আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন : নারায়ণগঞ্জ থেকে কেন্দ্রীয় কমিটিতে আলোচনায় যারা

আগামী ২৪ ডিসেম্বর বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের ২২তম জাতীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে। নারায়ণগঞ্জ হলো আওয়ামীলীগেরজম্মস্থান। যার কারণে জন্মলগ্ন থেকেই আওয়ামী লীগের ইতিহাসেরসাথে রাজনীতির সূতিকাগার নারায়ণগঞ্জের নাম জুড়ে আছে।আওয়ামী লীগের জাতীয় কাউন্সিল এলেই কেন্দ্রীয় কমিটিতে নারায়ণগঞ্জের নেতাদের স্থান পাওয়া নিয়ে সবসময় আলোচনায় থাকেন । এবারও বাদ নেই সেই আলোচনা। আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে স্থান পাওয়া সম্ভাব্য সেই আলোচনায় রয়েছেন- নারায়ণগঞ্জ- ১ আসনের সাংসদ বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী (বীর প্রতীক), নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ একেএম শামীম ওসমান, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা.সেলিনা হায়াৎ আইভী, নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সাংসদ বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম বাবু, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হাই, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ জাতীয় কমিটির সদস্য এড. আনিসুর রহমান দিপু,সাবেক রাষ্ট্রদূত আড়াইহাজারের মমতাজ হোসেন।‌ জানাগেছে, বিগত ২০বছর ধরেই বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে স্থান পায়নি নারায়ণগঞ্জের কোনো নেতা। অথচ নারায়ণগঞ্জের রয়েছে আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী বেশ কিছু জনপ্রিয় নেতা । যারা সারাদেশের মানুষের কাছে সুপরিচিত মুখ হিসেবে বিবেচিত। সর্বশেষ ২০০২ সালে আওয়ামী লীগের সম্মেলনে নারায়ণগঞ্জের অধ্যাপিকা নাজমা রহমান কেন্দ্রীয় ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হন। নাজমা রহমান ছিলেন আওয়ামী লীগের তৃণমূল পর্যায় থেকে উঠে আসা নেত্রী। তারপর থেকে আবারও কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব শূন্য নারায়ণগঞ্জ। আরো জানাগেছে, আওয়ামীলীগের বিগত কাউন্সিল গুলোতে কেন্দ্রীয়কমিটিতে নারায়ণগঞ্জের একাধিক নেতার নাম বার বার আলোচনায় এলেওকেন্দ্রীয় কমিটিতে জায়গা পেয়েছিলেন মাত্র দুজন- মোস্তফা সারোয়ারও অধ্যাপিকা নাজমা রহমান। এরমধ্যে মোস্তফা সারোয়ার হলেন প্রভাবশালী ওসমান পরিবারের সন্তান। তিনি খান সাহেব এম ওসমান আলীর ছেলে। ভাষা আন্দোলনেও রয়েছে তার অবদান। তিনি ৭৪ সালের সম্মেলনে আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সংস্কৃতি সম্পাদক হন। এরপর দীর্ঘ সময়আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে স্থান পায়নি নারায়ণগঞ্জের কেউ। তবে আগামী ২৪ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য আওয়ামী লীগের ২২তম সম্মেলনঘিরে আবারও নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে তৈরিহয়েছে উচ্ছাস ও প্রাপ্তির আকাঙ্খা। তারা নারায়ণগঞ্জ থেকে এবার কাউকে কেন্দ্রীয় কমিটিতে চাইছেন। আওয়ামীলীগের দলীয় সূত্রে জানা গেছে, স্বচ্ছ ভাবমূর্তির নেতারাই এবার আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে জায়গা পাবেন। দুর্নীতি ওঅপকর্মের সঙ্গে জড়িতরা কোনভাবেই কেন্দ্রে জায়গা পাবেন না বলেই তিপূর্বে জানিয়েছেন একাধিক কেন্দ্রীয় নেতা। সম্মেলন নিয়েসারা বাংলাদেশেই আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে রয়েছে উত্তেজনাও ব্যাপক উচ্ছাস । বাদ পড়ছে না নারায়ণগঞ্জও। তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মধ্যেও রয়েছে জোর প্রচারণা।অন্যদিকে এবার সম্মেলনে সারা বাংলাদেশের তৃণমূলের ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করা হবে বলে জানা গেছে। সেদিক থেকে এগিয়ে আছেন সাংসদ শামীম ওসমান, মেয়র ডা. সেলিম হায়াৎ আইভী , নজরুল ইসলাম বাবু । বিগত সময়ের মতো নারায়ণগঞ্জে বিশাল কর্মীবাহিনী নিয়ে নিজের প্রভাব বজায় রেখেছেন সাংসদ শামীম ওসমান। তবে বিগত সম্মেলন গুলোতে শামীম ওসমানের অনুসারীরা যেমন কেন্দ্রীয় পদ পাওয়ারবিষয়ে নেতার হয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্নভাবে প্রচারণা চালাতেন এবার তা লক্ষ্য করা যায়নি। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম বাবুও রয়েছেন তালিকায়। এক সময়ের তুখোর ছাত্রনেতাকে মূল্যায়ন করে কেন্দ্রীয় কমিটিতে দেয়া হতে পারেগুরুত্বপূর্ণ কোনো পদ। তৃণমূল থেকে উঠে আসা ক্লিন ইমেজের নেতা হিসেবে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা আবদুল হাইয়ের নামও রয়েছে আলোচনায়। এছাড়াও আলোচনায় রয়েছে জাতীয় কমিটির সদস্য এড. আনিসুর রহমান দিপুর নামও।তবে কেন্দ্রীয় স্থান পেতে নারী কোটায় এগিয়ে আছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিম হায়াৎ আইভী বলে জানা গেছে। এদিকে নারায়ণগঞ্জ তৃণমুল আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের দাবি,কেন্দ্রীয় কমিটিতে যেই আসুক না কেন,আওয়ামীলীগের জম্মস্থান নারায়ণগঞ্জ। দলের প্রতিষ্ঠা থেকে শুরু করে সবসময় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখা নারায়ণগঞ্জ। সেই নারায়ণগঞ্জ থেকে কাউকে না কাউকে যেন এবার কেন্দ্রীয় কমিটিতে স্থান দেয়া হয়।

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ