ঢাকাবুধবার , ২৪ আগস্ট ২০২২
  1. আন্তর্জাতিক
  2. এক্সক্লুসিভ
  3. খেলা
  4. জাতীয়
  5. তথ্যপ্রযুক্তি
  6. নগর-মহানগর
  7. নাসিক-২০২১
  8. বিনোদন
  9. রাজনীতি
  10. লাইফ-স্টাইল
  11. লিড
  12. লিড-২
  13. লোকালয়
  14. শিক্ষা
  15. শিক্ষাঙ্গন

খেলা হবে’র জবাবে বিএনপি

আবু বকর সিদ্দিক
আগস্ট ২৪, ২০২২ ৪:৩৯ অপরাহ্ণ
Link Copied!

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে রাজনীতির মাঠে নেমেছে নারায়ণগঞ্জের প্রভাবশালী সাংসদ একেএম শামীম ওসমান। ঝিমিয়ে পড়া আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের আবারো চাঙ্গা করতে নারায়ণগঞ্জ সদর, বন্দর ফতুল্লা, সিদ্ধিরঞ্জে কর্মসূচি পালন করেছেন। শুধু তাই না আগামী শনিবার জনসভা ডেকেছেন শামীম ওসমান। এই জনসভা করবেন প্রভাবশালী সাংসদ। ইতিমধ্যে শামীম ওসমান কর্মীসভা করে নেতাকর্মীদের দাওয়াত দিয়েছেন।

সেই সভায় বক্তব্যে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান বলেছিলেন, এত দিন চুপ ছিলাম। ধৈর্যের একটা সীমা আছে। রাজপথ দখল করবেন করেন। আমরা বসে আছি তোমাদের সঙ্গে খেলার জন্য। রাজাকারের সন্তানদের সঙ্গে মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানদের খেলা হবে। সে খেলায় মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানরাই জিতবে। তিনি আরও শামীম ওসমান বলেছিলেন, নারায়ণগঞ্জের মাটি থেকেই ঘোষণা দিবো, জনগণকে নিয়ে সকল কিছুর জবাব দেওয়া হবে। সকল ষড়যন্ত্রের জবাব দেয়া হবে। যদি মনে করে, আবার আগুন দিয়ে মানুষ মারবেন। ষড়যন্ত্র করে প্রধানমন্ত্রীকে শেখ হাসিনাকে ক্ষমতাচ্যুত করার চেষ্টা করলে আমরা জাতির পিতার কন্যার কথাও শুনব না। আন্দোলন করে সুষ্ঠ নির্বাচন করে ক্ষমতায় আসেন, সমস্যা নাই। কিন্তু যদি অন্য কিছু করে বাংলাদেশকে ধংস করতে চান তাহলে প্রস্তুত থাকেন, খেলা হবে। আপনারা খেলতে চান অবশ্যই আমরাও খেলবো। অশান্তির বিরুদ্ধে, শান্তির পক্ষে আমরা খেলব। অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে, শুভ শক্তির পক্ষে। ইবলিশের বিরুদ্ধে আল্লাহর পক্ষে এই খেলা হবে। এই খেলায় বাংলাদেশে আমরাই জিতব ইনশাআল্লাহ।

এদিকে বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে নারায়ণগঞ্জে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করছে। এসকল সমাবেশে শামীম ওসমানের খেলা হবে বক্তব্যে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা পাল্টা বক্তব্য রাখছেন।নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি এড. সাখাওয়াত বলেছিলেন, আপনারা জানেন যখন খেলা শুরু হয় মূল খেলা শুরুর আগে প্রস্তুতিমূলক ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়। সেই প্রস্তুতির অংশ হিসেবে সারাদেশের প্রতিটি থানা, উপজেলা এবং ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালিত হবে। আমাদের সরকারি দলের নারায়ণগঞ্জের কয়েকজন দায়িত্বশীল নেতা, তাদের উদ্দেশ্য করে বলতে চাই, আপনারাতো জনপ্রতিনিধি নন, আপনারাতো জনগণের ভোটে নির্বাচিত হন নাই। তাই আপনারা জনগণের পক্ষে কথা না বলে জনগণের বিরুদ্ধে কথা বলছেন।

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক মনিরুল ইসলাম রবি বলেছিলেন, আপনাকে স্মরণ করিয়ে দিতে চাই এটা ২০১৮ সাল নয়। দিনের ভোট রাতে বাক্সে ভরে দিবেন সেটা চলবে না। আর খেলা যেভাবে খেলতে চান। ফুটবল খেলার মাঠে কিন্তু এগারোজন প্লেয়ার থাকে। যে টিমকে জেতাবে সেখানে আরও তিনজন থাকে। একজন রেফারি আর দুজন সহকারী রেফারি। এই চৌদ্দ জনে খেললে জিতে যাবেন। তবে আপনাকে বলতে চাই। আমার নেতা তারেক রহমান বলে দিয়েছেন নির্দলীয় তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে ছাড়া এ দেশে আর চৌদ্দ জনের খেলা হবে না। আপনি সাবধান হয়ে যান। চৌদ্দ জনকে নিয়ে খেলবেন। সে খেলা আর হবে না। সেখানে নির্বাচন কমিশনকে রেফারি বানাবেন আর দুপাশে ডিসি ও এসপিকে লাইনম্যান বানাবেন আর দিনের ভোট রাতে করবেন সে সমস্ত চিন্তা বাদ দিয়ে দেন। আজকাল একটা কমন ডায়ালগ হয়ে গেছে। খেলা হবে, খেলা হবে।

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির অন্যতম সদস্য মাশুকুল ইসলাম রাজীব শামীম ওসমানের বক্তব্যের জবাবে বলেছিলেন, আপনি বলেন খেলা হবে খেলা হবে। কিন্তু আমরা খেলায় বিশ্বাসী না। রাজনীতিতে কোনো খেলা না। রাজনীতি মানে মানুষের দায়িত্ব মানুষের উপর দায়িত্ব বোধ নিজের স্বার্থ ত্যাগ করে নিজেকে অপরের জন্য বিলিয়ে দেয়ার নাামই রাজনীতি। রাজনীতি কোনো ফুটবল খেলার ম্যাচ না। আপনি খেলবেন, আপনি খেলবেন। বলেছেন আপনি ঘর থেকে ধরে আনবেন এটা আপনারা পারবেন। পুলিশ প্রশাসন থাকলে সরকার ক্ষমতায় থাকলে এই রকম বহু কথা বলা যায়। আমরা এই রকম কথা বলতে চাই না। নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদলের সদস্য সচিব মনিরুল ইসলাম সজল বলেছিলেন, আমরা খেলাই বিশ্বাসী নয়। রাজপথের আন্দোলন সংগ্রামের মধ্য দিয়ে বিএনপি বিএনপি আবারও ক্ষমতায় আসবে। সুতরাং আমাদের খেলা হবে, খেলা হবে বলে ভয় দেখাইয়ান না।

আরও পড়ুন

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।