ঢাকাবুধবার , ৪ জানুয়ারি ২০২৩
  1. আন্তর্জাতিক
  2. এক্সক্লুসিভ
  3. খেলা
  4. জাতীয়
  5. তথ্যপ্রযুক্তি
  6. নগর-মহানগর
  7. নাসিক-২০২১
  8. বিনোদন
  9. রাজনীতি
  10. লাইফ-স্টাইল
  11. লিড
  12. লিড-২
  13. লোকালয়
  14. শিক্ষা
  15. শিক্ষাঙ্গন

রেলওয়ে পুলিশ এস আই নুর মোহাম্মদের বিরুদ্ধে চাদাঁবাজির অভিযোগ

আবু বকর সিদ্দিক
জানুয়ারি ৪, ২০২৩ ৪:৩৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

নারায়ণগঞ্জ রেলওয়ে পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ এস আই নুর মোহাম্মদের বিরুদ্ধে চাদাঁবাজির অভিযোগ উঠেছে। জানা যায়, নারায়ণগঞ্জ রেল লাইানের দুই পাশে অবৈধ ভাবে অসংখ্য দোকান পার্ট গড়ে উঠেছে। আর এই দোকান গুলোতে তিনি দৈনিক আবার কোন টিতে মাসিক টাকা নিয়ে থাকেন বলে অভিযোগ উঠেছে। আর চাদাঁ দিতে নাই চাইলে তাদের উপর নির্যাতন চালানো হয়। এছাড়া তাদেরকে উঠিয়ে দেয়ার ভয় দেখানো হয়। কিন্তু যারা টাকা দেয় তাদের কোন নির্যাতন করেন না। আর তার এই স্বজনপ্রীতি নিয়ে মানুষের মাঝে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে।এ বিষয়ে জরিনা বেগম নামের এক ভুক্তভোগী জানান, আমি দীর্ঘদিন যাবৎ এই রেল লাইনের পাশে একটি ছোট হোটেল বসিয়ে ব্যবসা করে কোন রকম দিন কাটাচ্ছি। কারণ আমাকে দেখার কেউ নেই আমার কোন সন্তান নেই। কিন্তু কিছুদিন যাবৎ রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ীর একজন কর্মকর্তা নূর মোহাম্মদ খান আমার উপর অনেক অত্যাচার করছে। তিনি আমাকে বলছে এখানে দোকান বসাতে হলে এককালীন তাকে বিশ হাজার টাকা দিতে হবে। আর নিয়মিত ১০০ টাকা করে তাকে দিতে হবে। আমরা তাদের এ প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় সে আজকে সকালে আমার দোকানে ভাঙচুর চালায়।এসময় পাশে শাহজাহান নামের এক ব্যাক্তি জানান, ছোট থেকে আমরা এ এলাকায় বড় হয়েছি। নুর মোহাম্মদ খান নামের যে নতুন পুলিশ কর্মকর্তা এসেছে রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়িতে তার আগে এধরনের খারাপ কর্মকর্তা এখানে আসেনি। এ বিষয়ে জরিনা বেগম নামের এক ভুক্তভোগী জানান, আমি দীর্ঘদিন যাবৎ এই রেল লাইনের পাশে একটি ছোট হোটেল বসিয়ে কোন রকম দিনকাল কাটাচ্ছি। কারণ আমাকে দেখার কেউ নেই আমার কোন সন্তান নেই। কিন্তু কিছুদিন যাবৎ রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ীর একজন কর্মকর্তা নূর মোহাম্মদ খান। আমাদের উপর অনেক অত্যাচার করছে। সে পুলিশ কর্মকর্তা আমাদের বলছে যদি এখানে দোকান বসাতে হয় তাহলে এককালীন আমাদেরকে বিশ হাজার টাকা দিতে হবে। আর নিয়মিত ১০০ টাকা করে তাকে দিতে হবে। আমরা তাদের এ প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় সে আজকে সকালে আমাদের দোকানে ভাঙচুর চালায়।এ বিষয়ে শাহজাহান নামের এক ব্যাক্তি জানান, ছোট থেকে আমরাই এলাকায় বড় হয়েছি। নুর মোহাম্মদ নামের যে নতুন পুলিশ কর্মকর্তা এসেছে রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়িতে এধরনের খারাপ কর্মকর্তা এর আগে এখানে আসেনি। রেল লাইনের এ প্ল্যাটফর্মের উপরে যদি একটা ভালো লোক দাঁড়িয়ে থাকে, তখন তারা তাদের ধরে টেনে রেলওয়ে পুলিশ ফাড়িতে নিয়ে গিয়ে মোটা অংকের টাকা আদায় করে থাকেন। তাদেরকে ব্ল্যাকমেইল করে বলে তুই খারাপ মেয়ের সাথে কথা বলেছিস এমন ভয় দেখিয়ে ধরে নেয়া ব্যক্তিদের বাসায় পরিবারের লোকদের কল দিয়ে টাকা আনে। তখন ২০/৩০ হাজার টাকা বিনিময়ে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়। তখন পরিবারের লোকেরা লজ্জায় টাকা দিয়ে ছেলে ছাড়িয়ে নিয়ে যায়। তিনি এই পুলিশ সদস্যদের পোশাকধারী ছিনতাইকারী বলে অবহিত করেন।এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী জানান, রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির কর্মকর্তা নূর মোহাম্মদ তাকে তার পার্সোনাল ভিজিটিং কার্ড দিয়ে বলেন এখানে দোকানদারী করতে হলে তাকে মাসে মাসে ৫০০০ হাজার করে টাকা দিতে হবে। কিন্তু আমরা অনেকদিন যাবত এখানে দোকানদারি করি, এর আগে যে দারোগা সাহেব ছিল সেই ধরণের কোন কার্যকলাপ করত না। কিন্তু নতুন এই নূর মোহাম্মদ আসার পরে। এখানে অনেক অপকর্ম হচ্ছে।এই ঘটনায় রেলওয়ে পুলিশ ফাড়ির উপ পরিদর্শক নুর মোহাম্মদ খান বলেন, রেলওয়ের পাশে জায়গা দখল করে অবৈধ স্থাপনা তৈরি করা একটি অপরাধ। সেই প্রেক্ষিতে আমরা এ অবৈধ স্থাপনা ভেঙ্গে দেই। কিন্তু টাকা চাওয়ার বিষয়টা পুরোপুরি মিথ্যা কথা। আমি কারো কাছ থেকে টাকা চাই নাই।

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।