নাসিকের ১৮নং ওয়ার্ড সরগরম

কি ভাবছেন ভোটাররা?

আসন্ন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সরগম ২৭টি ওয়ার্ড। মেয়র, সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর ও সাধারণ কাউন্সিলরদের পদচারণায় মুখরিত ওয়ার্ডের অলিগলি। চায়ের টেবিল থেকে শুরু করে সর্বত্র আলোচনা নির্বাচন নিয়ে। কার সাথে কার প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে, কে জিতবেন, কার অবস্থা কেমন, ভোটাররা কাকে পছন্দ করছেন। কেন করছেন, কার দ্বারা ওয়ার্ডের উন্নয়ন হবে, কাকে দিয়ে আগামী দিনে আধুনিক ও সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ এবং মাদকমুক্ত ওয়ার্ড  গড়ে উঠবে। এমন নানা বিষয় নিয়ে ভোটাররা হিসেব-নিকেষ করছেন। এমনই একটি ওয়ার্ড ১৮ নাম্বার। এই ওয়ার্ডে বর্তমান, সাবেক মিলিয়ে ৬জন প্রার্থী মাঠে রয়েছেন। তারা হলেন-কবির হোসাইন (ঠেলাগাড়ি), কামরুল হাসান মুন্না (ঘুড়ি), মকছুদুর রহমান (ব্যাডমিন্টন র‌্যাকেট), খলিলুর রহমান (লাটিম), শাকিল হোসেন (ঝড়ি) ও হান্নান মিয়া (টিফিন ক্যারিয়ার)। প্রতীক বরাদ্দ পেয়েই যারপরনাই প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন তারা। নানা প্রতিশ্রুতি আর আশাবাণী নিয়ে প্রার্থীরা ছুটছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে।

তবে ওয়ার্ডবাসীর মতে, এবারের নির্বাচনে ভোটের অংক পাল্টে দিবে তরুণ ও যুবকদের ভোট। তারা যেদিকে যাবে সেই প্রার্থীর পাল্লা ভারী। তাদের সাথে যুক্ত হবে তাদের বাবা-মা-ভাই-বোন আত্মীয়-স্বজন। তাই প্রার্থীদের সবাই তরুণ ও যুবকদের ভোট নিজের পক্ষে নেয়ার চেষ্টা করছেন। গত দুইদিন ওয়ার্ডের জমিদারি কাচারি গলি, ঋষিপাড়া মাঠ, তামাকপট্টি, বি,কে রোড, নলুয়া রোড, মুসলিম নগর, আল আমিন নগর, ডিয়ারা ঘুরে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের সাথে কথা একটি চিত্রই ফুটে উঠেছে আর তা হলো ‘পরিবর্তন’। তাদের মতে, বর্তমান কাউন্সিলর কবির হোসাইন ও সাবেক কাউন্সিলর কামরুল হাসান মুন্না ওয়ার্ডে দায়িত্ব পালন করেছেন। তাদের মধ্যে চাচা-ভাতিজার সম্পর্ক বিদ্ধমান থাকলেও এখন সাপে-নেউলে সম্পর্ক। কেউ কাউকে সহ্য করতে পারছেন না। একে অপরকে মাদক ব্যবসায়ি ও মাদক ব্যবসায়িদের শেল্টারদাতা, চাঁদবাজসহ নানা বিষয় তুলে ধরে বিষদাগার করেছেন। অভিযোগ পাল্টা-অভিযোগের শেষ নাই। রীতিমত ওয়ার্ডের সাধারণ মানুষ তাদের দুইজনকে নিয়ে বিরক্ত। তাছাড়া ওয়ার্ডের মানুষ মনে করেন, বিগত সময়ে কবির হোসাইনের লোকজন মুন্নাকে বিজয়ী করতে মুখ্য ভূমিকা রাখেন। এক সময় তারা মুন্নার উপর ক্ষুব্দ হয়ে কবির হোসাইনের পক্ষে চলে যান। যার কারণে ২০১৬ সালের নির্বাচনে কবির হোসাইন বিজয়ী হন আর পরাজয় বরণ করেন মুন্না। এবারও একই চিত্র কবির হোসাইনের পক্ষ ত্যাগ করে বড় একটি অংশ চলে গেছে মুন্নার শিবিরে। ফলে এই দুইজনের ভাগাভাগিতে নতুন মুখ বেরিয়ে আসবে নির্বাচনে। এমনটাই মনে করছেন সাধারণ ভোটাররা। এরমধ্যে আলোচনায় দুই নতুন মুখ। তারা হলেন মাকছুদুর রহমান জাবেদ ও হান্নান মিয়া। এরমধ্যে হান্নান মিয়া কানাডার নাগরিক। বছরের পর বছর তিনি প্রবাসে থাকেন। নির্বাচন আসলে দেশে ফিরেন। ফলে বিজয়ী হওয়ার মতো পরিস্থিতি তার তৈরী হয়নি। অন্যদিকে মকছুদুর রহমান জাবেদ গত নির্বাচনে পরাজিত হওয়ার পরও গত ৫ বছর মাঠ ছাড়েনি। ঈদ সামগ্রী ও শীতবস্ত্র বিতরণ, মসজিদ মাদ্রাসায় আর্থিক সহায়তা, শিক্ষা উপকরণ বিতরণসহ নানা কার্যক্রম চালিয়েছেন সাধ্যমত। সবচেয়ে বড় বিষয় হলো করোনা মহামারীতে জীবন বাজি রেখে করোনা সামগ্রী ও খাদ্য সামগ্রী নিয়ে অসহায়-কর্মহীন মানুষের বাড়ি বাড়ি পৌছে দিয়েছেন। সবমিলিয়ে ওয়ার্ডের সাধারণ মানুষের কাছে একজন মানবিক মানুষ হিসেবে পরিচিত হয়ে গেছেন মকছুদুর রহমান জাবেদ। এছাড়াও তরুণ ও যুবকদের পছন্দের তালিকয় এক নাম্বারে রয়েছেন তিনি।

শহিদ নগর এলাকার একাধিক নারী ও পুরুষের সাথে নির্বাচন বিষয়ে কথা বলতে গেলে তারা বলেন, ২০১১ সালে কামরুল হাসান মুন্না, ২০১৬ সালে কবির হোসাইনকে আমরা ভোট দিয়েছি। কিন্তু তাদের কাছ থেকে আমরা কাংখিত সুবিধা এবং উন্নয়ন পাই নাই। তাছাড়া তাদের দ্ইুজনের বিরুদ্ধেই নানা অভিযোগ। মসজিদের টাকা নিয়েও তারা মারামারি করেছে। এই জন্য তাদের দুইজনকে জেল খানায়ও নিয়েছে পুলিশ। তাদের লোকজন অনেকেই চাঁদাবাজি ও মাদকের সাথে জড়িত। তাই আমরা মনে করি এবার নতুন কাউকে নির্বাচত করা উচিৎ। সেই দিক দিয়ে ব্যাডমিন্টন মার্কার প্রার্থী জাবেদকে মানুষ পছন্দ করছে। লোক হিসেবেও সে ভালো। অনেক সম্মান করে মুরুব্বিদের। আমরা চাই এমন ভালো মানুষ জয়লাভ করুক।

নলুয়া রোড এলাকার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ি সোহরাব হোসেন বলেন, ভালো মানুষ জাবেদ ভাই। ওনার অবস্থা এবার অনেক ভালো। একই কথা মুসলিম নগরের জামাল মিয়ার। তিনিও বলেছেন এবারের নির্বাচনে ব্যাডমিন্টন মার্কার অবস্থা সবার চেয়ে ভালো।

তবে জমিদারি কাচারি গলি, ঋষিপাড়া মাঠ, তামাকপট্টি, বি,কে রোড, ডিয়ারা এলাকার কম পক্ষে অর্ধ শতাধিক বিভিন্ন শ্রেণির মানুষ জানিয়েছেন শেষ পর্যন্ত মূল লড়াই হবে কামরুল হাসান মুন্না ও মকছুদুর রহমান জাবেদের মধ্যে।

প্রসঙ্গত: আগামী ১৬ জানুয়ারি নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ভোট।

আরোও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ