আইনজীবী ফোরামকে এড. মোহসীনের হুশিয়ারী

নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এড. মুহাম্মদ মোহসীন মিয়া বলেছেন, এমন কিছু পরিস্থিতি নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতিতে করার চেষ্টা কইরেন না যাতে শান্তি-শৃঙ্খলা এবং স্বাভাবিক পরিবেশ বিঘ্ন হয়। যদি এমন কিছু করার চেষ্টা করেন তাহলে কঠোর হস্তে দমন করা হবে। এবং সেই কঠোরটা কি পরিমান কঠোর হবে তা চিন্তা করতে পারবেন না। আমি আইনজীবীদের কাছে অনুরোধ করব তাদের এই অপকর্ম যেখানেই দেখবেন সেখানেই প্রতিবাদ প্রতিরোধ গড়ে তুলবেন। কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করতে শিখুন মানুষও ভালো বলবে। শান্তিতে থাকবেন খারাপ থাকতে চাইয়েন না। যদি পরিবেশ খারাপ করতে চান তাহলে তো বুঝেই আমাদেরকে অন্য পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে।বুধবার ( ৩০ নভেম্বর ) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির নবনির্মিত বার ভবনের নাম নারায়ণগঞ্জ- ৪ আসনের সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা একেএম সেলিম ওসমান ভবন নাম করণ নিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের পক্ষ থেকে তা আপত্তি জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন।পরে নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির বার ভবনের সামনে দাঁড়িয়ে জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এড. মুহাম্মদ মোহসীন মিয়া তাদের এই সংবাদ সম্মেলনের জবাব দিতে গিয়ে বক্তব্যে এসব কথা গুলো বলেন।তিনি বলেন, কৃতজ্ঞতা প্রকাশের যে একটা কোয়ালিটি এটা ভালো মানুষদের মধ্যে থাকে। আইনজীবী সমিতির মধ্যে যে সকল আইনজীবীরা বিজ্ঞ সাহেবরা আছেন আমি মনে করি তারা ভালো মানুষ। তাদের মধ্যে কৃতজ্ঞতা বোধটা আছে। আর অকৃতজ্ঞতাকে সৃষ্টিকর্তাও পছন্দ করে না। কৃতজ্ঞতা যে একটা গুণ এটা সব মানুষে থাকে না এটা পারিবারিকভাবে শিখে আসতে হয়। আমাদেরই ইজিএম করতে হবে কেনো। আমাদের সাধারণ আইনজীবীদের মনের কথা তারাই তো বলেছিলেন এই ভবনটার নাম নারায়ণগঞ্জ- ৪ আসনের সাংসদ একেএম সেলিম ওসমান নামে করা হোক। আমাদের একটা ভুল হয়েছে ২০১৮ সালেই নামকরণটা করা দরকার ছিল। আমি মনে করি এটা চার বছর পরে করা হয়েছে। মানুষের মধ্যে যদি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ না থাকে তাহলে তো কিছু করার নেই। আজকে যে বিএনপির বন্ধুরা যেই ঘটনাটি ঘটাতে চাইছিল সত্যিই এটি একটি ন্যাক্কারজনক ঘটনা। শিক্ষিত মানুষের এ ধরনের কাজ করা ঠিক না। বিশেষ করে আমরা যারা আইনজীবীরা আছি। কারণ আইনজীবীরা হলেন সমাজের বিবেক।তিনি আরও বলেন, সেলিম ওসমান সাহেবের তো কেউ নেই এই বিল্ডিং এ বসার জন্য। তার পরিবারেরও তো কেউ নেই কেউ তো এখানে প্র্যাক্টিসও করে না। তারপরে তিনি আইনজীবীদেরকে ভালোবেসে তিন কোটি ষোল লাখ টাকা খরচ করে এই বিল্ডিংটি করে দিয়েছেন। প্রয়োজনে আরও তিনি দিবেন বলেছেন। আর আপনারা যারা বড় বড় কথা বলতেছেন তারা তো তিন টাকা দেননি। আমি সভাপতি থাকা অবস্থায় তো এই বিল্ডিং এর দরজা ওপেন করে দিয়েছি কোই আমার জন্য তো একটি চেয়ারও রাখেনি। আপনাদের ধাক্কায় আমাদের আওয়ামী লীগের আইনজীবীরা হচ্ছে আর পাইনি সব দখল করে আছেন। আপনাদের উচিত মানুষের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা। আজকের এই কাজটির জন্য আপনাদের দুঃখ প্রকাশ করা করা উচিত সাধারণ আইনজীবীদের কাছে। আমি সৃষ্টিকর্তার কাছে দোয়া করি আপনাদের উপর কৃতজ্ঞতা বোধ দেক।

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ