১০টি ইউপিতে একক প্রার্থী !

আড়াইহাজারে এমপি বাবুর কারিশমা


ডেইলি নারায়ণগঞ্জ রিপোর্ট

নারায়ণগঞ্জের সদর, বন্দর ও রূপগঞ্জ উপজেলার ১৬টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন সদ্য সমাপ্ত হয়েছে। আগামী ২৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে জেলার সোনারগাঁ উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন। আর আগামী ২৩ ডিসেম্বর আড়াইহাজার উপজেলার ১০ টি, সদর উপজেলার ১টি এবং সোনারগাঁ উপজেলার ১টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে সোনারগাঁ উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন পরিষদের ৪টিতে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নৌকার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। বর্তমানে সবচেয়ে আলোচনায় রয়েছে আড়াইহাজার ১০ টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থীদের নিয়ে। সম্ভাব্য প্রায় অর্ধশত প্রার্থী থাকলেও, এদের মধ্যে এমপি নজরুল ইসলাম বাবুর অনুসারীরা কী বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ার পথে? এমন প্রশ্ন যেমন উঠেছে, তেমন উত্তরে ‘হ্যাঁ’র অভাসও পাওয়া যাচ্ছে।

আড়াইহাজার উপজেলার- সাতগ্রাম, দুপ্তারা, ব্রাহ্মন্দী, ফতেপুর, মাহমুদপুর, বিশনন্দী, হাইজাদী, উচিতপুরা, খাগকান্দা, কালাপাহাড়িয়া এই ১০ টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে সরব হয়েছে মেম্বার, চেয়ারম্যান প্রার্থীরা। চেয়ারম্যান পদে এবারও স্থানীয় সাংসদ বাবুর সমর্থকরা বিনা ভোটে নির্বাচিত হবেন বলে স্থানীয় নেতা-কর্মীরা জানিয়েছেন। এ নির্বাচনে বিএনপি অংশ নিচ্ছে না।

দুপ্তারা ইউনিয়নে এমপি নজরুল ইসলাম বাবুর আত্মীয় নাজমুল ইসলাম আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী, ফতেপুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান হাজী মো. আবু তালিবও আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী। প্রত্যেকটা ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান পুনরায় নির্বাচিত হওয়ার জন্য নানা লবিং ও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। স্থানীয় জনগণ ও ক্ষমতাসীন দলের একাধিক নেতারা জানান, এমপি সাহেব যাকে সমর্থন করবে সেই নৌকা প্রতীক পাবে ।

গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে একাধিক প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হয়েছিলো। তারা হলেন ফতেপুর ইউনিয়নে মো. আবু তালেব মোল্লা, মাহমুদপুর ইউনিয়নে মো. আমান উল্যাহ, কালাপাহাড়িয়া ইউনিয়নে সাইফুল ইসলাম স্বপন মিয়া, উচিৎপুরা ইউনিয়নে মো. নাজিম মোল্লা, ব্রাহ্মন্দী ইউনিয়নে মো. লাক মিয়া, দুপ্তারা ইউনিয়নে শাহিদা মোশারফ, হাইজাদী ইউনিয়নে মো. আলী হোসেন , সাতগ্রামে ইউনিয়নে মো. ওয়াদুদ মাহমুদ। এসব ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে এবারও ভোট গ্রহণ হবে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ আছে জনমনে। তবে, অনেকেই বলছেন- ‘যেসব চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে দুর্নীতি, অনিয়ম, আধপিত্য বিস্তারসহ গ্রুপিংয়ের অভিযোগ রয়েছে তারা এবার দলীয় টিকেট নাও পেতে পারে’।

আরোও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ