বিএনপি জামায়াতকে অর্থ যোগানদারী গোলজার বেপরোয়া

সোনারগাঁওয়ে বিএনপি জামায়াতকে অর্থ যোগানদারী গোলজার বেপরোয়া সোনারগাঁ উপজেলা বিএনপি ও জামায়াতকে সক্রিয় রাখতে মোটা অঙ্কের অর্থ দিয়ে দেশে অরাজগতা সৃষ্টি করার জন্য বিভিন্ন ভাবে অপতৎপরতা চালিয়ে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে বিএনপি নেতা ও একাধিক মামলার আসামী গোলজার হোসেন ওরফে বাউট্টা গোলজার। সে উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের বস্তল বউ বাজার এলাকার মৃত জয়নাল মিয়ার ছেলে।এলাকাবাসী জানায়, গোলজার হোসেন বিগত বিএনপি জোট সরকারের আমলে তৎকালীন সাবেক প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক রেজাউল করিমের সাথে সখ্যতা রেখে বিএনপি-জামায়াতের রাজনীতিতে সক্রিয় হয়। পরে সাবেক মন্ত্রী রাজনীতিতে নিষ্ক্রিয় হওয়ার পর হাত মিলায় বর্তমান উপজেলা বিএনপি সভাপতি মান্নান এর সাথে। আওয়ামী সরকারকে বেকায়দায় ফেলার জন্য ইতিপূর্বে মদনপুর-জয়দেবপুর এশিয়ার হাইওয়ের বস্তল মোড়, কোপাগা মোড় ও সিংলাব এলাকাসহ প্রধান রাস্তায় টায়ার ও অকটেন ঢেলে আগুন সন্ত্রাসীতে লিপ্ত ছিল গোলজার হোসেন।বিএনপি ও জামায়াত শিবিরের বিভিন্ন মিটিং মিছিলে উপজেলা বিএনপির সভাপতি মান্নানকে অর্থ ও লোকবল জোগান দিয়ে বিভিন্ন ভাবে সহায়তা করে আসছে। গোলজার হোসেন জামপুর ইউনিয়নের বস্তল এলাকার বিভিন্ন নিরিহ কৃষকের জমি নাম মাত্র বায়না করে সরকারি জমি সহ জোর পূর্বক বালু ভরাট করে সে জমি এ্যাম্পেয়ার নামক স্টিল মিলের মালিক আবুল কালামের নিকট বিক্রি করে অবৈধ ভাবে অর্থ উপার্জন করে আসছে। ইতিপূর্বে সরকারি সম্পত্তি দখল করার অপরাধে উপজেলা প্রশাসন হাতেনাতে আটক করে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে তাকে করাদন্ড দিয়ে আদালতে প্রেরণ করলেও অদৃশ্য শক্তির কারণে সে সেখান থেকে ছুটে আসে এবং পুনরায় একই কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। এ বিষয়ে নিরিহ কৃষক একাধিকবার মৌখিক ভাবে প্রশাসনের কাছে অভিযোগ করলেও কোন প্রতিকার পায়নি এলাকাবাসী। ভয়ে তার বিরুদ্ধে মুখ খুলতেও এলাকাবাসী ভয় পাচ্ছে। কারণ সে এলাকায় চলাচলের সময় সাথে ১০/১২টি মোটর সাইকেলে মনির হোসেন, সেলিম মিয়া, মামুন মিয়া, পনির হোসেন সহ ১৫/২০ জন সন্ত্রাসী নিয়ে মহড়া দিয়ে ঘুরে বেড়ায়। তারা সকলেই বিএনপি-জামায়াত শিবিরের সক্রিয় সদস্য।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বস্তল এলাকার আওয়ামীলীগের এক প্রভাবশালী নেতা জানান, বিএনপি ঘোষিত আসছে ১০ ডিসেম্বরের ঢাকার সমাবেশকে সফল করার জন্য প্রতিদিনই বস্তল এলাকায় এ্যাম্পেয়ার স্টিল মিলের টিন সেড ভবনে বসে রাত ১০টা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত বিভিন্ন নিল নকশা আঁকছে এবং ১০ তারিখের সম্মেলনে জামপুর, নোয়াগাঁও ও সাদিপুর ইউনিয়ন থেকে আল মুজাহিদ ও গোলজার হোসেন এর নেতৃত্বে দশ হাজার বিএনপি-জামায়াত সমর্থক নিয়ে যোগদান করিবে। ইহাতে যা যা করা দরকার তারা তাই করবে।এলাকাবাসী আরো জানায়, বিএনপি জামায়াত সমর্থক এই গোলজার বিভিন্ন অপরাধ ও দখল বানিজ্য করে প্রশাসনের নাকের ডগার উপর দিয়ে বহাল তবিয়তে আছে এটা তাদের বোধগম্য নয়। সন্ধ্যা নামলেই তার আড্ডা খানায় প্রশাসনের বিভিন্ন লোকজনদের এসে চা চক্রে লিপ্ত হন। তাই তার অপকর্মের প্রতিবাধ করতেও সাহস পাইনা আমরা। বিভিন্ন সময় সে মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে দিবে বলেও হুমকি প্রদান করে এবং বিভিন্ন জায়গায় বলে বেড়ায় আমার বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ দিয়েও লাভ হবে না। পুলিশ আমাকে আটক করে নিয়ে গেলেও মদনপুর সার্কেল অফিসের পর কোথায় নিতে পারবে না। আমি সব কিছু ম্যানেজ করেই বিএনপির রাজনীতি করে আসছি। 

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ