টিআই সাইদুরের স্বেচ্ছাচারিতা

মামলা না দিয়ে টাকা আদায় ॥ রাজস্ব থেকে বঞ্চিত সরকার

নগর প্রতিবেদক:

নারায়ণগঞ্জ ট্রাফিক বিভাগে চলছে হযবরল অবস্থা। অনিয়ম ও দূর্নীতিতে জড়িয়ে পড়েছে ট্রাফিক বিভাগের সদস্যরা। শহর জুড়ে লাইসেন্সবিহীন বিভিন্ন যানবাহন চললেও শুধুমাত্র মটরসাইকেল আর কিছু বাসের দিকেই তাদের নজর বেশী। ব্যাটারি চালিত অটোরিক্সা সহ ফিটনেসবিহীন বাসও দেদারছে চলছে শহরে। কিন্তু সেদিকে কোন ভ্রুক্ষেপ নেই ট্রাফিক বিভাগের। বিভিন্ন সময় নগরীতে অভিযান চালিয়ে কিছু বাস ও মটর সাইকেল আটক করা হলেও সেগুলোর ব্যাপারে কোন স্থায়ী ব্যবস্থা নেয়া হয়না বলে সূত্রে জানা গেছে।

এমনকি অনেক সময় বিভিন্ন যানবাহন আটক করে সেগুলোর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হবে বলে টাকা নিয়ে সেগুলো ছেড়ে দেয়া হয়। যার ফলে মোটা অংকের রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হয় সরকার। রবিবার (১৪ নভেম্বর) সকালে এমনি একটি দৃশ্য দেখা যায় নগরীর ২নং রেল গেট এলাকায়। যেখানে কর্তব্যরত টিআই মটর সাইকেল আটক করে মামলা দেয়ার কথা বলে টাকা রেখে সেগুলো ছেড়ে দেয়।

এ ব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন মটর সাইকেল চালক গণমাধ্যম কর্মীদের জানান, ২নং রেল গেট এলাকায় ট্রাফিক বিভাগের টিআই সাইদুর বেশ কয়েকটি মটর সাইকেল আটক করেন। ঐসময় বিভিন্ন কারন দেখিয়ে মামলা করার কথা বলেন। পরে ২নং রেল গেট ট্রাফিক বক্সে নিয়ে যান এবং প্রতিটি গাড়ির জন্য মামলা বাবদ ৩ হাজার টাকা দাবী করেন। টাকা দিলেও তিনি আমাদেরকে কোন রশিদ দেননি।

অথচ মামলার রশিদ কাটার জন্য তার সাথে ডিজিটাল মেশিন ছিলো। কিন্তু তিনি আমাদেরকে কোন মামলার রশিদ না দিয়েই শুধু টাকা রেখে ছেড়ে দেন। সরেজমিনে দেখা যায়, বিভিন্ন লোকদেরকে দিয়ে এসব টাকা নেয়া হয়। পরবর্তীতে সেই টাকার ভাগ ঐসব লোকদেরকেও দেয়া হয় বলে একটি সূত্র জানিয়েছে। এ ব্যাপারে ২নং রেল গেট এলাকায় কর্তব্যরত ট্রাফিকের টিআই সাইদুর এর নিকট জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান।

আরও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ