ঢাকাবুধবার , ৪ জানুয়ারি ২০২৩
  1. আন্তর্জাতিক
  2. এক্সক্লুসিভ
  3. খেলা
  4. জাতীয়
  5. তথ্যপ্রযুক্তি
  6. নগর-মহানগর
  7. নাসিক-২০২১
  8. বিনোদন
  9. রাজনীতি
  10. লাইফ-স্টাইল
  11. লিড
  12. লিড-২
  13. লোকালয়
  14. শিক্ষা
  15. শিক্ষাঙ্গন

ঝুলে আছে মহানগর আ’লীগের সম্মেলন, হতাশ নতুন নেতৃত্ব 

আবু বকর
জানুয়ারি ৪, ২০২৩ ৩:৫২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ঝুলে আছে মহানগর আ’লীগের সম্মেলন, হতাশ নতুন নেতৃত্ব দীর্ঘ ২০ বছর ধরে হচ্ছে না নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সম্মেলন। সবশেষ আওয়ামীলীগের ২২তম জাতীয় সম্মেলনের পূর্বেই মেয়াদোত্তীর্ণ নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলনের হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু দিন তারিখ সবকিছু ঠিকঠাক থাকলেও ‘রহস্যজনক’ কারনে হয়নি সম্মেলন। কবে নাগাদ হবে তাও নির্দিষ্ট করে বলতে পারছেন না শীর্ষ নেতারা। সম্মেলন না হওয়ায় সৃষ্টি হচ্ছে না নতুন নেতৃত্ব। ফলে ২৭টি ওয়ার্ডে আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম নড়বড়ে হয়ে আছে।এদিকে সম্মেলন হবে হবে এই আশায় সক্রীয় হয়েছিলেন যে সকল নেতা, তারা রীতিমত হতাশ। সম্মেলনের মাধ্যমে নেতৃত্বের পরিবর্তন হবে এবং নতুন নেতৃত্ব সৃষ্টি হবে এটা আশা করছেন তৃণমূলের নেতাকর্মীরা। অভিযোগ রয়েছে, মহানগর কমিটির সাংগঠনিক দুর্বলতার কারণেই ২০ বছরেও ২৭টি ওয়ার্ডে পূর্ণাঙ্গ ওয়ার্ড কমিটি দিতে পারেনি। দলীয় সূত্রমতে, মহানগর আওয়ামী লীগে ২০ বছর যাবত সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন আনোয়ার হোসেন আর ২৭ বছর যাবত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন এড. খোকন সাহা। সর্বশেষ ২০১৩ সালের ১১ সেপ্টেম্বর আনোয়ার হোসেনকে সভাপতি ও এড. খোকন সাহাকে সাধারণ সম্পাদক করে মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন করা হয়। এর দুই বছর পর ২০১৫ সালের ১০ ডিসেম্বর ৭১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়। এর আগে বিলুপ্ত শহর আওয়ামী লীগের কমিটিতেও সভাপতি ও সেক্রেটারী পদে ছিলেন আনোয়ার হোসেন ও খোকন সাহা। কমিটির মেয়াদ ছিল ২ বছর। কিন্তু পার হয়ে গেছে  ১০ বছর। তবে এই দীর্ঘ সময়েও তারা মহানগর আওতাধীন থানা ও ২৭টি ওয়ার্ড পর্যায়ে কোনো কমিটি গঠন করতে পারেননি। মূলত নিজেদের মধ্যে কোন্দল ও বিভেদের কারনেই দীর্ঘ ১০বছর ধরে এখন পর্যন্ত কোন থানা ও ওয়ার্ড কমিটি গঠন করতে ব্যর্থ হয়েছে । যা বর্তমান কমিটির নেতাদের সব থেকে বড় ব্যর্থতা বলে মনে করা হচ্ছে ।দলীয় সূত্রমতে, তিন বছর মেয়াদি মহানগর আওয়ামী লীগ কমিটিরও মেয়াদ শেষ হয়েছে আরও পাঁচ বছর আগে। বর্তমানে যে কমিটি আছে গঠনতন্ত্র মোতাবেক সেটির কোনো বৈধতা নেই। মহানগরের ২৭টি ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের নতুন কোনো কমিটি নেই। যা আছে তা বহু আগেই মেয়াদোত্তীর্ণ হয়েছে। নতুন করে কমিটি গঠন না করতে পারায় এসব ওয়ার্ডে সৃষ্টি হচ্ছে না নতুন কোনো নেতৃত্ব। এমনকী সাংগঠনিক চর্চাও হারিয়ে গেছে ওয়ার্ডগুলো থেকে। নিজেদের মধ্যে অন্তকোন্দলের কারণে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের দূরত্বের কারণেই এমনটি হচ্ছে বলে মনে করা হচ্ছে। আগামীতে এই ভুলের মাশুল ব্যাপকভাবেই দিতে হবে বর্তমান ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগকে।তৃণমূল নেতাকর্মীরা জানায়, ২০১৭ সালের মে মাসজুড়ে প্রতিটি ওয়ার্ডের কমিটি গঠনের উদ্যোগ নেয়া হলেও কার্যত আর বাস্তবায়ন হয়নি। আর গত বছরের ২৫ অক্টোবর মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন হওয়ার কথা থাকলেও জেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনের দিন তা স্থগিত করেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম এমপি। সবাইকে নিয়ে ঐক্যবদ্ধ হয়ে মহানগরের ২৭টি ওয়ার্ডে নতুন কমিটি গঠনের নির্দেশনা দিয়েছিলেন। পরবর্তীতে সেই লক্ষ্যে মহানগরের বেশ কয়েকটি ওয়ার্ডে কর্মী সম্মেলনেও করা হয়েছিল। কিন্তু হঠাৎ করে তাও বন্ধ হয়ে যায়। মূলত মহানগর আওয়ামীলীগের ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মধ্যে নিজেদের অন্তঃকোন্দলের কারণেই এখন পর্যন্ত কোন কমিটি গঠনের কাজে হাত দিতে পারেনি দলটি। আর নিজেদের মধ্যে কোন্দলে অনেকটাই বিপর্যস্ত অবস্থায় রয়েছে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগ।এদিকে দীর্ঘ ২০ বছর ধরে হচ্ছে না নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সম্মেলন। গত ২৫ অক্টোবর মহানগর আওয়ামীলীগের সম্মেলন ইসদাইর পৌর ওসমানী স্টেডিয়ামে হওয়ার কথা ছিল। মহানগর আওয়ামী লীগের নেতারা ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছিলেন। কিন্তু জেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনে চলাকালীন সময়ে হঠাৎ করেই নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন বাতিল ঘোষণা করেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম এমপি।তিনি বলেন, আবহাওয়া অধিদপ্তরের মতে আগামী ২৫ তারিখে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে বৃষ্টি হবে। সে কারণে ওই সম্মেলন বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। আর এতে করে সম্মেলন করতে ব্যর্থ হয়েছে মহানগর আওয়ামী লীগ এমনটাই দাবি তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা। যদিও ২৫ তারিখে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে বৃষ্টি হবে এমন অজুহাত দেখিয়ে মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন বাতিল ঘোষণা হয়েছিল। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে তৃনমুলের দাবি মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক এড. খোকন সাহার সম্মেলন না হওয়ার পিছনে সভাপতি আনোয়ার হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহার ওয়ার্ড কমিটি গঠন করতে না পারাকেই দায়ী করা হয়েছে। এর ফলে সম্মেলন করতে ব্যর্থ হয়েছেন মহানগর আওয়ামীলীগ দাবি তৃনমুলের।তৃনমুল নেতাকর্মীরা মনে করছেন মহানগর আওয়ামীলীগের অধীনে থাকা তিনটি থানা ও ২৭টি ওয়ার্ড কমিটি গঠন করতে না পারাটাই সম্মেলন বাতিলের মূল কারণ। তাই এই ব্যর্থ কমিটি ভেঙে নতুন কমিটির গঠনের জন্য কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের প্রতি দাবি জানিয়েছেন তৃনমুল নেতাকর্মীরা।এবিষয়ে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, আমরা আশা করছি শীঘ্রই মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। আমরা ওয়ার্ড কমিটি গঠন করার জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছি। ইনশাল্লাহ দ্রুত সময়ের মধ্যে ওয়ার্ড কমিটি গঠন করে মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।