বার বার থেমে যায়।তিনি আরো জানান, এ বছর স্থায়ী সাব রেজিস্ট্রার থাকায় আমাদের এখানে কাজের গতি কয়েক গুণ বেড়েছে। অনেক দলিল রেজিস্ট্রি হয়েছে। যার দরুন রাজস্ব আদায়তো বাড়বেই। বিগত দিনগুলোতে জালিয়াতচক্র ও দালালচক্রের কারণে কোন সাব রেজিস্ট্রার টিকতে পারতো না। ফলে কাজ কর্মে গতিশীলতা থাকতো না। উল্টো মানুষ নানাভাবে হয়রানির শিকার হত। এখন স্থায়ী অফিসার এসেছেন। অফিসের যত অনিয়ম দূর হয়েছে। দালালচক্র অফিসে ভিড়তে পারেনা।জানাগেছে, বর্তমান সাব রেজিস্ট্রার আলী আসগর গত ১২ জুন আড়াইহাজারে যোগদান করেন। তিনি স্থায়ী দায়িত্ব নিয়ে অফিস করছেন। সাব রেজিস্ট্রার আলী আসগর প্রতিদিন সকালে অফিসে আসেন। অফিসে ঢুকেই কার কার টেবিলে কি কাজ বাকি আছে সেসব সম্পন্ন করার তাগিদ দেন। যে কোন প্রয়োজনে গ্রামের সাধারণ মানুষ তাঁর সাথে দেখা করতে পারে। এসব কারণে জালিয়াতি ও দালালচক্র সাব রেজিস্ট্রি অফিস থেকে বিদায় নিয়েছে।আড়াইহাজার উপজেলা সাব রেজিস্ট্রার আলী আজগর জানান, জালিয়াতি ও দালালচক্রের হাত থেকে মুক্ত হয়ে জনগণ যাতে সেবা পায় সে লক্ষ্যে তিনি কাজ করে যাচ্ছেন। ভাল কাজ হচ্ছে। রাজস্ব আদায় বেড়েছে। অফিসের সবাই জনগণকে উত্তম সেবা দিয়ে যাচ্ছে। এ বছরের এগারো মাসে ৪৩ কোটি টাকার বেশি রাজস্ব আদায় হয়েছে। ৭ জন স্থায়ী লোক ও ৪৬ জন নকল নবীশ নিয়োজিত আছে এই অফিসে।আড়াইহাজার উপজেলা দলিল লিখক সমিতির সাধারণ সম্পাদক নুরুল আমীন  জানায়, নিয়মিত অফিসার থাকলে সাব রেজিস্ট্রি অফিসে ভিড় কম থাকে। আমরা ভাল সেবা পাই। জালিয়াতি ও দালালচক্র অফিসে ঢুকতে সাহস করে না। বর্তমানে সাব রেজিস্ট্রি অফিস দালালমুক্ত। অতীতের যে কোন সময়ের চেয়ে বর্তমানে সাব রেজিস্ট্রি অফিস ভাল চলছে। কোন উৎপাত নেই। জনগণ ভাল সেবা পাচ্ছে। রাজস্ব আদায়ও বেড়েছে।     নারায়ণগঞ্জ জেলা রেজিস্ট্রার খন্দকার জামিলুর রহমান বলেন, আড়াইহাজার উপজেলায় রাজস্ব বেড়েছে এটা ভাল কথা। প্রতি বছরই আমাদের রাজস্ব বাড়ে। রাজস্ব বৃদ্ধির নানা কারণ রয়েছে। বিভিন্ন ফি বাড়ে, ট্যাক্স বাড়ে। দলিলের পরিমাণ বাড়ে। জমির দাম বাড়ে। অফিসের কাজ কর্মে গতিশীলতা থাকলেও দলিল রেজিস্ট্রি বাড়ে। আমাদের মূল লক্ষ্য হচ্ছে জনগণকে উত্তম সেবা দেয়া।  

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ