সাংবাদিকের পর এবার

পুলিশ পেটালো হকাররা

- Advertisement -

নগরীর চাষাড়ায় সাংবাদিকের পর এবার এক পুলিশ সদস্যকে মারধর করেছে দুই হকার। মারধরের শিকার ওই পুলিশ সদস্য নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ লাইনসে কনস্টেবল পদে কর্মরত বলে জানা গেছে। শনিবার (১২ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় ছয়টার দিকে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনের ফুটপাতে এই ঘটনা ঘটে। পরে সদর মডেল থানা পুলিশ ওই দুই হকারকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সন্ধ্যার দিকে ওই পুলিশ সদস্য তার এক বন্ধুকে সাথে নিয়ে ফুটপাতে হালিম খেতে দাঁড়ান। পুলিশ সদস্যের মোটর সাইকেলটি রাস্তার উপর থামানো ছিল। এ সময় এক হকারের ফুডকার্টের সাথে ধাক্কা লাগে ওই মোটর সাইকেলে। এতে ওই পুলিশ সদস্যের সাথে বাকবিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে পুলিশ সদস্যকে মারধর করে দুইজন হকার। তারা দুজন সহোদর। শহীদ মিনারের সামনেই ফুডকার্টে হালিম, রান্না করা গরুর ভূড়ি বিক্রি করে তারা দুই ভাই।

পরে সড়কে বিশৃঙ্খলা দেখে চাষাড়া ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক মঞ্জুরুলও ঘটনাস্থলে পৌঁছান। মারধরের শিকার পুলিশ কনস্টেবল তার পরিচয় দিয়ে ঘটনার বিস্তারিত জানান। এই সময় ওই পুলিশ সদস্য জানান, তিনি পুলিশ লাইনসে রিজার্ভ বিভাগে কর্মরত। ডিউটির সময় শেষে তার বন্ধুকে নিয়ে হালিম খেতে দাঁড়িয়েছিলেন ফুটপাতে। এমন সময় ওই ঘটনা ঘটে। পরে সদর মডেল থানা পুলিশের গাড়িতে দুই হকারকে নিয়ে যায় পুলিশ।

জানা গেছে, মারধরের ঘটনায় অভিযুক্ত দুই হকারের নাম- আমিন ও দুলাল। তাদের বাবার নাম মুছা মিয়া। তারা শহরের মিশনপাড়া এলাকায় ভাড়া থাকে। এ বিষয়ে সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শাহ্ জামান বলেন, ঘটনা শুনেছেন তিনি। অভিযুক্ত দুজন ও অভিযোগকারীকে থানায় নিয়ে আসতে বলা হয়েছে। আইন মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, কয়েকদিন পূর্বে চাষাঢ়ার সায়াম প্লাজার সামনে দর-দাম নিয়ে তর্কের এক পর্যায়ে নারায়ণগঞ্জ আপডেট ডট কম পত্রিকার সম্পাদক সাংবাদিক তাহের হোসেনকে মারধর করে হকাররা।

আরও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ

You cannot copy content of this page