“শর্ট টাইম খোলস” পরেছেন রুহুল আমিন

নিজস্ব প্রতিবেদক

হঠাৎ করেই নিজের খোলস পাল্টে ফেলে “শর্ট টাইম খোলস” পরেছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের সিদ্ধিরগঞ্জের ৮নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লা। মাত্র ২মাস আগেও জাতীয় শোক দিবসে করা রুহুল মোল্লার সকল ব্যানার পোস্টার কিংবা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেয়া শোক প্রকাশের ছবিতে শামীম ওসমান তো দূরে থাক সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দের ছবিও স্থান পায়নি। সেখানে শোভা পেয়েছে শুধুমাত্র নাসিক মেয়র আইভীর ছবি।

“শর্ট টাইম খোলস” পরেছেন রুহুল আমিন

কিন্তু শামীম ওসমানের নির্দেশে অনুষ্ঠিত কর্মী সভাগুলোতে খোলস পাল্টে যোগ দিচ্ছেন রুহুল আমিন মোল্লা। সেখানে মেয়র আইভীর কথা বলা তো দুরের বিষয়, শামীম ওসমানের গুনগান গাইছেন তিনি। পাশাপাশি নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ব্যর্থতা আর মেয়রের নানা অনিয়ম নিয়ে যখন নেতারা বক্তব্য দিচ্ছেন, অবমূল্যায়নে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন তখন রুহুল আমিন মোল্লাকে দেখা যাচ্ছেন চিৎকার করে,হাত তালি দিয়ে সেগুলো সমর্থন করছেন। স্থানীয় আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা কাউন্সিলর রুহুলের এই বিশাল ও রহস্যময় পরিবর্তনে মোটেই আশ্চর্য হননি বলে জানিয়েছেন। যা জানার পর গণমাধ্যম কর্মীরাই উল্টো আশ্চর্য হয়ে গেছেন। কর্মী-সমর্থকরা জানান, রুহুল আমিন মোল্লা খোলস পাল্টাবেন আবার খোলসে ঢুকবেন, এটা তো আমরা অনেক আগেই জানি। তাই আমরা মোটেও অবাক হইনি তার এই পল্টিবাজিতে। কারণ , তিনি মনে প্রাণে মেয়র আইভীর লোক এটা সবাই জানেন।তিনি মূলত, আগামী নির্বাচনে যেন দলীয় মনোনয়ন পান সেজন্যই এখন লজ্জার মাথা খেয়ে কর্মীসভাগুলো যোগ দিচ্ছেন। ৮নং ওয়ার্ড এর আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের শত শত নেতাকর্মী সমর্থকরা জানিয়েছেন, কয়েক মাস আগেও রুহুল আমিন মোল্লা সিদ্ধিরগঞ্জে একটি অনুষ্ঠানে মেয়র আইভীর সামনেই বক্তব্য রাখতে গিয়ে পরোক্ষভাবে শামীম ওসমান সমর্থকদের উদ্দেশ্য করে চরম সমালোচনা করেছিলেন। রুহুল আমিন বলেছিলেন, আমাদের দলের কিছু নেতা চারদেয়ালের মাঝে বসে সিটি কর্পোরেশনের ও মেয়রের সমালোচনা করে বলেন কোন উন্নয়ন হয়নি।

“শর্ট টাইম খোলস” পরেছেন রুহুল আমিন

রুহুল আমিন শহরের হকার ইস্যুতে ঘটে যাওয়া ঘটনা নিয়েও স্মৃতি চারণ করেন। তিনি বলেন, সেদিন সন্ত্রাসীরা মেয়র আইভীকে মেরে ফেলতে চেয়েছিল। এছাড়াও রুহুল আমিন মোল্লা তার ভেরিফাইড ফেসবুক আইডি থেকে নানা সময়ে হকার ইস্যুতে পরোক্ষ ও প্রত্যক্ষভাবে শামীম ওসমান এমপিসহ তার অনুসারী নেতাদের বিরুদ্ধে চরম সমালোচনা করেছেন। এর আগেও নির্বাচিত হওয়ার পর রুহুল আমিন বহুবার মেয়র আইভীর মিছিলে লোকজন ঘোড়ার গাড়ী নিয়ে যোগ দিয়েছেন। কিন্তু শামীম ওসমানের কোন জনসভায় তাকে দেখা যায়নি। কিন্তু হঠাৎ করেই সেই রুহুল এখন শামীম ওসমান এমপির ডাকে কর্মী সভাগুলোতে অংশ নিচ্ছেন। কর্মী সমর্থকরা জানান, মূলথ রুহুল আমিন মোল্লারা আসলে কারোই নয়। তার মত মানুষেরা কোন নেতা বা ব্যক্তির নয়, কোন দলেরও নয়। রুহুল আমিন মোল্লারা শুধুমাত্র নিজেরই হয়। এদেরই ওবায়দুল কাদের কাউয়া বলে সম্বোধন করেছিলেন। এদিকে সিদ্ধিরগঞ্জের অনেক আওয়ামীলীগ নেতারা নাম প্রকাশ না করার শর্তে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লা ২বার কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন। কিন্তু স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের জন্য তিনি কিছুই করেননি। তার নিজের বলয়ের হাতে গোনা ৭/৮জনকে তিনি সুযোগ দিলেও এই ওয়ার্ডের ত্যাগী নেতাকর্মীদের জন্য তিনি কিছুই করেননি। কারণ, সিদ্ধিরগঞ্জের আওয়ামীলীগ বলতে শামীম ওসমানকেই বুঝায়। তবে ঐ নেতারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, রুহুলের পক্ষে একা এই আধিপত্য বিস্তার করা সম্ভব হত না যদি শামীম ওসমানপন্থী ২/১জন কাউন্সিলর তার সাথে আতাত না করতেন। তাদের শেল্টার আছে বলেই ৮নং ওয়ার্ডের ত্যাগী নেতাকর্মীরা আজ বঞ্চিত। তবে এব্যপারে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি কিাউন্সলির রুহুল মোল্লা।

- Advertisement -

কমেন্ট করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

ডেইলি নারায়ণগঞ্জে প্রকাশিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি এবং ভিডিও কন্টেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ