দায়ী রেলওয়ের তোলাবাজি,বাস মালিকদের ড্যামকেয়ার আর অবৈধ দোকানপাট

ট্রেন-বাস মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ৩

- Advertisement -

নারায়ণগঞ্জ শহরের ১নং রেইল ক্রসিং এ ট্রেন ও বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে এক শিশুসহ ৩জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৮জন। এদের মধ্যে গুরুতর আহতাবস্থায় ৪জনকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে। রবিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ঢাকা থেকে আসা একটি দ্রুতগামী ট্রেন যানজটের কারণে রেললাইনের উপর আটকে থাকা আনন্দ পরিবহনের ঐ যাত্রীবাহী বাসকে ধাক্কা দিলে এই দুর্ঘটনা ঘটে। ট্রেনের ধাক্কায় বাসটির সামনের অংশ দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এসময় ট্রেন লাইনের ২পাশে থাকা কয়েকটি অবৈধ দোকানপাটও ভেঙে চুর্নবিচুর্ণ হয়ে যায়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুর্ঘটনা কবলিত বাসটি প্রচন্ড যানজটের কারণে সামনের দিকে যেতে না পায় ঐ রেলক্রসিং এর ক্রসিংবারটি ফেলতে পারেননি লাইন ম্যান। ঘটনার পরপরই ট্রেনের চালক পালিয়ে গেছেন। নিহত ৩জনের পরিচয় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত (রাত ১০টা) পাওয়া যায়নি।

ট্রেন-বাস মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ৩
নারায়ণগঞ্জ শহরের ১নং রেইল ক্রসিং এ ট্রেন ও বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে এক শিশুসহ ৩জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৮জন। এদের মধ্যে গুরুতর আহতাবস্থায় ৪জনকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে। রবিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ঢাকা থেকে আসা একটি দ্রুতগামী ট্রেন যানজটের কারণে রেললাইনের উপর আটকে থাকা আনন্দ পরিবহনের ঐ যাত্রীবাহী বাসকে ধাক্কা দিলে এই দুর্ঘটনা ঘটে। ট্রেনের ধাক্কায় বাসটির সামনের অংশ দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এসময় ট্রেন লাইনের ২পাশে থাকা কয়েকটি অবৈধ দোকানপাটও ভেঙে চুর্নবিচুর্ণ হয়ে যায়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুর্ঘটনা কবলিত বাসটি প্রচন্ড যানজটের কারণে সামনের দিকে যেতে না পায় ঐ রেলক্রসিং এর ক্রসিংবারটি ফেলতে পারেননি লাইন ম্যান। ঘটনার পরপরই ট্রেনের চালক পালিয়ে গেছেন। নিহত ৩জনের পরিচয় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত (রাত ১০টা) পাওয়া যায়নি।

ঘটনাস্থলে গিয়ে জানা গেছে, সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে নিয়মিত চলাচলকারী একটি ট্রেন ঢাকা থেকে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় রেল স্টেশনে আসছিল। শহরের ২নং রেইল ক্রসিং( ২নং গেইট এলাকা) অতিক্রম করে ট্রেনটি ১নং রেইল ক্রসিং এর দিকে আসার আগেই লাইনম্যান সেখানে রেল ক্রসিংবার ফেলার চেষ্টা করছিলেন। তুহিন আলী ও সুমন নামের ২ প্রত্যক্ষদর্শী জানান, আমরা বন্দর ঘাট এলাকায় যাচ্ছিলাম। এসময় দেখেছি সেখানে (ফলপট্টি এলাকা নামে পরিচিত) প্রচন্ড যানজট ছিল। আমরা জ্যামের কারণে হেটেও যেতে অসুবিধা হচ্ছিল। অনেকক্ষন থেকেই লাইনম্যান বাশি ফু দিচ্ছিলেন যানজটে বাসসহ গাড়িগুলে কে সরিয়ে নিতে। কিন্তু এতটাই যানজট ছিল যে রেল ক্রসিং ফেলার সুযোগও পাননি লাইনম্যান। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, এখান দিয়ে চলাচলকারী ট্রেন সব সময়ই ধীর গতিতেআসা যাওয়া করে। কিন্তু সেই ট্রেনটির গতি ছিল অস্বাভাবিকভাবে বেশী। দুঘটনার শিকার বাসটি তখন রেল লাইনের উপরেই ছিল। ফলে বাসের মাঝখানেই ট্রেন সজোরে ধাক্কা দিয়ে প্রায় ৩০ফুট ধুরে নিয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই ২জন মারা যায়। আর বাকিদের হাসপাতালে নেয়া হয়।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ ও ঢাকায় খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আহত ৮ জনের মধ্যে গুরুতর আহত ৪ জনকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে। এদের মধ্যে মাথায় আঘাত পাওয়া ৩ জনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ও পা-হাতে মারাত্মক আঘাত পাওয়া ১ জনকে মিডফোর্ড হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকি দুজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় ঘটনাস্থলেই নিহত দুজনের পরিচয় এখনো শনাক্ত করা যায়নি। তবে ঢাকা মেডিকেল কলেজে আহত এক শিশুকে নিয়ে গেলে তাকে মৃত ঘোষনা করা হয়েছে বলে জানা গেছে। ঐ ২জনের নারায়ণগঞ্জ সদর জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। ঢাকা মেডিক্যাল পাঠানো ৩ জন হলেন অজ্ঞাত পা কাটা ছেলে (১০) ও অজ্ঞাত মাথায় আঘাত পাওয়া ব্যক্তি (৩৫)। মাথায় আঘাত পাওয়া নুরু মিয়া (২৫), মিডফোর্ডে পাঠানো একজন হলেন- মিজান মিয়া (৬৫), প্রাথমিক চিকিৎসাপ্রাপ্তরা হলেন- কাদের (৩৮), আমেনা (৪০), মনির (২৬) ও শাকিল।

ট্রেন-বাস মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ৩
নারায়ণগঞ্জ শহরের ১নং রেইল ক্রসিং এ ট্রেন ও বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে এক শিশুসহ ৩জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৮জন। এদের মধ্যে গুরুতর আহতাবস্থায় ৪জনকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে। রবিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ঢাকা থেকে আসা একটি দ্রুতগামী ট্রেন যানজটের কারণে রেললাইনের উপর আটকে থাকা আনন্দ পরিবহনের ঐ যাত্রীবাহী বাসকে ধাক্কা দিলে এই দুর্ঘটনা ঘটে। ট্রেনের ধাক্কায় বাসটির সামনের অংশ দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এসময় ট্রেন লাইনের ২পাশে থাকা কয়েকটি অবৈধ দোকানপাটও ভেঙে চুর্নবিচুর্ণ হয়ে যায়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুর্ঘটনা কবলিত বাসটি প্রচন্ড যানজটের কারণে সামনের দিকে যেতে না পায় ঐ রেলক্রসিং এর ক্রসিংবারটি ফেলতে পারেননি লাইন ম্যান। ঘটনার পরপরই ট্রেনের চালক পালিয়ে গেছেন। নিহত ৩জনের পরিচয় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত (রাত ১০টা) পাওয়া যায়নি।

অপরদিকে ঘটনার পরপরই সদর থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের কর্মীরা ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ জামান জানান, ঢাকা থেকে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় রেল স্টেশনে ঢুকছিল ট্রেনটি। ওই সময়ে ১ নং রেলগেট এলাকাতে কালীরবাজার থেকে আসা আনন্দ পরিবহনের একটি বাস সামনে পড়ে যায়। তখন ট্রেনটি সজোরে ধাক্কা দেয়। পরে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস দুইজন পুরুষের মরদেহ উদ্ধার করে। তবে তারা বাসের যাত্রী না ট্রেনের সেটা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এদিকে ঘটনার পর যানজট ও ট্রেনের ভাঙা ভেরিয়ারকে দায়ী করছেন সকলে। জানা যায়, এক পাশের ট্রেন আসার সিগন্যাল দেয়ার ভেরিয়ারটি দীর্ঘদিন ধরে ভাঙ। এটি সংস্কারে বা নতুন স্থাপনের কোন উদ্যোগ ছিলনা। আর শহরজুড়ে যানজটের কারণে প্রায় সময়ই ট্রেনের লাইনের উপর আটকে থাকে নানা যানবাহন। স্থানীয়রা জানান, রেললাইনেরই উপরই শত শত দোকানপাট বসে আছে বহু বছর ধরে। ফলপট্টি এলাকায় বাস পার্কিং আর রাস্তা দখল করে দোকানপাট করার কারণে যানজট লেগেই থাকে সব সময়। এমন দুর্ঘটনা বহুবার ঘটতে গিয়েও হয়নি। এবার হলো ঠিকই।

নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক আব্দুল্লাহ্ আরেফিন বলেন, দুই জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। একজনের একটি পা উদ্ধার করা হয়েছে। পাঁচ জনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালেরর জরুরী বিভাগের ডাক্তার সাবিনা ইয়াসমিন বলেন, একটি শিশু সহ ৭ জনকে হাসপাতালে আনা হয়েছে। তাদের মধ্যে ৬ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তাদের মধ্যে ১০ বছরের এক শিশুর পা বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। অন্যদের হাত পা ভেঙে গেছে। দুইজন মাথায় আঘাত পেয়েছে।

আরও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ

You cannot copy content of this page