শামীমের পায়ে তৈমূর হাঁটে না

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার বলেছেন, আমি আল্লাহকে ছাড়া কাউকে পরোয়া করি না। আমাকে শামীম ওসমান, পুলিশ প্রশাসনের সঙ্গে যুদ্ধ করেই নারায়ণগঞ্জ শহরে হাঁটতে হয়েছে। আমি মানুষের ভালোবাসায় প্রার্থী হয়েছি। শামীম ওসমানের পায়ে আমি হাঁটি না নারায়ণগঞ্জ শহরে। মঙ্গলবার মেয়র পদে হাতি প্রতীক পাওয়ার পর গণমাধ্যমের সামনে এসব কথা বলেন তিনি।

অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার আরো বলেছেন, এই নির্বাচনে জনগনের আশা-আকাঙ্খার প্রতিফলনের নির্বাচন, ১৮বছরের সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রিত সিটি কর্পোরেশনকে মুক্ত করার নির্বাচন। আমি নির্বাচিত হলে নাসিক ভবন হবে জনগনের ভবন, সিটি কর্পোরেশন হবে সেবামূলক কর্পোরেশন। যেখানে গরীবের মাথার ছাদ কেড়ে নিয়ে ধনীদের জন্য ফ্ল্যাট বানানো হবেনা সেবা না দিয়ে ট্যাক্স বাড়িয়ে নিন্ম ও মধ্যবিত্তকে শোষন করা হবে না।

তৈমুর আলম খন্দকার বলেন, হাতি উঠলে কিন্তু নৌকা ডুবে যায়। অনেকে প্রশ্ন করেন কেন আমি নির্বাচনে দাঁড়িয়েছি। আমি জাতীয় পর্যায়ের রাজনীতি করলেও নারায়ণগঞ্জের জনগণের চাহিদা ও তাদের আকাঙ্খার ব্যাপারে আমাকে সচেতন থাকতে হয়। জনগণের প্রয়োজনেই আমাকে এখানে নির্বাচনে দাঁড়াতে হয়েছে। দেশের সকল সিটি কর্পোরেশনের চেয়ে নাসিকের হোল্ডিং ট্যাক্স সবচেয়ে বেশি। এখানে নাগরিক সুবিধা কম। নারায়াণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন ২২ শতাংশ হোল্ডিং ট্যাক্স নেয়। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ চট্টগ্রাম নেয় ১৪ শতাংশ।

আমি জনগণের চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে নির্বাচন করছি। জনগণ আমার সঙ্গে সম্পৃক্ত হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, নির্বাচন কমিশনের উপর আমি আস্থা রাখতে চাই, কিন্তু আস্থা রাখতে পারছি না। গত ২৪ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের নেতারা প্রতীক, প্রার্থীসহ সমাবেশ করেছেন। আমরা ১৬ ডিসেম্বর ২০ হাজার লোকের সমাবেশ ঘটিয়েছি নারায়ণগঞ্জ শহরে, ইসির অনুরোধে আমি সেখানে যাইনি। আমি আইন মেনে চলেছি কিন্তু সরকার দলের প্রার্থী আইন মানছেন না। তিনি বলেন, এর আগে আমি একটি দল থেকে নির্বাচন করছিলাম। তাই আমাকে বসে যেতে হয়েছে। এবার আমি জনগণের প্রার্থী।

আরও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ