খালেদাকে মৃত্যুর দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে দিয়েছে সরকার

নগর প্রতিবেদক:

মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি অ্যাডভোটেক সাখাওয়াত হোসেন খান বলেছেন, বর্তমান সরকার বিনা চিকিৎসায় বিএনপি চেয়ারপারসন ও তিনবারের প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মেরে ফেলতে চাইছে। গণতন্ত্র হত্যার নীলনকশা বাস্তবায়ন করতে তিলে তিলে বেগম জিয়াকে মৃত্যুর দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে দিয়েছে এই অবৈধ সরকার। তাই দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে হলে যেকোনো মূল্যে বেগম খালেদা জিয়াকে বাঁচাতে হবে। আর এর জন্য আন্দোলন-সংগ্রামের কোন বিকল্প নাই।

আমরা সবাই রাজপথে দুর্বার আন্দোলন সংগ্রাম করে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করবো। তাই সকল ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে রাজপথে নামার আহ্বান জানাচ্ছি। বিএনপি’র চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনায় নারায়ণগঞ্জ মহানগর কৃষক দলের উদ্যোগে আয়োজিত মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের পূর্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) বাদ আসর ক্লাব মার্কেটের তৃতীয় তলায় এ আয়োজন করা হয়।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর কৃষক দলের আহ্বায়ক এবং মহানগর বিএনপি’র সহ-সভাপতি মনির হোসেন খানের সভাপতিত্বে এবং মহানগর কৃষক দলের সদস্য সচিব গুলজার হোসেন খানের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান।

আরো উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি’র সহ-সভাপতি এবং জেলা আইনজীবী ফোরামের সভাপতি অ্যাডভোকেট সরকার হুমায়ুন কবীর, নারায়ণগঞ্জ জেলা মৎস্যজীবী দলের সভাপতি অ্যাডভোকেট এইচএম আনোয়ার প্রধান, মহানগর তাঁতী দলের আহ্বায়ক মীর আলমগীর হোসেন, সদস্য সচিব ইকবাল হোসেন, মহানগর কৃষক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক জাকির হোসেন,

নুর আলম সিকদার, মনির হোসেন, উজ্জল হোসেন, যুবদল নেতা এইচএম হোসেন, হানিফ খান, শাহিন আহমেদ, সনেট আহমেদ, আলামিন, ডিকে মাহি, আয়নাল হক, হযরত আলী, আলাউদ্দিন সরদারসহ নেতৃবৃন্দ। আলোচনা শেষে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল পরিচালনা করা হয়।

আরও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ