যানজটে নাজেহাল নগরবাসী ভোগান্তীর শীর্ষে

সড়কের ভাঙ্গা স্লাব নগরবাসীর বিশফোঁড়া

আবির শিকদার

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের কালিরবাজার হাবিব স্মরণী সড়কের দীগুবাবুর বাজারের মোড়ে ড্রেনের স্লাব ভেঙ্গে সড়কের মাঝে সৃষ্টি হয়েছে বড় গর্তের। ব্যস্ততম এ সড়কে সৃষ্ট গর্তের কারণে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। ফলে এ সড়কে চলাচল করা পথচারী ও যানবাহন উভয়ই সমান তালেই চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। ভাঙ্গা স্লাব এখন নগরবাসীর বিশফোঁড়া। তবে নগরবাসীর এ দু:খ দুর্দশা দেখার যেন কেউ নেই।

রবিবার (১৪ নভেম্বর) সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, নগর ও শহরতলীর অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সড়ক হলো হাবিব স্মরণী কালিরবাজার ব্যাংকের মোড় হতে ফ্রেন্ডস মার্কেট পর্যন্ত সড়কটি। সড়কের দীগু বাজার মোড়ের অদুরেই সড়কের স্লাব ভেঙ্গে বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।

এ সড়কেই রয়েছে শহরের প্রধান ও বৃহৎ পাইকারী ও খুচরা দীগুবাবুর বাজার। ভোরের আলো ফোটারও অনেক আগে থেকে গভীর রাত অব্দি পসড়া সাজিয়ে বসা এ বাজারের দোকানীরা লক্ষাধিক নগরবাসীর প্রয়োজনীয় সকল নিত্যপণ্যের যোগান দেয়। এবাজারকে কেন্দ্র করেই এই সড়কটি স্বভাবতই নগরীর অন্যতম ব্যস্ত সড়ক। এছাড়াও বেশ কিছু রাষ্টায়ত্ব প্রতিষ্ঠান, ব্যাংক, বৃহৎ কাপড় ও ঔষধের মার্কেটসহ নারায়ণগঞ্জের অন্যতম শ্রেষ্ঠ ২টি বিদ্যাপিঠের অগনিত শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের মূল সড়ক এটি।

নাসিকের কান্ডজ্ঞাণহীনতা ও দ্বায়িত্বের অবহেলায় এমনিতেই যানজটে নাজেহাল নগরবাসী ভোগান্তীর শীর্ষে। তার উপর এই সড়ক সহ বেশ কয়েকটি সড়কে ভাঙ্গা স্লাব এখন নগরবাসীর জীবনে রীতিমত বিশফোঁড়া। সিটি কর্পোরেশনের রহস্যজনক নীরবতা, দ্বায়িত্বহীনতা, যথাযথ নজরদারী ও কর্মতৎপড়তা না থাকায় কালিরবাজারসহ শহরের বিভিন্ন স্থানে সড়ক দখল করে ব্যাটারিচালিত অটোরিক্সা, সিএনজির স্টান্ডবাণিজ্য, ব্যাটারিচালিত যানবাহনের অবাধ অনুপ্রবেশ, নাসিক প্লেটবিহীন প্যাডেলচালিত রিকশা যানযট নিরসনে মূল অন্তরায়।

এর উপর যানযট নির্মুলে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের অজানা স্বার্থে, উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনায় অণীহা ও নিশ্চুপ ভুমিকার বিষয়টি জনমনে ব্যাপক প্রশ্নবিদ্ধ। আসন্ন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নগরীর ভোটাররা মনে মনে পুষছেন চাপা ক্ষোভ। দীর্ঘসময় ধরে যানজটে ভোগান্তির অসহনীয় চিত্রে মেয়র আইভী প্রসাশনের নিশ্চুপ ভুমিকা নাগরিক ভাবনায় এখন সমালোচনার তুঙ্গে।

এই সড়কে প্রতি ঘণ্টায় শত শত রিকশা, অটোরিকশা, ইজিবাইক, পিকআপ ও প্রাইভেটকার সহ অসংখ্য যানবাহন ও পায়ে হেটে চলা অগনিত পথচারী যাতায়াত করে। এ সড়কটি দিয়ে গাড়ি দুই লেনে যাতায়াত করলেও স্লাব ভেঙ্গে সৃষ্ট গর্তের কারণে সড়কটিতে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়।

ভাঙ্গা স্লাবের বিষয়ে সড়ক ব্যবহারকারীরা জানায়, প্রায় মাস খানেক আগে থেকেই এ সড়কের উপর স্থাপিত ড্রেনের একটি স্লাবের ভাঙ্গন শুরু হয়। শুরুতে কম হলেও দিনকেদিন স্লাবটি ভেঙে বড় আকারের গর্তে পরিণত হয়েছে। ভাঙ্গা স্লাবটির সৃষ্ট গর্তে প্রতিনিয়ত রিকশা, অটোরিক্সা, মাঝারী ও ভারী যানবাহনের চাকা এবং পথচারীরা পড়ে গিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন। দিনের বেলা যানবাহনগুলো সড়কের এক পাশ দিয়ে চলাচলের চেষ্টা করলেও দুর্ঘটনা ঘটে মূলত রাতে। রাতের বেলায় আলো কম থাকায় গর্তের মধ্যে বিভিন্ন যানবাহনের চাকা পড়ে গিয়ে বেশ কিছু দুর্ঘটনার ঘটনা ঘটেছে বলেও জানায় তারা।

তারা আক্ষেপ করে আরও জানায়, দীর্ঘ সময় ধরে যানবাহন চলাচলে অসুবিধা ও ভোগান্তির সৃষ্টি হলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ থেকে কোন ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হয় নি। ঠিক কত দিনে ড্রেনের এ অংশের স্লাবটি পুনঃনির্মাণ করে জনভোগান্তির লাঘব টানবেন মেয়র প্রশাসন, সেদিকে মুখিয়ে আছে সড়ক ব্যবহার কারীরা।

এ বিষয়ে সিটি কর্পোরেশনের সিইও আবুল হোসেনের মুঠোফনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে পাওয়া যায়নি তাকে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে একাধিকবার কল করা হলে ব্যস্ততার অযুহাতে কথা বলেননি কেউই।

আরোও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ