সিদ্ধিরগঞ্জে সরকারি জলাশয় দখলের উৎসব

- Advertisement -

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার সিদ্ধিরগঞ্জে সরকারি জলাশয় ভরাট দখল করে রাস্তা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নির্মাণের হিড়িক পড়েছে। কাঁচপুর সেতু থেকে সাইনবোর্ড পর্যন্ত প্রায় পাঁচ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে চলছে প্রভাবশালী মহলের দখল প্রতিযোগীতা। ব্যক্তি স্বার্থে নির্মিত এসব রাস্তা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান অবৈধ বললেও নিরব নারায়ণগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগ। জানা গেছে, শিমরাইলের কাঁচপুর সেতু থেকে সাইনবোর্ড পর্যন্ত ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের দূরত্ব প্রায় পাঁচ কিলোমিটার। সড়কের উত্তর পাশের জলাশয়টির প্রস্থ ছিল প্রায় ৫০ ফুট আর দৈর্ঘ চার কিলোমিটার। নারায়ণগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের অধিনস্থ সরকারি দীর্ঘ জলাশয়টি দখলদারদের আগ্রাসনে বিলিন হয়ে পড়েছে। জলাশয় ভরাট ও দখল করে নির্মাণ করা হয়েছে ব্যক্তি স্বার্থে একাধিক রাস্তা, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, বাসা বাড়ী ও দোকানপাট।

সিদ্ধিরগঞ্জে সরকারি জলাশয় দখলের উৎসব
নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার সিদ্ধিরগঞ্জে সরকারি জলাশয় ভরাট দখল করে রাস্তা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নির্মাণের হিড়িক পড়েছে। কাঁচপুর সেতু থেকে সাইনবোর্ড পর্যন্ত প্রায় পাঁচ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে চলছে প্রভাবশালী মহলের দখল প্রতিযোগীতা। ব্যক্তি স্বার্থে নির্মিত এসব রাস্তা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান অবৈধ বললেও নিরব নারায়ণগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগ। জানা গেছে, শিমরাইলের কাঁচপুর সেতু থেকে সাইনবোর্ড পর্যন্ত ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের দূরত্ব প্রায় পাঁচ কিলোমিটার। সড়কের উত্তর পাশের জলাশয়টির প্রস্থ ছিল প্রায় ৫০ ফুট আর দৈর্ঘ চার কিলোমিটার। নারায়ণগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের অধিনস্থ সরকারি দীর্ঘ জলাশয়টি দখলদারদের আগ্রাসনে বিলিন হয়ে পড়েছে। জলাশয় ভরাট ও দখল করে নির্মাণ করা হয়েছে ব্যক্তি স্বার্থে একাধিক রাস্তা, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, বাসা বাড়ী ও দোকানপাট।

সরেজমিনে দেখা গেছে, সাইনবোর্ড এলাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক থেকে চলাচলের সুবিধার্থে ওয়ার্ল্ড মার্কেট (নির্মাণ প্রক্রিয়াধিন) কর্তৃপক্ষ জলাশয় ভরাট করে ১৬ ফুট প্রশস্থ সড়ক নির্মাণ করেছে। সানারপাড় বাস স্ট্যান্ড সংলগ্ন বড় বড় একাধিক বাঁশের আড়ৎ করা হয়েছে। তার কিছু পূর্বে চিটাগাং বিল্ডার্স নামক একটি প্রতিষ্ঠান নির্মাণ করেছে ১২ ফুট প্রশস্ত সড়ক। মৌচাক এলাকায় আল-আমিন গার্মেন্টস কর্তৃপক্ষ করেছে ১৬ ফুট প্রশস্থ সড়ক।

সিদ্ধিরগঞ্জে সরকারি জলাশয় দখলের উৎসব
নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার সিদ্ধিরগঞ্জে সরকারি জলাশয় ভরাট দখল করে রাস্তা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নির্মাণের হিড়িক পড়েছে। কাঁচপুর সেতু থেকে সাইনবোর্ড পর্যন্ত প্রায় পাঁচ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে চলছে প্রভাবশালী মহলের দখল প্রতিযোগীতা। ব্যক্তি স্বার্থে নির্মিত এসব রাস্তা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান অবৈধ বললেও নিরব নারায়ণগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগ। জানা গেছে, শিমরাইলের কাঁচপুর সেতু থেকে সাইনবোর্ড পর্যন্ত ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের দূরত্ব প্রায় পাঁচ কিলোমিটার। সড়কের উত্তর পাশের জলাশয়টির প্রস্থ ছিল প্রায় ৫০ ফুট আর দৈর্ঘ চার কিলোমিটার। নারায়ণগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের অধিনস্থ সরকারি দীর্ঘ জলাশয়টি দখলদারদের আগ্রাসনে বিলিন হয়ে পড়েছে। জলাশয় ভরাট ও দখল করে নির্মাণ করা হয়েছে ব্যক্তি স্বার্থে একাধিক রাস্তা, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, বাসা বাড়ী ও দোকানপাট।

মাদানীনগরে অন্তত পাঁচ একর জমি দখল করে করা হয়েছে টায়ার মার্কেট। মুক্তিনগরে ২০ ফুট প্রশস্ত সড়ক নির্মাণ করেছে বিক্রামপুর বর্ডিং কর্তৃপক্ষ। মুক্তিস্বরণী এলাকায় কমপক্ষে ৫০ শতাংশ জলাশয় ভরাট করেছে আজিজ কো-অপারেটিভ কর্তৃপক্ষ। শিমরাইলে কয়েক একর জমি দখল করে গড়ে তুলা হয়েছে ট্রাক টার্মিনাল। এছাড়াও রয়েছে অসংখ্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, বাসাবাড়ী ও দোকানপাট। জলাশয় ভরাট করে সড়ক নির্মাণ করা হলেও পানি চলাচলের জন্য কোন কালভার্ট রাখা হয়নি। ফলে পানি সরতে না পারায় বর্ষকালে এলাকায় সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতা। ভোগান্তি পোহাতে হয় এলাকাবাসীর।

জলাশয় ভরাট করে সড়ক নির্মাণের বিষয়ে জানতে চাইলে ওয়ার্ল্ড মার্কেটের ম্যানেজার সোহরাব বলেন, অনুমতির জন্য সওজ কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করা হয়েছে। এখনো অনুমতি পাইনি। অন্যান্য দখলদাররাও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতি নেওয়ার দাবি করলেও তার সত্যতা পাওয়া যায়নি।

নারায়ণগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মেহেদী ইকবাল বলেন, সরকারি জায়গা দখল করে রাস্তা বা কোন স্থাপনা নির্মাণ করার অনুমতি কাউকে দেয়া হয়নি। যদি কেউ অবৈধভাবে করে থাকে তা উচ্ছেদ করা হবে।

আরও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ

You cannot copy content of this page