রমজানে বাহারি ইফতারো পসরা

- Advertisement -

বছর ঘুরে আবার এসছে মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম উৎসব পবিত্র মাহে রমজান। দীর্ঘ এক মাস সিয়াম সাধনার মধ্য দিয়ে মহান আল্লাহ তায়ালার দিদার লাভ করার অন্যতম একটি সুযোগ এই মাহে রমজান। রমজান উপলক্ষে প্রতিবারই জমে ওঠে ইফতার বাজার। রোজার শুরুতেই বাহারি ইফতারের পসরা সাজানো হয় নগরীর সর্বত, যা থাকে মাসজুড়েই। এবারও হয়নি তার ব্যতিক্রম। তবে দীর্ঘ দুই বছর মহামারি করোনার কারনে ততটা সুন্দর করে আয়োজন করতে পারেনি অনেকে।

তবে এবার আরও সুন্দর করে এই ইফতার আয়োজন করা হয়েছে বলে জানান নগরীর বেশ কিছু ইফতার দোকানের মালিক।নারায়ণগঞ্জের ব্যস্ততম কয়েকটি স্থানের মধ্যে অন্যতম ২নং রেল গেট এর আশে পাশের এলাকা। কেননা একানে রয়েছে শত শত অফিস-গার্মেন্টস যাতে কাজ করে হাজার হাজার। তাই রোজার মাসে ইফতারের জন্য এখানে ভিরও থাকে ভালো। প্রতিদিন দুপুর থেকেই এই এলাকা ছাপিয়ে আশে পাশের অলিগলির বাতাসে ভাসে নানা স্বাদের মুখরোচক খাবারের মনকাড়া সুবাস। দুপুর থেকেই জমে উঠতে শুরু করে ইফতারি বাজার। নগরীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বাহারি এসব ইফতার কিনতে ছুটে আসেন ভোজনরসিকরা। ক্রেতা-বিক্রেতাদের উপস্থিতিতে এই ইফতারি বাজার পরিণত হয় এক মিলনমেলায়। চলে জমজমাট বিকিকিনি। বাহারি সব খাবার নিয়ে বসা ব্যবসায়ীরা ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে ছাড়েন নানা হাঁকডাক।

রবিবার (৩ এপ্রিল) সরেজমিনে ২নং গেট ঘুরে দেখা যায়, দুপুর থেকেই দোকানিরা বৈচিত্র্যে ভরপুর লোভনীয় ইফতার সামগ্রী থরে থরে সাজিয়ে রাখছেন টেবিলে। বাহারি সেই ইফতার কিনতে প্রথম দিনই ক্রেতাদের ভিড় লক্ষ্যনীয়।

ব্যবসায়ীরা জানান, বাহারি ইফতারের মধ্যে গরুর সুতি কাবাব কেজিপ্রতি ৬০০-৬৫০ টাকা, সামি কাবাব ৪০-৫০, টিক্কা কাবাব ৩০-৪০, মুরগির রোস্ট প্রতি পিস ১২০-২৫০, আস্ত মুরগি মোসাল্লাম’র পিস ৩৫০-৪০০ টাকা। জিলাপির কেজি ১৫০-২০০, টানা পরোটা ৩০-৪০ টাকা, খাসির মাংসের কিমা পরোটা ৬০-৭০ টাকা, গরুর মাংসের কিমা পরোটা ৪০-৫০ এবং ৫-১০ টাকা পিস বিক্রি হচ্ছে বেগুনে, পেঁয়াজু, আলুর চপ ইত্যাদি তো আছেই।

আরও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ

You cannot copy content of this page