সিদ্ধিরগঞ্জে সরকারী পানি বেচে খায় নেতা

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে সাধারণ মানুষের জন্য বরাদ্দ দেওয়া জেলা পরিষদের সাবমারসিবল পাম্প থেকে পানি উত্তোলন করে বাড়িতে বাড়িতে সাপ্লাই দিয়ে পানি বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে এনায়েত হোসেন নামের এক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে। এনায়েত হোসেন এলাকায় নিজেকে মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্ম লীগ নেতা হিসেবে পরিচয় দেন বলে জানা গেছে। তিনি মিজমিজি পাইনাদী পশ্চিম এলাকার বাসিন্দা। জনসাধারণের জন্য জেলা পরিষদের দেওয়া সাবমারসিবল পাম্পটি তিনি নিজের বাড়ির সামনে স্থাপন করান।

মিজমিজি পাইনাদী পশ্চিম এলাকায় এনায়েত হোসেনের বাড়িতে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের ২ লাখ টাকা ব্যয়ে ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে সাবমারসিবল পাম্পটি স্থাপন করা হয়। পানির পাম্পটি জনসাধারণের ব্যবহারের জন্য বরাদ্দ থাকলেও তিনি তা পাইপ দিয়ে আলাদা আলাদা করে বাড়িতে বাড়িতে দিয়ে বিক্রি করেন। জানা যায়, মিজমিজির মতিন ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় বসানো পানির এই পাম্পটি প্রথমে কয়েক দিন জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত থাকলেও পরে তা দখলে নেন এনায়েত হোসেন।

সরকারি পাম্পটি দখলে নিয়ে তিনি আলাদা আলাদা পাইপ দিয়ে খালের দু’পাশের ১০/১২ টি বাড়িতে পানি সাপ্লাই দিচ্ছেন। বাড়ি প্রতি তিনি ৮’শ থেকে ১ হাজার টাকা করে টাকা নেন মাসে। মিজমিজি পাইনাদী পশ্চিম ও খালের পশ্চিম পাশের আক্তার, সাইদুল ইসলাম, নুরুল ইসলাম, এমরান, আবুল, মুক্তুলের বাড়িতে এবং হেকিমের ছোটভাই মতিনের ভাড়াকৃত কার্টুন ফ্যাক্টরিসহ আরও কয়েকজন গ্রাহক রয়েছে তার।

মিজমিজি পাইনাদী পশ্চিম এলাকার স্থানীয় এক প্রবীণ বলেন, আমি নিজেও আওয়ামী লীগের একজন কর্মী। মুক্তিযুদ্ধের আগে থেকে বঙ্গবন্ধুর দল করি। কখনো দলের মান সম্মানে আঘাত আসে এমন কাজ করি নাই। তবে বর্তমানে দল অনেকদিন ধরে ক্ষমতায় থাকায় দলের নাম ভাঙিয়ে ও বিভিন্ন ভূঁইফোড় সংগঠন তৈরি করে দলের বদনাম করা হচ্ছে। এনায়েত হোসেন সরকারি পানির পাম্প দখল করে পানি বিক্রি করছেন। তিনি দলের নাম ভাঙিয়ে একাজ করছেন। তা দলের জন্য ভালো নয়।

আমি দলের দায়িত্বশীলদের কাছে আকুল আবেদন জানাচ্ছি যারা দলের নাম ভাঙিয়ে দলের বদনাম করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য। নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের প্রশাসনিক কর্মকর্তা কেএম রাশেদুজ্জামান বলেন, জেলা পরিষদের দেয়া সাবমারসিবল পানির পাম্প জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত। এখান থেকে পানি নিয়ে বিক্রি করার কোনো সুযোগ নেই। এদিকে তার বিরুদ্ধে আনীত সকল অভিযোগ অস্বীকার করে এনায়েত হোসেন বলেন, আমার বিরুদ্ধে কয়েকটি গ্রুপ অপপ্রচারে নেমেছে। সর্বশেষ তিনি এ প্রতিবেদককে নিউজটি না করার জন্য অনুরোধ করেন।

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ