মিজমিজিতে সোর্স দেলোয়ারের কান্ড

চলা-চলের রাস্তা বন্ধ করেছে কাঁটা দিয়ে

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিদ্ধিরগঞ্জ:

সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি আব্দুল আলীপুল খালপাড় এলাকায় কয়েকটি পরিবারকে জিম্মি করে রেখেছে সোর্স দেলোয়ার হোসেন। চলা-চলের রাস্তা কাঁটা দিয়ে বন্ধ করে রেখেছে। শুনছেন না স্থানীয় নেতা ও মাদবরদের কথা। ভূক্তভোগী পরিবারের লোকজনের বিরুদ্ধে মারধরের মিথ্যা অভিযোগ করেও সুবিধা করতে না পেরে নিজের বসত ঘরে নিজেই আগুন ধরিয়ে প্রতিপক্ষের উপর দোষ চাপিয়েছে। তার এমন মিথ্যা নাটকে এলাকায় বইছে নিন্দার ঝড়।

জানা গেছে, সোর্স দেলোয়ারের বাড়ির পিচনে দক্ষিণ পাশে কয়েকটি পরিবার বাস করছে। ওই পরিবারের লোকজনের চলাচলের কোন রাস্তা নেই। দেলোয়ারের বাড়ির সামন দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে তারা চলাচল করে আসছে। এ নিয়ে বিভিন্ন সময় বিবেদ সৃষ্টি হয়। তাই বিরোধ এড়াতে ভূক্তভোগী পরিবার গুলো এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের স্বরনাপন্ন হয়। কয়েকদফা বৈঠক করার পর রাস্তার জন্য দুই ফুট জায় ছেড়ে দিতে রাজি হয় দেলোয়ার। তবে দুই ফুট জায়গা বর্তমান বাজার মূল্যে যে দাম হয় তা পরিশোধ করার সিদ্ধান্ত হয়।

সিন্ধান্ত মোতাবেক সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী ইয়াছিন মিয়ার অফিসে গত বুধবার সকালে এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে রাস্তার জন্য জমি ছেড়ে দিতে রাজি হওয়ায় দেলোয়ারকে ৫’লাখ টাকা দেওয়া হয়। বৈঠকের সিদ্ধান্ত মানলেও হঠাৎ দেলোয়ার তার মত পাল্টিয়ে টাকা না নিয়ে চলে যায়। ধারদেনা ও ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে ভূক্তভোগী পরিবার গুলো টাকার ব্যবস্থা করার পরও দেলোয়ার তার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করায় সবার মাঝে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়।

রাজি হয়েও কেন রাস্তা দিবে না তা জানতে এলাকার লোকজন দেলোয়ারের বাড়িতে গেলে তার পরিবারের নারী-পুরুষ সবাই মিলে এলাকাবাসীর সামনেই জিম্মি পরিবারের মৃত রহমানের ছেলে হাসান, মৃত আশক আলীর ছেলে রাসেল, আবু তাহের, তারা মিয়া, আবু তাহেরের ছেলে রুবেল ও পাভেলের উপর হামলা চালায়। শুরু হয় মারামারি। এতে দু’পক্ষের লোকজন আহত হয়। এ ঘটনায় দেলোয়ারের স্ত্রী আকলিমা বাদী হয়ে ৬’জনের নাম উল্লেখ করে থানায় লিখিত অভিযোগ করেন।

জিম্মি দশা থেকে কয়েকটি পরিবারকে মুক্ত করতে স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিরা গত শুক্রবার বেলা ১১’টার দিকে অন্য দুই জনের জায়গা দিয়ে বিকল্প উপায়ে রাস্তা করতে গেলে সোর্স দেলোর তার জায়গা নিতে আসছে মনে করে নিজের ঘরে নিজেই আগুন ধরিয়ে চিৎকার চেচাঁমেচি করতে থাকে। পাশাপাশি থানা পুলিশকে খবর দেয়। তার এমন কান্ড থেকে উপস্থিত এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তি ও গণমাধ্যমসহ সবাই হতবম্ভ হয়ে পড়ে।

পরে পুলিশ এসে শত শত এলাকাবাসীর উপস্থিতিতে প্রকৃত সত্য জানতে পেরে আলাপ আলোচনার মাধ্যমে রাস্তা করার জন্য মতামত দেন।
অভিযোগ উঠেছে, নিজের ঘরে নিজে আগুন দিয়ে মিথ্যা নাটক সাজিয়ে সোর্স দেলোয়ার এখন কাঁটা দিয়ে চলাচলের রাস্তাই বন্ধ করে দিয়েছে। অথচ তার পাশের জমির মালিক রাস্তার জন্য দুই ফুট জায়গা ছাড়লে সেও দুই ফুট ছাড়বে তা পুলিশ ও গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সাথে প্রতিশ্রুতি দেয়।

তার বাড়ি সামনে হওয়ায় সোর্স দেলোয়ার নিয়মনীতি ও এলাকার সকল গণ্যমান্য ব্যক্তি এমনকি পুলিশের কথাও তোয়াক্কা না করে রাস্তা দেয়াত দূরের কথা যেটুকু ছিল তাও কাঁটা দিয়ে বন্ধ করে দিয়েছে। প্রতিবেশী রাসেল জানায়, আমারা কয়েকটি পরিবার পিচনে থাকায় চলাচলের চরম অসুবিধায় আছি। তাই রাস্তার জন্য জমি কিনে নিতেও রাজি হই। রাস্তা দিতে রাজি হয়েও দেলোয়ার একেক মিথ্যা নাকট সাজাচ্ছে।

এ বিষয়ে দেলোয়ার বলেন, আমার ব্যক্তিগত জায়গা দিয়ে আমি কাউকে চলাচলের জন্য রাস্তা দিবনা। সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী ইয়াছিন মিয়া বলেন, দেলোয়ারের সম্মত্তিতেই রাস্তাটি করার উদ্যোগ নেই। যেহেতু সে রাজি হয় তাই বৈঠকে সবার সামনে তাকে ৫’লাখ টাকা দেয়া হয়। টাকা পরে নিবে বলে সে চলে যায়।

তখন বৈঠকে উপস্থিত লোকজন রাস্তার জায়গা নির্ধারণ করতে গেলে দেলোয়ার মত পাল্টায়। যে যতি রাজি না হত তাহলে ভূক্তভোগী পরিবার গুলো আর্থিক ক্ষতিগ্রস্থ হতনা। তারা বিভিন্ন মালামাল নষ্ট করে টাকা ম্যানেজ করেছে। এ পরিবারগুলোর সাথে চরম অন্যায় করছে দেলোয়ার।

আরও পড়ুন

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

পূর্ববর্তী সংবাদইব্রাহিম মোল্লার নিন্দা
পরবর্তী সংবাদনা খেয়ে কেউ মারা যায়নি

সর্বশেষ