স্বাধীনতার পর ১৫ নং ওয়ার্ডে উন্নয়ন হয়নি

- Advertisement -

বিজয় বিসের সুবর্নজয়ন্তি ও বিজয়ের পঞ্চাশ বছর পূর্তি উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৫ নং ওয়ার্ডে একটি আলোচণা সভার আয়োজন করা হয়েছে।

শনিবার (২৫ ডিসেম্বর) বিকেলে নগরীর সদর থানা পুকুর পারে সর্বস্তরের জনগনকে নিয়ে এ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এ সময় সর্বস্তরের জনগন আসন্ন নির্বাচনে জিএম আরমানকে কাউন্সিলর হিসেবে নির্বাচিত করতে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার কথা ব্যক্ত করেন।

এ সময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এড. খোকন সাহা।
এ সময় খোকন সাহা বলেন, এক সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন দেখতেন যিনি, তিনি হলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। ১৯৮৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে দেশে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। পরে আওয়ামী লীগকে ষড়যন্ত্র করে ক্ষমতাচুত্য করা হয়। এই পর্যন্ত আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে দেশে উন্নয়নের জোয়ার বয়ে গেছে। করোনাকালে একজন লোকও না খেয়ে মরে নাই। নেত্রী বেঁচে থাকলে বাংলাদেশে বেঁচে থাকবে।

তিনি আরও বলেন, কিন্তু এতো কিছুর পরেও এই ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর এই এলাকার একটি খেলার মাঠও সংরক্ষন করতে পারেন নাই। যেখানে সেখানে বিল্ডিং করে বিনোদনের ব্যবস্থা উঠিয়ে ফেলা হয়েছে। যে বঙ্গবন্ধুর কথা বলেনা, ওনার আদর্শে চলে না সেই অসিত বরণ কাউন্সিলর হয়ে যায়; এটা মানা যায় না। এই ১৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে জিএম আরমানকে প্রার্থী দেয়া হয়েছে। জিএম আরমান পাশ করলে এই ওয়ার্ডের উন্নয়ন হবেই হবে। আপনারা সকলে জিএম আরমানকে আপনার মুল্যবান ভোট দিয়ে কাউন্সিলর নির্বাচিত করে আপনার এলাকার পরিবর্তন করুন।

এ সময় প্রধান আলোচকের বক্তব্যে জিএম আরমান বলেন, আপনারা জানেন আমাদের জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তার জীবনের মূল্যবান সময় গুলো জেলে কাটিয়েছেন এবং আজকে তার বিনিময়ে এই দেশ স্বাধীনতা পেয়েছে। আজ তার সুযোগ্য কন্যা দেশ রতœ শেখ হাসিনা আমাদের দেশের প্রধানমন্ত্রী হয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করছেন। আমাদের দেশটাকে একটা উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে গড়ে তুলেছেন।

তিনি বলেন, আগামি ১৬ তারিখ সিটি কর্পোরেশন এর নির্বাচন। এই নির্বাচনে আমি ১৫ নং ওয়ার্ড এর একজন কাউন্সিলর প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছি। আমাদের এই এলাকার মধ্যে সবচেয়ে অসহায় ভাবে আছে জিমখানার লোকেরা। এই যায়গার মানুষ যে কিভাবে বসবাস করে আমি নিজে তা দেখেছি। তাদের যে টিনের ঘর তা ভেঙ্গে গেছে, অথছ শহরের মাঝে তাদের বসবাস। স্বাধীনতার পরে সব কিছুর উন্নতি হয়েছে কিন্তু এই এলাকাটির উন্নতি হয়নি। জিমখানা থেকে অনেককে উচ্ছেদ করা হয়েছে। আমি যদি নির্বাচনে জয়ী হতে পারি তাহলে আমি এই জিমখানার মানুষদের পুনঃবাসন করার চেষ্টা করব। আমি সরকারের কাছে অনুরোধ করব সবাইকে পুনঃবাসন করার জন্য।

তিনি আরও বলেন, দিনে হউক রাতে হউক, বিপদ-আপদে যাকে কাছে পাবেন তাকে আপনারা ভোট দিবেন। আমি যদি নির্বাচিত হই তাহলে যেকোনো সমস্যায় পরলে আপনারা আমার কাছে আসবেন, আমি সাহায্য করব। নেতা নির্বাচন আপনাদের জন্য একটা পবিত্র আমানত। তাই আপনাদের অনুরোধ করবো ১৬ই জানুয়ারি তে আমাকে নির্বাচিত করে আমাকে আপনাদের খেদমত করার সুযোগ দিন।

আওয়ামী লীগ নেতা বিমল দত্তের সঞ্চালনায় এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, নারায়ানগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ হায়দার আলী পুতুল, আওয়ামী লীগ নেতা চৌধুরী আইচ.এম, ১৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি নূর আলম খান, ১৫নং ওয়ার্ড কৃষকলীগের সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন, সাজ্জাদ হোসেনসহ ১৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং অত্র ওয়ার্ডের সর্বস্তরের জনগন।

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ

You cannot copy content of this page