নাসিক ২০ নং ওয়ার্ডে বেড়েছে চুরি ও মাদকের রমরমা ব্যবসা

নাসিক ২০ নং ওয়ার্ডে বেড়েছে চুরি ও মাদক ব্যবসা   নিজস্ব প্রতিবেদক,বন্দর বন্দরে ২০নং ওয়ার্ডে চুরি ও মাদকের ছড়াছড়ি ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রতিদিনেই ওয়ার্ডের বিভিন্ন পাড়া মহল্লার বাসা বাড়িতে ঘটছে একর পর এক চুরি ঘটনা। সে সাথে বেড়ে গেছে মাদকের রমরমা ব্যবসা। এর ধারাবাহিকতায় শনিবার রাতের যে কোন সময়ে অজ্ঞাত চোরের দল বন্দর থানার সোনাকান্দা উচ্চ বিদ্যালয়ের পিছনে জনৈক আব্দুর রহমানের ভাড়াটিয়া বাড়ীতে হানা দিয়ে ১ হাজার লিটার ধারন ক্ষমতা সম্পর্ন সবুজ রং এর একটি মদিনা ট্যাংকি চুরি করে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় ভাড়াটিয়া বাড়ির কেয়ারটেকার মিন্টু মিয়া বাদী হয়ে রোববার দুপুরে অজ্ঞাত  আসামি করে বন্দর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।স্থানীয়রা জানান, বন্দরে ২০নং ওয়ার্ডের মদনগঞ্জ বেঁদেপট্রি, মাহমুদনগর, সারোয়ার জুট মিল, সোনাকান্দা পানির ট্যাংকি, সোনাকান্দা তেঁতুল তলা, হাজীপুর, বেপারীপাড়া, ফরাজিকান্দা লাহরবাড়ীসহ এর আশে পাশের এলাকা গুলোতে মাদক ব্যবসা বৃদ্ধি হওয়ার কারনে চুরির ঘটনা ব্যাপক ভাবে বেরে যায়। অজ্ঞাত চোরের দল সাধারন মানুষের বাসাবাড়িতে কৌশলে প্রবেশ করে ছিনিয়ে নিচ্ছে নগদ টাকা, মোবাইল সেট, পানির ট্যাংকিসহ প্রয়োজনীয় বিভিন্ন কাগজ পত্র। বেপারীপাড়া এলাকার বাসিন্দা আহাম্মদ আলী জানান, মহামুদনগর ও সোনাকান্দা এলাকায় মাদক ব্যবসা বেরে যাওয়ার কারনে এ ওয়ার্ডে চুরি ঘটনা অনেকাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে। মাদক সেবীরা নেশা সেবনের টাকা জোগাড় করতে চুরিসহ ছিনতাই কাজেও জড়িত হচ্ছে।বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, গত ১৫ দিনে বন্দরে দুই সাংবাদিকের বাড়ীসহ বিভিন্ন স্থানে একাধিক চুরি ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনায় বন্দর থানায় দুই দুইটি চুরি মামলা দায়ের হলেও মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তাগন এখন পর্যন্ত চোরাই জিনিসপত্র উদ্ধারের খবর জানাতে পারেনি। এদিকে,  চোরের উপদ্রুপ থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য বন্দর থানার অফিসার ইনর্চাজ মো. আবু বকর সিদ্দিকের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করছে ২০নং ওয়ার্ডবাসী।

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ