ঢাকাশুক্রবার , ১৪ অক্টোবর ২০২২
  1. আন্তর্জাতিক
  2. এক্সক্লুসিভ
  3. খেলা
  4. জাতীয়
  5. তথ্যপ্রযুক্তি
  6. নগর-মহানগর
  7. নাসিক-২০২১
  8. বিনোদন
  9. রাজনীতি
  10. লাইফ-স্টাইল
  11. লিড
  12. লিড-২
  13. লোকালয়
  14. শিক্ষা
  15. শিক্ষাঙ্গন

নৌকাডুবির ঘটনায় নিহত ৩, লক্ষ্যাপারে শোকের মাতম

আবু বকর সিদ্দিক
অক্টোবর ১৪, ২০২২ ৮:০৬ অপরাহ্ণ
Link Copied!

নারায়ণগঞ্জে শীতলক্ষ্যা নদীতে নৌকাডুবির ঘটনায় তিন জনের মরদেহ উদ্ধার করেছ ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্স। নগরীর নবীগঞ্জ খেঁয়াঘাট দিয়ে বন্দর থেকে নারায়ণগঞ্জে আসার পথে মাঝ নদীতে ১১ যাত্রী নিয়ে নৌকাটি ডুবে যায়। বাকিরা সাঁতরে তীরে আসতে পারলেও নিখোঁজ তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।শুক্রবার (১৪ অক্টোবর) রাত সাড়ে দশটার দিকে শীতলক্ষ্যা নদীর নারায়ণগঞ্জের নবীগঞ্জ ঘাট এলাকায় ওই ঘটনাটি ঘটে। ফায়ার সার্ভিসের প্রায় দেড় ঘন্টার তল্লাশীতে একে একে তিন জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। নিহতরা হলেন খানপুর ব্রাঞ্চরোড এলাকার মো. জিয়ার ছেলে শাওন (১৭), মেহেদী হাসানের ছেলে জীম (১৮) ও মো. শাহজাহানর ছেলে রিফাত (১৭)। নিহত সকলেই সম্পর্কে বন্ধু ও সহপাঠী ছিলেন।দুর্ঘটনা কবলীত নৌকায় থাকা একাধিক যাত্রীর সাথে কথা বলে জানা যায়, নবীগঞ্জ দর্গার মেলায় ঘুরে ফিরছিলেন নিহতরা সহ তাদের বন্ধুরা। এসময় মাঝ নদীতে একটি বড় লাইটার জাহাজ যাচ্ছিল। জাহাজটি যাওয়ার জন্য তাদের নৌকাটি অপেক্ষায় থাকে জাহাজটি পার হবার জন্য। জাহাজটি পাশ দিয়ে গেলে জাহাজের ঢেউয়ে পাশে থাকা অপর নৌকার সাথে ধাক্কা লাগে। এসময় দুর্ঘটনা কবলিত নৌকার অগ্রভাগ ডুবে যায়। এমন পরিস্থিতিতে হুরোহুরি করে লাফিয়ে পরেন নৌকায় থাকা অনেকে। মুহুর্তের মধ্যেই নৌকাটি তলিয়ে যায়।নিহতদের বন্ধু ও সহপাঠী তামিম ঢাকা পোষ্টকে বলেন, আমি নারায়ণগঞ্জ বার একাডেমির ছাত্র। নিহত তিনজন আমার বন্ধু ও সহপাঠী। তারা মেলায় ঘুরে নৌকাযোগে ফিরছিলো। নিহতদের কেউই সাঁতার জানতেন না। নৌকায় মোট এগারজন যাত্রী ছিলো। নৌকাটি যখন ডুবতে শুরু করে তখন নৌকার উঞ্জিন বন্ধ করতে বার বার বলা হয়। কিন্তু তা না করে ইঞ্জিনের গতি আরোও বাড়িয়ে দেওয়া হয়। নৌকার অগ্রভাগ প্রথমে ডুবত শুরু করে। ইঞ্জিনের গতি বাড়িয়ে দেওয়ায় দ্রুত ডুবে যায় নৌকাটি।নারায়ণগঞ্জ সদর নৌ থানার উপ-পরিদর্শক ফোরকান আহমেদ ঢাকা পোষ্টকে বলেন, স্থানীয়দের থেকে রাত সাড়ে দশটায় খবর আষে নৌকাডুবির। ঘটনাস্থলে যেয়ে জানতে পারি, নৌকায় মোট এগার জন যাত্রী ছিলেন, এর মধ্যে তিন জন নিখোঁজ ছিল। পরে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিদল নিখোঁজ তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করে। নিহতদের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তরের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানান নৌপুলিশের এই কর্মকর্তা।নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ সহকারি পরিচালক ফখর উদ্দিন আহমেদ জানান, রাত সাড়ে দশটার দিকে মুঠোফোনে নৌকাডুবির খবর আসে। পরে ওই ঘটনায় শাওন, জিম ও রিফাত নামে তিনজনের মরাদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এদের বয়স ১৭ থেকে ১৮। তাদের বাড়ি খানপুর ব্রাঞ্চরোড এলাকায়।

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।